PDA

View Full Version : উম্মার সাত শ্রেষ্ঠ সন্তান আটক



Breaking news
12-25-2015, 12:12 AM
মিরপুরের ‘জঙ্গি আস্তানায়’ মিলল গ্রেনেড, আটক ৭


ঢাকার মিরপুরে ছয়তলা একটি ভবনে ১৪ ঘণ্টার বেশি সময় ধরে অভিযান চালিয়ে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন জামায়াতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশের (জেএমবি) ‘আস্তানা’ থেকে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক ও ‘সুইসাইড ভেস্ট’ পেয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (গণমাধ্যম) জাহাঙ্গীর আলম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, এক জেএমবি সদস্যকে গ্রেপ্তারের পর তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে শাহ আলী থানার ৯ নম্বর রোডের ‘এ’ ব্লকের ওই বাড়িতে বুধবার রাত ২টার দিকে এই অভিযান শুরু হয়।

এরপর ভবনের বাসিন্দাদের সরিয়ে নিয়ে বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টা পর্যন্ত সেখানে অভিযান ও তল্লাশি চালায় গোয়েন্দা পুলিশ, র*্যাব ও সোয়াট ইউনিটের সদস্যরা।

ভবনটির ছয় তলার একপাশের ফ্ল্যাটে তল্লাশি চালিয়ে ১৬টি ‘হাতে তৈরি গ্রেনেড’ এবং দুটি হাতবোমা পাওয়ার পর পুলিশের বোমা নিষ্ক্রিয়করণ ইউনিটের সদস্যরা উত্তর বিসিল সারেং বাড়ি মাজার সংলগ্ন একটি খালি জায়গায় বিস্ফোরণ ঘটিয়ে সেগুলো ধ্বংস করেন।

ওই বাড়ি থেকে আটক করা হয় আরও ছয়জনকে। আটক এই সাতজনের মধ্যে অন্তত তিনজন জেএমবির ‘গুরুত্বপূর্ণ’ সদস্য বলে গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলামের ভাষ্য।

বিদেশ থেকে ‘পরামর্শ ও অর্থায়নে’ সাম্প্রতিক সময়ে বিদেশি হত্যাকাণ্ডসহ বিভিন্ন নাশকতার ঘটনা ঘটিয়ে আইএস-জেএমবির নাম দেওয়া হচ্ছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এমন মন্তব্যের পর একদিন পার না হতেই খোদ রাজধানীতে এই জঙ্গি আস্তানার সন্ধান মিললো।

ঢাকার মিরপুরে বৃহস্পতিবার একটি ভবনে জেএমবির জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চালায় পুলিশ ও র্যা্ব।ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

ঢাকার মিরপুরে বৃহস্পতিবার একটি ভবনে জেএমবির জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চালিয়ে সন্দেহভাজন কয়েকজনকে আটক করা হয়, উদ্ধার করা হয় বিস্ফোরক।ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি
ঘটনাস্থলে উপস্থিত গোয়েন্দা কর্মকর্তা মনিরুল সাংবাদিকদের বলেন, হোসাইনী দালান, কামরাঙ্গীর চরসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে এর আগে যে ধরনের হাতে তৈরি গ্রেনেড উদ্ধার করা হয়েছিল, মিরপুরের বিস্ফোরকগুলোও সেরকম।

পুলিশের বোমা নিষ্ক্রিয়করণ ইউনিটের প্রধান অতিরিক্ত উপ-কমিশনার ছানোয়ার হোসেন জানান, বুধবার সন্ধ্যার পর থেকেই ওই ভবনসহ আশপাশের এলাকায় নজরদারি শুরু হয়, মূল অভিযান চালানো হয় রাত ২টা থেকে।

পাশের বাড়ির বাসিন্দা শাহিন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “রাতে এসেই নির্দেশ ছাড়া কেউ যেন বাইরে বের না হয়- তা আশপাশের সব বাড়ির মালিককে জানিয়ে দেয় পুলিশ। পুরো ৯ নম্বর রোড ব্লক করে দেওয়া হয়।”

ভবনের অন্য বাসিন্দাদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়ার পরই ছয়তলার পাশাপাশি দুটি ফ্ল্যাটে অভিযান চালানো হয় বলে মনিরুল ইসলাম জানান।

পাশের বাড়ির মালিক হাসিনা বেগম বলেন, “মধ্যরাতে হঠাৎ করে হৈ চৈ চিৎকার শুনি। আমরা শুনলাম যে পুলিশ এসেছে, কাউকে বের হতে দিচ্ছে না। সারা রাত টেনশনে ছিলাম, পুলিশ-র*্যাবের গাড়িতে এলাকা ভরে গেল।”

সকাল ১০টার দিকে ওই ভবনে ডজনখানেক বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায় এবং ষষ্ঠ তলার বাসা থেকে ধোঁয়া বের হতে দেখেন বলে জানান হাসিনা।

বৃহস্পতিবার বিকালে অভিযান শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত ভবনটির বাইরে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুল সংখ্যক সদস্যকে অবস্থান নিয়ে থাকতে দেখা যায়।

দুপুরে ওই বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে মনিরুল সাংবাদিকদের বলেন, “আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়ে ভবনের ভেতর থেকে গ্রেনেডের বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। এতে জানালার কাচ ভেঙে যায়। জবাবে পুলিশও গুলি করতে বাধ্য হয়।”

ঢাকার মিরপুরে বৃহস্পতিবার একটি ভবনে জেএমবির জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চালায় পুলিশ ও র্যা্ব।ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

ঢাকার মিরপুরের শাহ আলী এলাকায় ছয় তলা এই ভবনের একটি ফ্ল্যাট জঙ্গি আস্তানা হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছিল গত কয়েক মাস ধরে।ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি
আটকদের বয়স ২০ থেকে ৩৫ এর মধ্যে জানিয়ে তিনি বলেন, “এদের মধ্যে অন্তত তিনজন জেমএবির গুরুত্বপূর্ণ নেতা। জিজ্ঞাসাবাদ করে বাকিদের পরিচয় জানা যাবে।”

মোট ১৬টি গ্রেনেড ও দুটি হাতবোমা উদ্ধার ও ধ্বংস করার কথা জানিয়ে অভিযান শেষে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, "এখানেই বোমা তৈরি করা হতো বলে ধারণা করা হচ্ছে। এখানকার তৈরি গ্রেনেডই হোসাইনী দালানে নিয়ে হামলা চালানো হয়ে থাকতে পারে।"

সেখানে বোমা তৈরির যেসব সরঞ্জাম পাওয়া গেছে, তাতে ‘আরও অন্তত ২০০’ গ্রেনেড বানানো সম্ভব বলে মন্তব্য করেন এই গোয়েন্দা কর্মকর্তা।

উপ-কমিশনার ছানোয়ার হোসেন বলেন, ছয়তলার দুই ফ্ল্যাটের একটি থেকে বিস্ফোরকসহ দুজনকে আটক করা হয়। সেখানে রান্নাঘরে ট্রাঙ্ক ও কাপড়ে প্যাঁচানো অবস্থায় বিস্ফোরকগুলো পাওয়া যায়। আর পাশের ফ্ল্যাট থেকে আটক করা হয় বাকি চারজনকে।

বাড়ির মালিকের বরাত দিয়ে ছানোয়ার বলেন, আটকরা চারমাস আগে ছয়তলার ফ্ল্যাটটি ভাড়া নিয়ে থাকতে শুরু করে। ভাড়া নেওয়ার সময় তারা নিজেদের স্থানীয় একটি কলেজের ছাত্র হিসেবে পরিচয় দিয়েছিল।

“এরা ওই বাসায় গ্রেনেড বানানোর কাজ করত বলে প্রাথমিকভাবে আমরা ধারণা করছি,” বলেন তিনি।

অভিযান শেষে পুলিশ ওই বাসা থেকে একটি ট্রাঙ্ক, দুটি কম্পিউটার ও বিস্ফোরক তৈরির সরঞ্জাম নিয়ে যায়। এরপর প্রথম থেকে পঞ্চম তলার ভাড়াটিয়ারা নিজেদের বাসায় ফিরে যান।

তবে এরপরও পুলিশ ওই বাড়ি ঘিরে রেখেছে। সংবাদ কর্মীদেরও সেখানে ঢুকতে দেওয়া হয়নি।
লিংক>১: http://anonym.to/?http://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1076780.bdnews লিংক>২: http://anonym.to/?http://www.youtube.com/watch?v=BLRPbimMsRo

tamim rayhan
12-25-2015, 05:21 AM
ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্নাইলাইহি রাজউন।

কাল পতাকা
12-25-2015, 06:18 AM
উম্মার সাত শ্রেষ্ঠ সন্তান আটক


ভাই জিহাদের নাম নিলেই শ্রেষ্ঠ সন্তান হয়ে যায় না। আমাদের মনে রাখতে হবে খাওয়ারেজরাও এই অঞ্চলে কাজ করছে।
যদিও কুফফার খবরে বিশ্বাস করছিনা। তবে আমদেরকে ভাল বা খারাপ বলার আগে যাচাই করা উচিত।
কারন এখানে সরকার একটা জামআর নাম ব্যবহার করেছে। এখন এইখান থেকে সাপোর্ট দেয়ার অর্থ হবে তারা আমাদের সাথী। এই নাম আমাদের উপরও ব্যবহার করবে।
আর জানা মতে জেআমবিরা আল-কায়েদার কিতালের মানহাজ গ্রহন করেনি। বরং শুনা যাচ্ছে তারা খাওরেজদেরকে বায়আহ দিয়েছে।
আল্লাহ তায়ালাই ভাল জানেন।

shotter torbary
12-25-2015, 08:09 AM
কাল পতাকা ভাই সত্য বলেছেন।আশা করি বিষয়টা শুধরিয়ে নেবেন।
জাযাকাল্লাহ্*

Ahmad Faruq M
12-25-2015, 08:41 AM
উম্মার সাত শ্রেষ্ঠ সন্তান আটক

ভাই Breaking news,
এইভবে শিরোনাম দেওয়া আপনার ঠিক হয়নি। কাল পতকা ভাই আমার কথাগুলো বলেই দিয়েছেন। তাই আর রিপিট করলাম না। আশা করি বিষয়টা পরিস্কার হয়ে গেছে।

এই জমিনে সঠিক আকীদা ও মানহজের উপর ঐক্যবদ্ধ হয়ে রাসূল সাল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়া সাল্লামের রাজনৈতিক দুরদর্শিটাকে সুচারুভাবে কাজে লাগিয়ে মুসলিম উম্মাহকে যথাসম্ভব সাপোর্টে রেখে জিহাদের কাজ করা উচিত।

উম্মাহর সামনে এটা স্পষ্ট করে দেওয়া উচিত যে আমরা কেন জিহাদ করছি ? আমরা কি চাই ? যেমন মুরতাদ ব্লগারদেরকে কেন হত্যা করা হচ্ছে তা এখন মানুষের নিকট স্পষ্ট।

সাথে এই গনতন্ত্র ও মুরতাদ শাসকের মুখোশ জাতির সামনে স্পষ্ট করে তুলে ধরা উচিত দাওয়াত ও মিডিয়ার মাধ্যমে। জিহাদ শ্রেষ্ঠ ইবাদত। আর তা করতেও হবে শ্রেষ্ঠ তরিকায়। আল হামদুলিল্লাহ , কায়েদাতুল জিহাদের ভাইয়েরা এসব বিষয় মাথায় রেখেই কাজ করে যাচ্ছেন বিশ্বব্যপী। যাতে মুসলিমদেরকে এর প্রয়োজনীয়তা বুঝিয়ে তাদেরকে যথাসম্ভব সমর্থনে রেখে জিহাদ করে মুরতাদ শাসকে হটানো যায়। এবং তদস্থলে ইসলামী শরিয়ত কায়েম করা যায়। আল্লাহ তায়ালা আমাদেরকে তৌফিক দান করুন।

জাযাকাল্লাহ কাল পতাকা ভাই।

Breaking news
12-25-2015, 10:05 AM
আসসালামু আলাইকুম,সম্মানিত ভাইদের উদ্দ্যেশে বলছি আপনাদের উপদেশ আমার পথ চলায় পাথেয় হয়ে থাকবে। যাচাই বাচাই ছাড়া শিরোনামটি দেওয়া আমার ভুল হয়ে গেছে। মহান আল্লাহ প্রিয় ভাই Egol ও আমাদের সকলকে সঠিক বুঝ দান করুক। (আমিন)

Taalibul ilm
12-25-2015, 11:53 AM
আসসালামু আলাইকুম,সম্মানিত ভাইদের উদ্দ্যেশে বলছি আপনাদের উপদেশ আমার পথ চলায় পাথেয় হয়ে থাকবে। যাচাই বাচাই ছাড়া শিরোনামটি দেওয়া আমার ভুল হয়ে গেছে। মহান আল্লাহ প্রিয় ভাই Egol ও আমাদের সকলকে সঠিক বুঝ দান করুক। (আমিন)

@ব্রেকিং নিউজ ভাইঃ

আপনি নিরাশ হবেন না। ইনশাআল্লাহ সহীহ নিয়্যত থাকলে আপনি সওয়াব পেয়ে যাবেন। তবে পোষ্ট দেয়ার সময় একটু সতর্ক থাকলে ভাল হবে।

@এই ফোরামের সকল কমেন্টকারী ভাইয়েরাঃ

মনে রাখবেনঃ আমাদের সবাইকে কথা / জিহবার জন্যও বিশেষ জবাবদিহী করতে হবে। আর ডিজিটাল এই যুগে ফোরাম / ফেসবুক হচ্ছেঃ কথা বলার আরেকটা মাধ্যম। আল্লাহু আ'লাম। আর নসীহা প্রদানে বিনয়ী থাকা হচ্ছে বিশেষ একটি নববী শিক্ষা।

আল্লাহ রাব্বুল আলামীন আমাকে ও আমাদের সবাইকে তাঁর পছন্দনীয় পথে চলার তাউফিক দান করুন।

khalid bin olid
12-25-2015, 10:11 PM
এই ঘটনা থেকে আমাদের শিক্ষা নিতে হবে ,,যে নিরাপত্তা ছাড়া কোন কাজ করা উচিৎ নয় ৷
(যদিও আমরা কুফ্ফার নিউজে বিশ্বাস করিনা)

★ আল্লাহ আমাদের সব ভাইদেরকে হেফাজত করুক★

omar fruque
12-25-2015, 10:34 PM
যতসম্ভব গ্রেফ্তার অনেক আগের আর হাইলাইট করতেছে এখন যা প্রত্তেক ভায়ের ক্ষেত্রেই প্রায় একাই অবস্থা। ওল্লাহিআলাম

Abu Hamza BD
12-26-2015, 08:17 AM
as-salamu alaikum.

এই সংবাদটা পড়ে মন্তব্য না করে আর পারলাম না। যে ভাই পোস্টটা দিয়েছেন আপনাকে বলছি (যদিও আমার আগে অন্যান্য ভাইদের থেকে আপনি উত্তম নসিহা পেয়েছেন)
যে ৭ জনকে কুফফারা এরেস্ট করেছে তার মধ্যে ৪ জন আম মানুষ। একটি পত্রিকায় সংবাদটা দেখেছিলাম। লিঙ্ক রাখা হয় নি তাই দিতে পারলাম না। দ্বীনের জন্য আরও সব্ধান আরও অধিক সতর্ক হয়ে আমাদেরকে কথা বলা, পথ চলা উচিত।

ma'assalam.

আবু সাইদ
12-26-2015, 07:11 PM
এই ফোরামে খারিজীদের পক্ষপাতদুষ্ট কোন এক মোডারেট আছে। এটা ভয়ংকর বিষয়।
আইএস খারিজী, তাদের কে রাসুল মুহাম্মাদ (সাঃ) জাহান্নামের কুকুর বলেছেন। সুতরাং, জাহান্নামের কুকুর কে ঐ নামে ডাকলে সেটা কি নববী শিক্ষার বরখেলাপ হয় ??
মডারেটর @*** আশা করি উত্তর দিবেন ইনশাল্লাহ এবং Egol ভাইয়ের কমেন্টটি ডিলিট আনহাইড করে দিবেন।

titumir
12-27-2015, 11:43 AM
অাসসালামু অালাইকুম
১। এই পোস্টটি জিহাদী প্রকাশনা => চিঠি ও বার্তা থেকে উম্মাহ সংবাদ => বাংলাদেশে এ সরিয়ে দেয়া হয়েছে।
২। সকল ভাইকে অনুরোধ করব ফোরামের নিয়মগুলো অারো একবার পড়ে দেখতে।

অামরা মুসলিম ভ্রাতৃত্বে বিশ্বাসী। অার তাই অামাদের অনেক ভাই সালাফী মাজহাব বা ফিকহে বিশ্বাসী হয়েও হানাফি ফিকহের অনুসারী। অামরা অামাদের এই ফোরামে কোন ভ্রান্ত অাক্বিদা বা মানহাজের প্রচার যেমন হতে দিতে চায় না, তেমনি অামরা চাইনা মন্দ নামে ডাকা, গালি-গালাজ করা বা বিরোধি-ভিন্ন মাজহাবের (জিহাদী) ভাইদের মন্দ কথাবলে দুরে সরিয়ে দিতে।

এই ফোরাম সত্য ও কল্যানের দিকে অাহ্বানের সাথে সাথে সকলকে তার মতামত দালিল-অাদিল্লা সহকারে উপস্থাপনের সুযোগ দেয়। কোন সংষোধন থাকলে তা যথাযথ অাদবের সাথে উপস্থাপন করতে হবে।

** isis এর ব্যাপারে অামরা অামাদের মুজাহীদ অালেমদের থেকে যা জানি তা প্রচার করা যথেষ্ট। সেই বক্তব্যকে পুজিঁ করে সাধারন ভাইদের বা অামভাবে বক্তব্যকে গালি হিসেবে ব্যাবহার না করাই সবার থেকে কাম্য।

অবশ্যই অাল্লাহর রাসুল অামাদের জন্য অাদর্শ। অার উলামায়ে কেরাম অামাদের পথ-প্রদর্শক। অামরা ফিতনা বা ফিকহী কোন ব্যাপারে অাবেগ দেখাতে যেয়ে যখনই তাদের অতিক্রম করব শয়তানের জন্য রাস্তা তখনই অারো উন্মুক্ত হবে।

অাল্লাহ অামাদের সহায় হোন।
জাঝাকুমুল্লাহ।