PDA

View Full Version : শান্তি আলোচনার ব্যাপারে তালেবানের মুখপাত্র যবিহুল্লাহ মুজাহিদের বিবৃতি। (অনুবাদ)



আদনানমারুফ
03-15-2019, 10:51 PM
আমেরিকার সাথে তালেবানের শান্তি আলোচনার ব্যাপারে কিছু বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে, কেউ কেউ মনে করছেন, তালেবান আমেরিকার সাথে দুটি চুক্তি সম্পাদন করেছে, যার একটি হলো, তালেবানরা আফগান ভূমি ব্যবহার করে কাউকে আমেরিকা ও তার মিত্রদের উপর আঘাত হানার সুযোগ দিবে না। এরপর তারা এই চুক্তির ব্যাখা-বিশ্লেষণ করা শুরু করেছেন। কিন্তু বাস্তবতা হলো তালেবানদের সাথে আমেরিকার এ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে, কিন্তু এখনো কোন চুক্তি সম্পাদিত হয়নি। ইমারাতে ইসলামিয়্যার অফিসিয়াল উর্দু সাইট http://alemarahurdu.com/ এ গত পরশু প্রকাশিত তালেবান মুখপাত্র যবিহুল্লাহ *মুজাহিদের বিবৃতি থেকে বিষয়টি সুষ্পষ্ট। তাই তার বিবৃতিটি মূল উর্দু সহ অনুবাদ করে দিচ্ছি,

সদ্য সমাপ্ত শান্তি আলোচনার ব্যাপারে তালেবান মুখপা্ত্র যবিহুল্লাহ মুজাহিদের বিবৃতি

২৫ শে ফেব্রুয়ারী দোহায় আমেরিকার সাথে ইমারাতে ইসলামিয়ার প্রতিনিধিদের আলোচনা শুরু হয় এবং আজ ১২ মার্চ ১৭ দিন ব্যাপী এই আলোচনা শেষ হয়।

আলোচনার বিষয়বস্তু ছিল জানুয়ারীতে নির্ধারিত হওয়া দুটি বিষয়,
১-আফগানিস্থান থেকে সকল বিদেশী সৈন্য প্রত্যাহার।
২-অন্যান্য রাষ্ট্রের বিপক্ষে আফগান ভূমি ব্যবহারের সুযোগ না দেওয়া।
অর্থাৎ আফগানিস্থান থেকে বিদেশী সৈন্যরা কিভাবে ও কতটুকু সময়ের মধ্যে বের হবে, বের হওয়ার পদ্ধতি কি হবে? এবং ভবিষ্যতে আফগানিস্থানের ব্যাপারে আমেরিকা ও তাদের মিত্ররা কিভাবে নিশ্চিন্ত থাকবে?

এই দুই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা ও তর্কবিতর্ক হয়, এই সভায় যে আলোচনা হয়েছে, এবং যে সকল প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়েছে তার ব্যাপারে উভয় পক্ষ আরো চিন্তাভাবনা করবে, এবং পরবর্তী আলোচনা সভার দিনতারিখ উভয় পক্ষের সম্মতিতে নির্ধারিত হবে। সেই সভার জন্য এখন থেকেই প্রস্তুতি শুরু হবে।

উল্লেখ্য, এই সভায় যুদ্ধবিরতি কিংবা কাবুল সরকারের সাথে আলোচনার কোন সিদ্ধান্ত হয়নি, তেমনিভাবে অন্য কোন বিষয়কে আলোচনায় আনা হয়নি। সুতরাং এসব বিষয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমের বিবৃতি ভিত্তিহীন ।


যবিহুল্লাহ মুজাহিদ
মুখমাত্র, ইমারাতে ইসলামিয়্যাহ
৫ রজব ১৪৪০, ১২ ই মার্চ ২০১৯



مذاکرات کا حالیہ مرحلہ اختتام پذیر ہونے کے حوالے سے ترجمان کا بیان

امریکی فریق کیساتھ امارت اسلامیہ کے نمائندوں کے مذاکرات 25/ فروری سے دوحا میں شروع اور آج سترہ دن یعنی 12/ مارچ کو اختتام پذیر ہوئے۔

مذاکرات کے سلسلے میں جنوری کے مہینے میں طے ہونیوالے دو متفقہ موضوعات پر مفصل اور ہمہ پہلو گفتگو ہوئی، وہ دو موضوعات افغانستان سے تمام بیرونی افواج کا انخلا اور دیگر ممالک کے خلاف افغان سرزمین کا عدم استعمال تھا۔ یہ کہ افغانستان سے تمام بیرونی افواج کس طرح اور کتنے عرصے میں نکلے گی اور انخلا کی ترتیب کیسی ہوگی ؟ نیز مستقبل میں افغانستان سے امریکا اور اس کے اتحادی کس طرح مطمئن رہینگے؟

ان دونوں امورو میں کافی پیشرفت ہوئی ہے، اب تک ہونیوالی پیشرفت پر فریقین مزید غور کریگی، اسے اپنے قائدین سے شریک کریگی اور آئندہ اجلاس کے تعین کا اعلان فریقین کے مذاکراتی ٹیم کی اتفاق رائے سے کیا جائیگا، اس اجلاس کے لیے آمادگی کی جائیگی۔

واضح رہے کہ اس اجلاس میں جنگ بندی اور کابل انتظامیہ کیساتھ مذاکرات کے حوالے سے کوئی فیصلہ ہوا ہے اور نہ ہی دیگر موضوعات کو ایجنڈا میں شامل کیا گیا ہے، اس حوالے سے چند ذرائع ابلاغ کی رپورٹیں بےبنیاد ہیں۔

ذبیح اللہ مجاہد ترجمان امارت اسلامیہ
05/ رجب المرجب 1440 ھ بمطابق 12/ مارچ 2019ء

হেলাল
03-16-2019, 08:08 AM
আল্লাহ তায়ালা আপনার মেহনকে কবুল করুন,আমিন।

musab bin sayf
03-16-2019, 08:39 AM
জাজাকাল্লাহ ভাই আল্লাহ আপনার কাজে বারাকাহ দান করুক
ইনশাআল্লাহ আমেরিকা এবং তার দোসর রা লেজ গুটিয়ে পালাবে

molla
03-16-2019, 10:08 AM
ভাই এর মুহতারাম মোল্লা ব্রাদার আখুন্দ হাফিজাহুল্লাহু এর একটা ইন্টারভিউ পশতু ভাষায় নতুন রিলিজ হয়েছে। তা কি অনুবাদ হয়েছে?একটু শুনতে পারলে মনটা অনেক শান্ত হত!

media jihad
03-16-2019, 10:28 AM
মাশাআল্লাহ্, আল্লাহ আমাদের সকলকে কবুল করুন

(ঈমান সবার আগে)

কালো পতাকাবাহী
03-16-2019, 10:53 AM
আল্লাহ সুব. আপনার মেহনাত কবুল করুন,আমীন।