PDA

View Full Version : এক ডোনারের প্রতিবেদন - FDD's "লং ওয়ার জার্নাল"।



তাহমিদ হাসান
03-30-2019, 02:03 AM
HRW : সরকারের পাশবিক নৃশংসতা ও "বুরকিনা ফেসো"র জিহাদীরা।
রিপোর্টার : কালিব উয়েস, ২৫মার্চ ২০১৯।
{weiss.caleb2@gmail.com | @Weissenberg7}


.................................................. .................................................. .......................................
.................................................. .................................................. .......................................

এখানে "উত্তর বুরকিনা ফেসো" অঞ্চলের "অানসারুল ইসলাম" এর সেনাবাহিনীদের একটি ছবি দেখানো হয়েছে। ("হানি নুসাইবাহ" ছবিটি নিশ্চিত করেছে) ।


জিহাদী ও সরকার উভয়ের সৈন্যবাহিনী কর্তৃক "উত্তর বুরকিনা ফেসো" অঞ্চলে কতিপয় হত্যাকান্ড বিষয়ক, "হিউম্যান রাইটস ওয়াচ" এর সাম্প্রতিক রিপোর্টে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ পেয়েছে। প্রতিবেদনটি যেমনিভাবে একাধারে নিরাপত্তা ব্যবস্থার জটিলতার দিকে ইঙ্গিত করছে, ঠিকতেমনি অবস্থার তীব্রতার দিকেও ইশারা করেছে যা সমভাবে জিহাদী সমস্যা সৃষ্টি করছে।


২০১৮সালের মধ্য থেকে গতমাস পর্যন্ত সময়ের ভিতরে সংঘটিত কতিপয় হত্যাকান্ড বা অারোও কিছু ঘটনা বর্ণনা করেছে HRW । HRW বলেছে, জিহাদী সৈন্যরা অন্তত ৪২জন (বিয়াল্লিশ) বেসামরিক নাগরিককে হত্যা করেছে। একিসময়ে অারোও ১১৬জন (একশত ষোল) বেসামরিক নাগরিককে নিহত অবস্থায় পাওয়া গেছে, যাদেরকে সরকারী সেনারা অন্যায়ভাবে হত্যা করেছে। এই তথ্যচিত্রটি গত বছরে প্রকাশিত HRW এর একটি রিপোর্টের অনুরূপ। HRW এর ঐ রিপোর্টে জিহাদী ও সরকার উভয়ের সৈন্যবাহিনী কর্তৃক অারোও দু'ডর্জন (২৪জন) বেসামরিক নাগরিক নিহত হবার কথা বলা হয়েছে।


যদিও এই ঘটনাগুলোর সনাক্ত করণ ও ক্ষতিগ্রস্তদের একটা মোটামোটি সংখ্যা নির্ণয়ে HRW সক্ষম হয়েছে। তথাপি "উত্তর বুরকিনা ফেসো" অঞ্চলের বেশকিছু বাসাবাড়ি বা শহরগুলো থেকেও বেসামরিক নাগরিকদের অারেকটা অনুচ্চারিত সংখ্যা জোরপূর্বক নির্বাসিত হয়েছে। এর কারণ হলো, বিভিন্ন গ্রুপের সহিত মিলিটারি কর্তৃক লড়াইয়ের প্রয়াস। উদাহরণ সরূপ : ইসলাম ও মুসলমানদের সমর্থনে "অাল কায়েদা" গ্রুপ (JNIM), "অানসারুল ইসলাম" এবং বৃহত্তর সাহারান মরুভূমির "দ্যা ইসলামিক স্টেট" (ISGS)।


দলগুলোর সংবাদমাধ্যম থেকে জানাগেছে, স্থানীয় জনসাধারণের প্রতিকুলে পুরোপুরি হুমকির মুখোমুখিও হয়েছে জিহাদী সেনারা। ওখানের স্থানীয় সকল পৌত্তলিক দলগুলো লক্ষবস্তুতে পরিনত হয়েছে। একিসাথে জনশ্রুতি অনুযায়ি, একটি বেপরোয়া হত্যাকান্ড অারেকটা বিশেষ স্থানীয় গ্রুপকে লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করেছে, যারা নিজস্ব প্রতিরক্ষা বাহিনী গঠন করার ইচ্ছায় লড়াই করছিলো।


অন্যদিকে জনশ্রুতি অনুযায়ি, ফুলানি জনসাধারণকে লক্ষবস্তু বানাতে সরকারী সৈন্যবাহিনী কর্তৃক যথেস্ট প্রচেষ্টা হয়েছে। এদিকে JNIM কর্তৃক বিশদভাবে প্রতিধ্বনিত হয়েছে, ফুলানির বিপুলপরিমাণ মুসলিম জনসাধারণের প্রকৃত রক্ষাকর্তা হিসেবে নিজ প্রতিকৃতি অঙ্কনের স্বার্থে, মূলত কারা মালি ও বুরকিনা শাসকবর্গের সহিত যুদ্ধ করেছে (?) ।


HRW এর মতানুসারে, স্থানীয় দু'টি দলের মাঝে পেরেশানি বাড়ানোর জন্যই এরকম করা হয়েছে। উদাহরণ সরূপ : জিহাদীদের ঘটনা বর্ণনায় অবদান রাখতে তা সহায়ক হবে। যাতেকরে এই বাহিনীগুলো জোড়গলায় দাবি করতে পারে যে, ফুলানি হলো একটি নিপীড়িত জনসমাজ বা সম্প্রদায় এবং তাদের সুরক্ষার জন্য জিহাদীদের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে।


"বুরকিনা ফেসো" সম্পর্কিত HRW এর নিউজগুলো মূলত মধ্য মালির অবস্থার পথচিহৃ। মধ্য মালির স্থানীয় জনসাধারণের উপর, জিহাদী ও মালি সরকার কর্তৃক কতিপয় হত্যাকান্ড ও ফাঁসি বিষয়ক, একটি চমৎকার প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে বার্তা সংস্থাটি। বার্তা সংস্থাটি বলেছে, মধ্য মালির অবস্থা ক্রমান্যয়ে খারাপের দিকে যাচ্ছে এবং গতানুগতিক ঘটনাগুলো কেবলই অদূরের পাশবিক নৃশংসতার অাভাস দিচ্ছে।


একিসাথে শনিবারে এক পৌত্তলিক ডোজন সেনা কর্তৃক কমপক্ষে ১৩৪জন (একশত চৌত্রিশ) বেসামরিক ফুলানি নাগরিক নিহত হয়েছে। সেইসাথে মধ্য মালির বেসামরিক ফুলানি নাগরিকদের অারোও কতকের হত্যার পিছনে ঐ "দ্যান্না অামবাস্যাগাও" সেনাই জড়িত ছিলো। সমভাবে সাম্প্রদায়িক উৎপীড়নের অারেক দৃষ্টান্ত হলো, ইহা ডোজন জনসাধারণের উপর প্রতিশোধমুলক অাক্রমণের একটা সম্ভাব্য নেতৃত্ব দিবে। পাশাপাশি এই সম্ভাবনাও অাছে যে, নিজ কড়চাড় জন্য শনিবারের অাক্রমণকে কাজে লাগাবে JNIM ।


ইতিমধ্যে মধ্য মালির পৌত্তলিক বিবাদের গভীরে দৃঢ়ভাবে ঢুকে গেছে JNIM, ঠিকযেমন তার শাখা "অানসারুল ইসলাম" উত্তর বুরকিনা ফেসোর মধ্যে ঢুকে রয়েছে। গত বছর UN এমনকিছু দৃষ্টান্ত দিয়েছিলো, যেখানে ডোজন বা বামবারা সম্প্রদায়ের বিরোদ্ধে সাম্প্রদায়িক উৎপীড়নের সরাসারি অংশ হয়েছিলো JNIM ।


জিহাদীরা তাদের ত্রুটিপূর্ণ অবস্থা সেরে উঠতে শুরু করেছে। কারণ তারা তাদের এই চাপা উত্তেজনাকে কাজে লাগাতে জানে। উদাহরণ সরূপ : উৎপীড়ন চক্র, নিজেকে একটি স্থানীয় প্রতিরোধবাহিনী হিসেবে নিয়োগ করার মাধ্যমে জনসমর্থন তৈরি করে। নিরাপত্তা অাবহাওয়ার দুর্বলতার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে, বিপক্ষ জনসাধারণ বা সেন্ট্রাল সরকারের অাতঙ্কের বিরোদ্ধে, একটি জনসমর্থন তৈরি করতে সক্ষম জিহাদীরা। যা পালাক্রমে নতুন সৈন্য সংগ্রহ এবং বুরকিনা ফেসো ও মালির মধ্যাঞ্চলে নিজেদের ভিত্তি স্থাপনের উপর, জনসমর্থন বিস্তারেও সহায়ক। অার ঐটাও জিহাদীদের অনুমোদন দেয় ও গ্রহণযোগ্য করে তুলে। যেমন নাকি, অন্যত্র হামলা করবার জন্য অান্তঃসীমান্ত নেটওয়ার্কের সদ্ব্যবহার করে JNIM ।


কালিব উয়েজ হলেন, FDD'S "লং ওয়ার জার্নাল" এর একজন চাঁদাদাতা।


অাপনি কি FDD's "লং ওয়ার জার্নাল" এর একজন নিবেদিত পাঠক? অামাদের অনুসন্ধান, অাপনি বা অাপনার টীমকে বছরের সেরা উপকারটি দিচ্ছে কি? প্রাক্তন বা মাসিক অর্থসাহায্য দিয়ে অামাদের স্বাধীন বিবৃতি ও সাম্প্রতিক বিশ্লেষণকে সহায়তা করুন। বিবৃতিটি পড়ার জন্য অাপনাকে ধন্যবাদ। এখানে অর্থসাহায্যের সুবর্ণ সুযোগটি অাপনিও গ্রহণ করুন।


~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~ ~~
অাপনাদের নেক দো'অায় অামাকেও শরিক করবেন।
অবশ্যই রাব্বুল অালামিন তার দ্বীনকে বিজয়ী করবেন।