PDA

View Full Version : কেবল মুসলিম হওয়ায় বাড়ি ভাড়া পেলেন না নারী, ভারতে থাকতে হলে জয় শ্রী রাম বলতে হবে!



কালো পতাকা
10-30-2018, 12:12 AM
একজন মুসলিম নারী ভারতের বেঙ্গালুরুতে বাড়ি ভাড়া নিতে চাইলে কেবল মুসলিম হওয়ার জন্য তাকে বাড়ি ভাড়া না দেওয়ার অভিযোগ করেছেন। তিনি নেস্টাওয়ে নামক বাড়ি ভাড়া দেওয়া সম্পর্কিত বিজ্ঞাপন প্রদানকারী একটি অনলাইন পোর্টালের দ্বারস্থ হন, এই কোম্পানির মাধ্যমেই তিনি তার পরিবারের সাথে মানানসই দুটি বাড়ির সন্ধান পান। পরে, এই ঘটনার জন্য কোম্পানিটি ক্ষমা চেয়েছে বলে ক্যারাভান ডেইলি নামক বার্তা সংস্থার বরাতে জানা গেছে। তাৎক্ষণিক ঐ বাড়ি দুটি কোম্পাটির তালিকা থেকেও কেটে দিয়েছে বলে জানা যায়। ঘটনাটি এ মাসের শুরুর দিকে ঘটেছে ।
আরশি ইয়াসিন নামের ঐ মুসলিম মহিলা ১৫ই অক্টোবরে একটি টুইট বার্তায় বলেন, বেঙ্গালুরুতে আমাকে আমার পরিবারের জন্য দুটি বাড়ি ভাড়া দেওয়া হয়নি কেবল এই কারণে যে, আমরা মুসলিম! এক উগ্র এবং বিচারবুদ্ধিহীন হিন্দু বাড়ির মালিক আমাকে যাচাই করার জন্য আমার সাথে কথা পর্যন্ত বলেনি! তারপর তিনি টুইট বার্তাটিতে নেস্টাওয়ে কোম্পানির সমালোচনা করেন। ভারতে মুসলিমদের সাথে এ ধরণের ঘটনা নতুন নয়, বরং প্রতিনিয়তই ঘটে চলেছে! উগ্রবাদী হিন্দুদের একটি মহল মুসলিমদের বিরুদ্ধে হিন্দুদের উস্কানি দিয়ে যাচ্ছে বলেও অভিযোগ রয়েছে!

এদিকে, হিন্দুত্ববাদী উগ্রপন্থিরা মুসলিমরা নামাজ আদায়কালীন উচ্চস্বরে তীব্র ঘৃণাভরে স্লোগান দিতে থাকে! যদি তোমরা(মুসলিম) ভারতে বাস করতে চাও, তবে তোমাদেরকে জয় শ্রী রাম বলতে হবে! আর যারা বলবে না, তাদেরকে জীবন্ত পুতে ফেলা হবে! ডকুমেন্টিং অপ্রেশন অগেইন্সট মুসলিমস্ নামক অনলাইন বার্তা সংস্থা কর্তৃক প্রকাশিত একটি ভিডিওতে এই বিষয়টি উঠে এসেছে।

خالد سيف الله
10-30-2018, 07:58 AM
আমাদের সমাজে যারা ভারতভক্ত তারা যেন এই নিউজটি চিন্তাকরেন৷

হিন্দের মুহাজির
10-30-2018, 03:23 PM
সম্মানিত ভাই! "জয় শ্রী রাম" অর্থ কী???

কালো পতাকা
10-30-2018, 09:55 PM
উম্মাহ নিউজের বরাতে জানা যায়,
গুজরাটে হিন্দুত্ববাদিদের মুসলিম বিদ্বেষী সাম্প্রদায়িক হিংসা ও ঘৃণার খবর অনেক শোনা গেছে এর আগে। বিজেপি-আরএসএস দ্বারা সাম্প্রদায়িক হিংসা ছড়ানোর কথা অনেক শোনা গিয়েছে। আখলাক-দাদরি-জুনায়েদ-আফরাজুল-মহম্মদ আজিম টপকে গোরক্ষার নামে হত্যা, রাস্তায় নামাযে বাধা, মসজিদে শুকরের মাংস ফেলা, নামাযে বাধা দিয়ে জয় শ্রীরাম চেঁচিয়ে উস্কানি দেওয়া অহরহ ঘটনা এই দেশে।
বাদ যায়নি এরাজ্যেও ইসলামপুরে দাড়িভীটে উর্দু শিক্ষক নিয়োগের বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক বিষ উগরে দেওয়া কলঙ্কিত ঘটনা। রামনবমীর দিনে দাঙ্গার প্ল্যান ভেস্তে যাওয়ার পরেই সামনে এলো আরেক রোমহর্ষক ঘটনা। এবার খোদ কলকাতার হাওড়া ষ্টেশন চত্বরে দেখা গেলো রাম বাহিনীর সাম্প্রদায়িক তান্ডব। স্যোশাল মিডিয়ায় হিন্দুত্ববাদিদের এই জঘন্য কর্মের ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায় ইতিমধ্যেই।
ভিডিওটিতে দেখা যায়, একদল নামাযী মুসলমান স্টেশন চত্বরে শান্তিপুর্ণভাবে জামাত করে নামায আদায় করছেন। পাশের প্লাটফর্মে দাঁড়িয়ে থাকা অন্য এক ট্রেনের বগির ভেতর থেকে সম্মিলিতভাবে গগনবিদারী জয় শ্রীরাম শ্লোগান উড়ে আসছে সাম্প্রদায়িকতার চরম নিদর্শন হিসেবে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী বারংবার দাবী করেন, এই রাজ্যে কোনোমতেই সাম্প্রদায়িক উস্কানীদাতাদের কোনো জায়গা দেবেন না। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর সেই চ্যালেঞ্জকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে বারবার রামসেনারা দাঙ্গার ছক কষে শান্তিপ্রিয় মুসলমানদেরকে উস্কানী দিয়েই চলেছে একের পর এক।
নামায চলাকালীন পাশের ট্রেন থেকে গলায় গেরুয়া ফতোয়াধারী আরএসএস গুণ্ডারা জোর গলায় জয় শ্রীরাম বলে চেঁচাতে থাকে। কিন্তু তাতেও অপরদিক থেকে কোনো বাধা না পেয়ে হিংসার মাত্রা বাড়িয়ে দিয়ে মোল্লা হটাও-হাফিজ হটাও-জেহাদী হটাও বলে কটাক্ষ শুরু করে। বাংলায় থাকতে হলে জয়শ্রীরাম বলতে হবে এটার পাশাপাশি নামাযীদের উদ্দেশ্যে জঙ্গী সংগঠন বলেও উস্কানী দিতে দেখা যায় রাম বাহিনীদের।
এদের ঐদ্ব্যত্ব দেখে হতবাক বাকি যাত্রী সহ সোসিয়াল মিডিয়া জগত। চারিদিকে নিন্দার রব দেখা যায়। প্রশ্ন ওঠে মমতা ব্যানার্জীর ধর্মনিরপেক্ষতা নিয়ে। অনেকেই দাবী করেন, মমতা ব্যানার্জীর আস্কারাতেই এরাজ্যে আরএসএস দুর্গ গড়ে উঠেছে। বারংবার সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার ছক ধরার পরেও কেনো পশ্চিমবঙ্গ প্রশাসন নির্বিকার, সেই নিয়েও আঙ্গুল উঠছে রাজ্যের বিভিন্ন মহলে।
রাজ্য পুলিশের পর এবারে নির্বিকার হয়ে বসে রইলো খোদ রেল পুলিশ আধিকারিকরা। তাহলে কি রাজ্য সরকার এদেরকে খুব সহজেই ছাড় দিয়ে ফেলেছে। নাকি রাজ্য সরকারও সাম্প্রদায়িক বিভেদ ঘটিয়ে ভোটব্যাঙ্ক বাড়াতে চাইছেন? সেটার উত্তর এখনো অজানা!!

কালো পতাকা
10-30-2018, 10:10 PM
ভারতের ছত্তিসগড়ে মাওবাদী হামলায় জওয়ানসহ নিহত ৩
ভারতের ছত্তিসগড়ে মাওবাদী হামলায় নিরাপত্তা বাহিনীর ২ জওয়ান ও এক চিত্রসাংবাদিক নিহত হয়েছেন। আজ (মঙ্গলবার) দান্তেওয়াড়ার অরনপুরে মাওবাদীরা গণমাধ্যম টিমের ওপরে গুলিবর্ষণ করলে সরকারি টেলিভিশন সংস্থা দূরদর্শনের এক চিত্রসাংবাদিক ও তাঁর নিরাপত্তায় থাকা দুই জওয়ান নিহত হন। দান্তেওয়াড়ার পুলিশ সুপার ঘটনাস্থলের উদ্দেশ্য রওয়ানা হয়েছেন।
ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত নিরাপত্তা বাহিনী পৌঁছে হামলাকারীদের সন্ধানে ব্যাপক তল্লাশি শুরু করেছে।

Bara ibn Malik
10-31-2018, 04:53 AM
আল্লাহ বলেছেন কাফের মুসলমানদের শুত্রু এ কথাটি ভুলে গেলেই সমস্যা। শুত্রুকে শুত্রু হিসেবেই দেখতে হবে। কাফেরদের মাঝে বসবাস করে এমন মুসলিমদের উচিত সাধ্য থাকলে হিজরত করা।

ফানা ফিল্লাহ
10-31-2018, 08:13 AM
রাসুল সঃ এর এক হাদিস বর্নিত আছে যে ,তিনি বলেনঃ আমি ঐ সকল মুসলিমদের থেকে মুক্ত,যারা মুশরিকদের সাথে বসবাস করে । হাদিসটি সহিহ সনদে বর্নিত।

এই হিসেবে সকল মুসলিমদের হিজ্রত করা ওয়াজিব হয়ে যায়।
আল্লাহ তাআলা আমাদের নেক আমালের প্রতি ধাবিত হওয়ার তৌফিক দান করুক।


আমিন।