PDA

View Full Version : ইসলামী ইমারাহ আফগানিস্তান, ১৩ মোহররম , মঙ্&



Raghib Ansar
10-28-2015, 10:29 PM
ইসলামী ইমারাহ আফগানিস্তান, ১৩ মোহররম , মঙ্গলবার -১৪৩৭/২৭ অক্টোবার, ২০১৫ এ সংঘঠিত আক্রমণের তালিকা

১। নুরিস্তান প্রদেশের কামদিশ জেলায় পুলিশ সন্ত্রাসীদের ঘাঁটি লক্ষ্য করে মুজাহিদীন্দের ভারী গোলাবর্ষণ। অবস্থানরত পুতুলদের সাথে মুজাহিদীন্দের সশস্ত্র সংঘর্ষ। এতে ৪ ভাড়াটে পুতুল আহত। বর্তমানে ঘাঁটিটি অবরুদ্ধ রেখে আক্রমণ চালিয়ে যাচ্ছেন মুজাহিদগণ।

২। খোস্ট প্রদেশের আলিশির জেলায় বোমা বিস্ফোরণে সামরিক পুতুলদের ১ টি বাহন চূর্ণবিচূর্ণ। এতে ২ পুলিশ সন্ত্রাসী নিহত।
একইভাবে, প্রদেশের বাক জেলায় পৃথক একটি বোমা বিস্ফোরণে সন্ত্রাসীদের অপর ১ টি বাহন বিধ্বস্ত। এতে অবস্থানরত সকল ভাড়াটে বন্দুকধারী নিহত ও আহত।

৩। বালখ প্রদেশে রাস্তার ধারে পুঁতে রাখা বোমা বিস্ফোরণে পুলিশ সন্ত্রাসীদের অপর ১ টি বাহন বিধ্বস্ত। ২ ভাড়াটে ভীতু পুতুল নিহত।

৪। আফগানের কাবুল রাজধানীতে বোমা বিস্ফোরণে উচ্চপদস্থ ১ পুতুল অফিসার সহ তার ভাড়াটে ২ বন্দুকধারী নিরাপত্তারক্ষী নিহত।

৫। যাবুল প্রদেশে সামরিক পুতুলদের একটি কনভয় লক্ষ্য করে ইসলামী ইমারাহতের মুজাহিদীন্দের অতর্কিত তীব্র এক সশস্ত্র আক্রমণ পরিচালনা। সন্ত্রাসীরা আতঘার জেলা কেন্দ্রস্থল হতে কান্দাহারের মারুফ জেলার উদ্দেশ্যে গমনকালে মেইন সড়কে মুজাহিদীন্দের আক্রমণের কবলে আটকা পড়ে। ফলে আইইডি বোমা বিস্ফোরণে সন্ত্রাসীদের ২ টি বাহন ও ৪ টি পিকআপ ট্রাক বিধ্বস্ত। পাশাপাশি সশস্ত্র সংঘর্ষে ১১ পুতুল বন্দুকধারী নিহত। (আল্লাহু আকবার!)

৬। কান্দাহার প্রদেশের ঘোরাক জেলা কেন্দ্র হতে চলতি অক্টোবার মাসের ৯ তারিখে ২১ জন ভাড়াটে যারা অস্ত্রশস্ত্র ও গোলা সহ মুজাহিদীন্দের কাছে আত্মসমর্পণ করেছিল, অবশেষে মুজাহিদগণ তাদেরকে মুক্ত করে দিয়েছেন । ইসলামী ইমারাহতের শরিয়াহ কোর্টে তাদের বিচার ফয়সালা শেষে উক্ত সেনাদের ছেড়ে দেওয়া হয়। তারা বর্তমানে তাদের পরিবারে ফিরে গেছে।
দলটি স্বীকারোক্তি দেয় যে, জেলা হেডকোয়ার্টার সংলগ্নে হেলিকপ্টার হতে তাদেরকে জোরপূর্বক নামানো হয়। মুরতাদ প্রশাসকগোষ্ঠী-পুলিশ ও আরবাকি সন্ত্রাসীদের কিছু মাদকদ্রব্য দিয়ে দমিয়ে জেলা কেন্দ্রস্থলটিতে অবস্থান নিয়ে তাদের অভিযান চালাতে বাধ্য করে। এবং তাদের সব অর্থ সম্পদ জেনারেল আব্দুল রাযযিক তার পকেটে চালান করে বলে তারা আরও জানিয়েছে। ইসলামী ইমারাহতের শরিয়াহ কোর্ট বিচার শেষে তাদেরকে কিছু অর্থ সম্পদ প্রদান করে উক্ত পরিবারদের কাছে তাদের ফিরিয়ে দিয়েছে।
প্রশাসনগোষ্ঠীর সাথে সকল সম্পর্ক ছেদ করে, এ রকম কর্মকাণ্ডে সংশ্লিষ্ট না হয়ে, স্বাভাবিক জীবনযাপনে ফিরে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে এই দলটি।

৭। কুনার প্রদেশের ওয়াতাপুর জেলায় সামরিক পুতুলদের ঘাঁটি লক্ষ্য করে মুজাহিদীন্দের ভারী এক সশস্ত্র আক্রমণ পরিচালনা। এতে ১ পুতুল বন্দুকধারী নিহত। আক্রমণে ঘাঁটি ধ্বংস বিধ্বস্ত।

৮। কুন্দুয প্রদেশের ইমাম সাহেব জেলায় বোমা বিস্ফোরণে পদ টহলরত ২ পুতুল এএনএ সন্ত্রাসী আহত।

৯। ওয়ারদাক প্রদেশের সায়েদ আবাদ জেলায় মুজাহিদীন্দের স্বয়ংক্রিয় থাকা বোমা নিষ্ক্রিয় করতে গিয়ে তা বিস্ফোরণে পুতুল ১ অফিসার সহ ১ ভাড়াটে বন্দুকধারী নিহত ও অপর ১ আহত।
এদিকে, জেলার অন্য কোথাও সামরিক পুতুলদের অপর একটি আউটপোস্ট লক্ষ্য করে মুজাহিদীন্দের ভারী গোলাবর্ষণ। গোলার আঘাতে পোস্ট বিধ্বস্ত। ১ ভাড়াটে পুতুল নিহত।
অপরদিকে, প্রদেশের চাক জেলায় সামরিক পুতুলদের সাথে মুজাহিদীন্দের অপর এক সশস্ত্র সংঘর্ষ। এতে কিছু সংখ্যক ভীতু পুতুল নিহত ও আহত। যদিওবা হতাহতের নির্দিষ্ট সংখ্যা অজানা।

১০। বাঘলান প্রদেশের পল-ই-হিসার জেলায় মুজাহিদীন্দের তীব্র সশস্ত্র আক্রমণে আরবাকি সন্ত্রাসীদের ১ পুতুল কমান্ডার নিহত ও অপর ৩ ভাড়াটে বন্দুকধারী আহত।
পারওয়ান প্রদেশের শিনওয়ারী জেলার কাবুল ও বামিয়ান হাইওয়ে সড়কে সামরিক পুতুলদের সাথে মুজাহিদীন্দের বন্দুক যুদ্ধ। যদিওবা পুতুল হতাহত সম্পর্কিত বিস্তারিত কোন তথ্য পাওয়া যায়নি। এদিকে, সংঘর্ষ চলাকালীন সময় সড়ক চলাচল বন্ধ ছিল।

১১। জাওযান প্রদেশের খামাব জেলায় মুজাহিদীন্দের কাছে মারাত্মক বিপর্যস্ত হয়ে পরাজয় বরণের পর, দস্তাম সন্ত্রাসীরা স্থানীয় অঞ্চলে ধ্বংসাত্মক হত্যাযজ্ঞ চালাচ্ছে।
স্থানীয়দের প্রতিটা বাড়ি হতে অপর বাড়িতে অভিযান চালিয়ে, সন্ত্রাসীরা লুঠ, নৃশংস অত্যাচার ও হত্যাযজ্ঞে মেতে রয়েছে।
বসবাসকারীদের তথ্য অনুযায়ী, বেসামরিক এই সন্ত্রাসীরা ঘর বাড়ি লণ্ডভণ্ড করে, স্থানীয়দের মূল্যবান সরঞ্জাম, নগদ টাকা, গয়নাগাটি, মোটরবাইক যা পাচ্ছে তাই লুঠ করে চলেছে।
সবচেয়ে জঘন্য ও গুরুতর যে, দস্তামের অর্ডারে তার ভাড়াটেরা অন্যান্য স্থানীয়দের প্রত্যক্ষে অপর কিছু অসহায়দের হত্যা করেছে। মুজাহিদীন্দের অনুকরণে ও তাদের প্রতি সহানুভূতি প্রদর্শনে এই সন্ত্রাসীরা নিরীহদের উপর তাদের নিষ্ঠুরতা প্রদর্শন করে চলেছে।
এ পর্যন্ত খুনি দস্তাম ও ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের নৃশংস অত্যাচার কর্মকাণ্ডে ২০ জন অসহায় স্থানীয় শাহাদাৎ বরণ করেছেন। (আল্লাহ্* (সুবঃ) তাঁদেরকে উত্তমরূপে কবুল করুন, আমীন!)। আঘাত প্রাপ্ত হয়েছে আরও কয়েক ডজন। (আল্লাহ্* (সুবঃ) তাঁদেরকে তড়িৎ শেফায়াহ দান করুন, আমীন!)
ইসলামী ইমারাহ-দস্তাম ও খুনি সন্ত্রাসীদের এই কর্মকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে। দস্তাম ও তার ভাড়াটেদের সম্প্রতি এই নৃশংস কর্মকাণ্ড, এবং দস্তামের মত ডাকাত পিশাচ খুনিদের থামাতে, এই রকম বর্বরতা, ধ্বংসাত্মক পরিণতির যাতে পুনরাবৃত্তি না ঘটে তা লক্ষ্য রেখে, এই সব ক্ষেত্রে সকল মিডিয়া ও সংস্থাগুলো যাতে নিদ্রায় না ঢোলে চোখ দিয়ে এই জুলুমবাজদের রূপ-প্রচার প্রত্যক্ষ করে, সেই আহবান জানানো যাচ্ছে।

১২। ফারিয়াব প্রদেশে ১ আরবাকি নিজের দোষ স্বীকার করে মেশিনগান সহ ইসলামী ইমারাহতের মুজাহিদীন্দের কাছে আত্মসমর্পণ করেছে।

১৩। বাদঘিস প্রদেশের ঘরমাচ জেলার আ’আব গারমাক জেলায় সামরিক পুতুলদের একটি কনভয় লক্ষ্য করে মুজাহিদীন্দের তীব্র সশস্ত্র আক্রমণ পরিচালনা। মেশিনগানের ফায়ারিংএ সন্ত্রাসীদের ২ টি বাহন বিধ্বস্ত। পাশাপাশি অবস্থানরত সকল ভাড়াটে বন্দুকধারী নিহত ও আহত।

১৪। যাবুল প্রদেশের শিঙ্কি জেলায় আইইডি বোমা বিস্ফোরণে সামরিক পুতুলদের অপর ১ টি বাহন বিধ্বস্ত। এতে অবস্থানরত সকল ভীতু পুতুল নিহত ও আহত।

১৫। হেল্মান্দ প্রদেশের মারজাহ জেলার সিস্তানি এলাকা হতে সামরিক ভীতুরা মুজাহিদীন্দের ভয়ে তাদের নির্মাণাধীন কেন্দ্রস্থল ছেড়ে পলায়ন করেছ। বর্তমানে, প্রশস্ত এলাকাটি মুজাহিদীন্দের দখল নিয়ন্ত্রণে।

১৬। হেল্মান্দ প্রদেশের ওয়াশির জেলায় আইইডি বিস্ফোরণে পথ টহলরত ২ পুতুল এএনএ সন্ত্রাসী নিহত।

১৭। কান্দাহার প্রদেশের বলদাক জেলায় সামরিক পুতুলদের একটি ঘাঁটিতে মুজাহিদীন্দের সশস্ত্র আক্রমণ অভিযান পরিচালনা। এতে ২ পুতুল বন্দুকধারী আহত হয়েছে।

১৮। ফারিয়াব প্রদেশের মাইমানা জেলার চার রাহি অঞ্চলের সানাহি এলাকাই আইইডি বোমা বিস্ফোরণে ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের ১ টি বাহন বিধ্বস্ত। ৩ পুতুল বন্দুকধারী নিহত ও অপর ২ আহত।
অফিসিয়ালদের তথ্য অনুযায়ী, দুঃখজনকভাবে আক্রমণে ২ ব্যক্তি সামান্য আঘাত প্রাপ্ত হয়েছে। (আল্লাহ্* (সুবঃ) তাঁদেরকে তড়িৎ শেফায়াহ দান করুন, আমীন!)

১৯। নিমরোজ প্রদেশের দেলারাম জেলায় আইইডি বোমা বিস্ফোরণে পথ টহলরত অন্তত ২ পুতুল বন্দুকধারী নিহত।

২০। তাকহার প্রদেশের দারকাদ জেলা প্রশাসন কেন্দ্র, পুলিশ হেডকোয়ার্টার ও পার্শ্ববর্তী সন্ত্রাসীদের সকল প্রতিরক্ষামূলক পোস্ট লক্ষ্য করে ইসলামী ইমারাহতের মুজাহিদীন ভাইরা বড়সড় একটি আক্রমণ অভিযান পরিচালনা করেছেন। আক্রমণ অভিযানের মধ্য দিয়ে জেলা ভবন, পুলিশ হেডকোয়ার্টার ও এর পার্শ্ববর্তী সকল পোস্টসমূহ সন্ত্রাসমুক্ত এবং মুজাহিদীন্দের দখল নিয়ন্ত্রণে। সংঘর্ষে ১২ ভাড়াটে পুতুল নিহত ও কয়েক ডজন পুতুল আহত হয়েছে। বাকীরা বিপর্যস্ত হয়ে কেন্দ্রস্থল ছেড়ে পলায়ন করেছে। (আল্লাহু আকবার!)
গণিমত হিসাবে ঘটনাস্থল হতে ৪ টি পিকআপ ট্রাক, ১ টি বাহন, ২৪ টি রাইফেল, মর্টার টিউব সহ বিপুল পরিমাণ অন্যান্য সামরিক সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে। তথ্য অনুযায়ী, সফল অভিযানটিতে ৩ মুজাহিদ ভাই আঘাত প্রাপ্ত হয়েছেন। (আল্লাহ্* (সুবঃ) তাঁদেরকে তড়িৎ শেফায়াহ দান করুন, আমীন!)। এবং অপর ২ ভাই শাহাদাৎ বরণ করেছেন। (আল্লাহ্* (সুবঃ) তাঁদেরকে উত্তমরূপে কবুল করুন। তাঁদেরকে জান্নাত নসীব করুন, আমীন!)

২১। কুন্দুয প্রদেশের দাশটি আরচি জেলার সেইখাবাদ এলাকাই সামরিক পুতুলদের সাথে মুজাহিদীন্দের তুমুল সশস্ত্র সংঘর্ষ। উল্লেখ্য, ভাড়াটেরা এলাকাটিতে আক্রমণাত্মক অভিযানে আসলে তাদের লক্ষ্য করে মুজাহিদগণ পালটা আক্রমণ পরিচালনা করেন। ফলে, সংঘর্ষটিতে ১০ পুতুল বন্দুকধারী নিহত ও অপর ১৬ পুতুল আহত হয়। (আল্লাহু আকবার!)
অফিসিয়ালদের তথ্য অনুযায়ী, গুলী বিনিময়ে ৩ মুজাহিদ ভাই আঘাত প্রাপ্ত হয়েছেন। (আল্লাহ্* (সুবঃ) তাঁদেরকে তড়িৎ শেফায়াহ দান করুন, আমীন!)। এবং অপর ১ ভাই শাহাদাৎ বরণ করেছেন। (আল্লাহ্* (সুবঃ) তাঁকে উত্তমরূপে কবুল করুন। তাঁকে জান্নাত নসীব করুন, আমীন!)



মুজাহিদীন অভিযানের দৈনন্দিন স্ট্যাটিস্টিক্স রিপোর্টঃ২৭ অক্টোবার , ২০১৫


 সর্বমোট অভিযান/সংবাদঃ ২১
 আগ্রাসী সন্ত্রাসী নিহতঃ ০
 আগ্রাসী সন্ত্রাসী আহতঃ ০
 আগ্রাসী সন্ত্রাসী হতাহতঃ ০
 যৌথ সন্ত্রাসী নিহতঃ ০
 যৌথ সন্ত্রাসী আহতঃ ০
 যৌথ সন্ত্রাসী হতাহতঃ ০
 ডাকাত/লোকাল সন্ত্রাসী/অপহরণকারী নিহতঃ ০
 ডাকাত/লোকাল সন্ত্রাসী/অপহরণকারী আহতঃ ০
 পুতুল সন্ত্রাসী নিহতঃ ৫২+
 পুতুল সন্ত্রাসী আহতঃ ৩০+
 পুতুল সন্ত্রাসী হতাহতঃ ০
 শত্রুপক্ষের ট্যাঙ্ক বিধ্বস্তঃ ০
 শত্রুপক্ষের বাহন বিধ্বস্তঃ ১৩
 শত্রুপক্ষের হেলিকপ্টার/বিমান বিধ্বস্তঃ ০
 মুজাহিদীনদের হাতে বন্দীঃ ০
 মুজাহিদীন শহীদঃ ৩
 মুজাহিদীন আহতঃ ৬
 বেসামরিক নিহতঃ ২০
 বেসামরিক আহতঃ ২+
 বেসামরিক বন্দীঃ ০
 মুজাহিদীনদের সাথে যোগদানঃ ১

-------------------------------------------


হে আল্লাহ! যিনি কিতাব নাজিল করেছেন, মেঘ সৃষ্টি করেছেন, পরাভূতকারী যিনি ক্রুসেডার এবং তাদের মুরতাদ সহযোগীদের পরাভূত করেছেন।

হে আল্লাহ! তাদেরকে এবং তাদের যন্ত্রপাতিকে মুসলিমদের জন্য গনিমতের মাল বানিয়ে দাও।

হে আল্লাহ! তাদেরকে অপদস্ত কর এবং তাদের ভীত করে দাও।

হে আল্লাহ! তুমি আমাদের সাহায্যকারী এবং তুমিই আমাদের রক্ষক।

হে আল্লাহ! আমরা তোমার সাহায্যেই আক্রমন পরিচালনা করি এবং আমরা তোমাকে নিয়েই যুদ্ধ করি।

আল্লাহু আকবার

(এবং সম্মান আল্লাহ এবং তাঁর রাসুল (সাঃ) এবং বিশ্বাসী বান্দাদের জন্য কিন্তু মুনাফিকরা তা জানে না)



ইসলামী ইমারাহ আফগানিস্তান


অনুবাদে ভুলত্রুটি হয়ে থাকলে শুধরে দিবেন।

কাল পতাকা
10-29-2015, 05:06 AM
আফগানিস্তানের খবরগুলো পরিবেশনের মোবারক প্রচেষ্টার জন্য আল্লাহ তায়ালা আপনাকে উত্তম প্রতিদান দান করুন।