PDA

View Full Version : পাকিস্তানে জইশ নেতা মাসুদ আজহার গ্রেপ্তার সংবাদটি কি সত্য ?



tarek
01-14-2016, 11:10 PM
পাকিস্তানে জইশ নেতা মাসুদ আজহার গ্রেপ্তার
আপডেট: ০২:৩৬, জানুয়ারি ১৪, ২০১৬ |
....প্রথম আলো....

মাসুদ আজহারজঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মুহাম্মদের নেতা মাওলানা মাসুদ আজহারকে গ্রেপ্তার করেছে পাকিস্তান। এ সংগঠনটিকেই ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যের পাঠানকোটের বিমানঘাঁটিতে সাম্প্রতিক ভয়াবহ হামলার মূল পরিকল্পনাকারী বলে মনে করা হয়। পাকিস্তানের দুই সরকারি কর্মকর্তা গতকাল বুধবার রাতে জানান, মাসুদ আজহার, তাঁর এক ভাই ও শ্যালককে গত সোমবার ইসলামাবাদ থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। তবে ভারতীয় পক্ষ থেকে রাতে বলা হয়, গণমাধ্যমে এ খবর প্রকাশিত হলেও পাকিস্তান আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানায়নি। খবর রয়টার্স ও এনডিটিভির।
ভারত বলেছিল, পাঠানকোট হামলার বিষয়ে দ্রুত উপযুক্ত ও কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের ওপরই পাকিস্তানের সঙ্গে শুক্রবারের আলোচনার ভাগ্য নির্ভরশীল। এই ধরপাকড়ের মধ্য দিয়ে ওই হামলায় জইশ-ই-মুহাম্মদের যোগসাজশের অভিযোগ পাকিস্তান কার্যত মেনে নিল বলে ভারতীয় পর্যবেক্ষকেরা মনে করছেন। পাকিস্তানের এই তৎপরতার খবর সত্যি হলে আগামীকাল শুক্রবার ইসলামাবাদে ভারত ও পাকিস্তানের পররাষ্ট্রসচিব পর্যায়ের দ্বিপক্ষীয় আলোচনার সম্ভাবনা উজ্জ্বল হলো বলেও মনে করা হচ্ছে।
গত রাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে পাকিস্তানের দুই সরকারি কর্মকর্তার বরাত দিয়ে বলা হয়, ভাই ও শ্যালকসহ মাসুদ আজহারকে দুই দিন আগে ইসলামাবাদ থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ প্রতিবেদনে পাকিস্তানের এক জ্যেষ্ঠ গোয়েন্দা কর্মকর্তাকে উদ্ধৃত করে বলা হয়, পাঠানকোট হামলায় এদের জড়িত থাকার বিষয়ে ভারতের অভিযোগ নিয়ে আমাদের তদন্ত চলা পর্যন্ত তাদের আটক রাখা হবে।
পাকিস্তানের গণমাধ্যমকে উদ্ধৃত করে ভারতের একাধিক সংবাদমাধ্যমে বলা হয়, মোট ১২ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ভারতীয় সংবাদভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, মাসুদ আজহারের সঙ্গে গ্রেপ্তার হওয়া তাঁর ভাইয়ের নাম আবদুর রউফ এবং শ্যালকের নাম আশফাক আহমেদ।
পাঠানকোটের বিমানঘাঁটিতে যে ছয়জন হামলা চালায়, আবদুর রউফ ও আশফাক আহমেদই তাদের প্রশিক্ষণ দিয়েছিলেন বলে পাকিস্তানকে বলেছিল ভারত। ওই হামলায় সাত ভারতীয় সেনা ও ছয় হামলাকারী নিহত হয়।
তবে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বিকাশ স্বরূপ স্থানীয় সময় রাত নয়টায় সংবাদমাধ্যমকে জানান, মাসুদ আজহারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, এমন খবর তাঁদেরকে আনুষ্ঠানিকভাবে নিশ্চিত করেনি পাকিস্তান।
এদিকে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ গতকাল সকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চৌধুরী নিসার আলি খান, সেনাপ্রধান জেনারেল রাহিল শরিফ ও আইএসআই-প্রধান জেনারেল রিজওয়ান আখতারসহ শীর্ষ কর্মকর্তাদের নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক করেন। পরে নওয়াজ শরিফের অফিস থেকে প্রচারিত এক বিবৃতিতে বলা হয়, প্রাথমিক তদন্ত ও ভারত থেকে পাঠানো তথ্যের ভিত্তিতে সোমবার গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিরা পাঠানকোট হামলার সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে।
ভারতের পররাষ্ট্রসচিব এস জয়শঙ্কর পাকিস্তানের সঙ্গে শুক্রবারের আলোচনা নিয়ে কথা বলতে গতকাল রাতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠকে বসেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বিকাশ স্বরূপ গতকাল বলেন, এই বৈঠকেই ঠিক হবে, শুক্রবার ইসলামাবাদে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে যোগ দিতে জয়শঙ্কর যাবেন কি না।
জইশ-ই-মুহাম্মদ ২০০১ সালে ভারতের পার্লামেন্টে সন্ত্রাসী হামলায় জড়িত বলে ভারতের অভিযোগ। ১৯৯৪ সালে ভারতের কাশ্মীরে ধরা পড়েন জইশ নেতা মাসুদ আজহার। তবে আফগানিস্তানের কান্দাহারে ১৯৯৯ সালে ভারতীয় বিমান আইসি ৮১৪ ছিনতাই করে নিয়ে গিয়ে জঙ্গিরা পণবন্দীদের বিনিময়ে মাসুদ আজহারকে ছাড়িয়ে নেয়।

omar fruque
01-14-2016, 11:23 PM
আল্লাহ তার জন্য যথেষ্ট হয়ে যাক। একে একে সব শায়েখ আমাদের ছেড়ে চলে যাচ্ছে!

Saifullah Mansoor
01-15-2016, 03:26 AM
Khobor ti Mittha