PDA

View Full Version : ফেনীতে ছেলের হাতে খুন হওয়া অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্যের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার!



munasir
01-14-2019, 08:51 PM
ফেনীতে ছেলের হাতে খুন হওয়া অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্যের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার!

https://i.imgur.com/qfgZ7LG.jpg

ফেনীর ছাগলনাইয়ায় সেপটিক ট্যাংক থেকে অবসরপ্রাপ্ত সেনাসদস্য আবুল কালামের (৫২) অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তাকে অন্যকোন শত্রুরা হত্যা করে নি। নিজের আদরের ছেলে হাসান ও তার বন্ধুরা মিলেই ঘটিয়েছে এ হত্যাকাণ্ড।
সংবাদ মাধ্যম হাজারিকা প্রতিদিনের বরাতে জানা যায়, গত শুক্রবার মধ্যরাতে ছাগলনাইয়া থানায় সাংবাদিকদের সামনে সেই রোমহর্ষক হত্যাকাণ্ডের বর্ণনা দেয় ছেলে হাসান। তার দাবি, তার বাবা আবুল কালাম পরিবারের সদস্যদের প্রায় নির্যাতন করত। এজন্য বন্ধু দিয়ে ভয় দেখাতে গিয়ে লাঠি দিয়ে হাল্কা আঘাত করে। এতে তার মৃত্যু হয়। সে আরো বলে, এত হাল্কা আঘাতে তার বাবার মৃত্যু হবে সেটা ভাবতে পারেনি সে। এর আগে গত বৃহস্পতিবার বিকালে সেপটিক ট্যাংক থেকে আবুল কালামের লাশ উদ্ধার করা হয়। কালামের বোন জরিনা আখতার জানান, গত শুক্রবার (৪ জানুয়ারি) রাত থেকে নিখোঁজ হন ভাই আবুল কালাম। বৃহস্পতিবার ঘরের পাশে দুর্গন্ধ পান তিনি। এ সময় পাশের ঘরের সেপটিক টাংকের ঢাকনা সামান্য ফাঁকা দেখতে পান। বিষয়টি এলাকার মুক্তিযোদ্ধা মোশারফ হোসেনকে জানালে তিনি পুলিশে খবর দেন। দুপুরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ও সেপটিক ট্যাংকে লাশ দেখতে পেয়ে বিকেলে লাশ উদ্ধার করে।
ইসলামিক বিশ্লেষক বলছেন, ইসলামিক নীতি নৈতিকতা ও প্রচলিত সমাজ ব্যবস্থায় ইসলামিক মূল্যবোধের অভাবেই আজকে সমাজে নিজের সন্তানের হাতে পিতা মাতা নিহত হওয়ার মত ঘটনা ঘটছে। যা খুবই দু:খজনক। কেননা কোরআনী শিক্ষায় পিতা মাতাকে উফ শব্দ বলতেও নিষেধ করা হয়েছে যা তাদেরকে কষ্ট দিতে পারে।

munasir
01-18-2019, 09:18 PM
https://i.imgur.com/xaD5Cxa.jpg
শরীয়তপুরে সড়ক পাকাকরণ কাজের মান খারাপ হওয়ায় স্থানীয়দের ক্ষোভ প্রকাশ ।


শরীয়তপুরের ডামুড্যা উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডি) বিভাগের সড়ক পাকাকরণ কাজে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। কাজের মান খারাপ হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয়রা।

ডামুড্যা এলজিইডি অফিস সূত্রে জানা যায়, ডামুড্যা উপজেলার শিধলকুড়া ইউনিয়ন পরিষদ থেকে নাগেরপাড়া ভায়া চরপাতালিয়া মুন্সির হাট পর্যন্ত ৫ হাজার ৯৬০ মিটার দৈর্ঘ্য ও চওড়া ৩ দশমিক ৭ মিটার সড়ক পাকাকরণ কাজ এলজিইডি বিভাগের আওতায় বাস্তবায়ন করছে প্রিন্স ট্রেডিং নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। সড়ক পাকাকরণ কাজে ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছে প্রায় ১ কোটি টাকা। ৫ হাজার ৯৬০ মিটার সড়কের মধ্যে এক হাজার ২০০ মিটার কার্পেটিং হবে, বাকিটা ১২ মি. মি. করে সিলকোট হবে।
কিন্তু ১২ মি. মি. সিলকোট হওয়ার কথা থাকলেও ৪ মি. কমিয়ে ৮ মি. মি. সিলকোট করে সড়ক পাকা করা হচ্ছে। ফলে কাজের মান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন এলাকাবাসী। সেই সঙ্গে পুনরায় কাজ বাস্তবায়নের দাবি তাদের।

এলাকাবাসী জানান, ঠিকাদার এই সড়কের কাজে অনিয়ম করছে। সড়কের গর্তগুলোর মধ্যে দুই নম্বর ইটের সুরকি দিচ্ছে। পাশাপাশি গুঁড়ি পাথর দিয়ে সড়কে যে ঢালাই দিয়ে যাচ্ছে, তা পা দিয়ে আঁচড় কাটলে উঠে যাচ্ছে। তাই পুনরায় সড়কের কাজ বাস্তবায়ন করা হোক।