PDA

View Full Version : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকের অপরাধসমূহ



আহমাদ মুসা
04-23-2016, 09:01 PM
আসসালামু আলায়কুম

আইএস বাংলাদেশ শাখা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়য়ের এক শিক্ষককে শাতিম আখ্যায়িত করে হত্যা করেছে। সে আসলে শাতিম ছিল কিনা এবং তার বিরুদ্ধে ইসলাম অবমাননার কোন প্রমাণ আপনাদের জানা থাকলে এখানে পোস্ট করুন। যেন আমরা এ ব্যাপারে আমাদের অবস্থান সুস্পষ্ট করতে পারি।

Mujaheed of Hind
04-23-2016, 11:26 PM
তাকে হত্যা করার বিষয়ে কোন শারঈ প্রমাণ পাওয়া যায়নি । যতখানি জানা গেছে তা হল, তিনি সংস্কৃতমনা ছিলেন এবং আভাস পাওয়া গেছে নাস্তিকতার, যা হত্যাযোগ্য কোন অপরাধ নয় । তবে, তিনি যে শাতিম ছিলেন না এটা নিশ্চিত । এ বিষয়ে কোন প্রমাণ এখনো পাওয়া যায়নি ।

হত্যার বিষয়ে খারেজী আইএস দায়ভার গ্রহণ করেছে তবে তারা specific কোন কারণ দর্শায়নি । এদের কারণে মুজাহিদদের ব্যাপারে সাধারণ মুসলিমদের ধারণা খারাপ হচ্ছে । আল্লাহ্* অচিরেই এদের ধ্বংস করবেন ।

KhawarijNews
04-24-2016, 12:39 AM
বাগদাদির কুত্তাদের কি কাউকে হত্যার জন্য কারণ লাগে ??
যে কাউকে হত্যার পর ওরা ১০১ টা কারণ বানিয়ে বলে দিতে পারবে।
এই শিক্ষককে ওরা নাস্তিক বলে হত্যা করেছে কিন্তু কোন প্রমাণ দেখায় নি।
ইতিপূর্বে খারেজীরা, জাপানী নও-মুসলিমকে ক্রুসেডর দেশের নাগরিক বলে হত্যা করেছিল, কিন্তু পরে যখন জানা গেল তিনি ইসলাম গ্রহণ করেছিলেন, তখন খারেজীরা তাকে নাস্তিক বলে চালিয়ে দিয়েছিল।
এই জাহান্নামের কুকুর খারেজীদের মোরালিটি বলে কিছু নেই। আল-কায়েদা বেঁছে বেঁছে রাসুল (সাঃ)'এর কটূক্তিকারী নাস্তিকদের হত্যা করছে, তাই মানুষ আল-কায়েদা'কে সাপোর্ট দিচ্ছে এটা তারা সহ্য করতে পারছে না, তাই সাধারণ মানুষ মেরে নাস্তিক বলে চালিয়ে দিচ্ছে।
এই মিথ্যাবাদীরা কখনই সফল হবে না।

KhawarijNews
04-24-2016, 12:51 AM
খারেজীদের মূল লক্ষ্য নিউজ হেডলাইন পাওয়া, প্রমাণ করা এখানেও তাদের শাখা আছে।
আগে তারা বিদেশী নাগরিক হত্যা করে নিউজ হেডলাইন হয়েছে, তারপর ২ দিন শিয়া হত্যা করল, তারপর ২ দিন হিন্দু হত্যা করল, এখন তারা নাস্তিক নাম দিয়ে হত্যা শুরু করেছে।
বিষয়টা অনেকটা, তাদের বিভিন্ন উপায়ে মানুষ হত্যার মত, যখন তারা পাইলটকে আগুনে পুড়িয়ে মারল, সেটাকে নিউজ মিডিয়া চমক হিসাবে নিল, তারপর সেটা পুরনো হয়ে গেল, তখন তারা, কাউকে পানিতে ডুবালো, কাউকে ট্যাঙ্ক দিয়ে পিষে মারল। এগুলো সব তাদের নিউজ হেড লাইন পাবার কৌশল। যাতে তাদের মিথ্যা, ভণ্ড বাগদাদিকে কুরাইশ হিসাবে দাবি করে খিলাফতকে বিকৃত করতে পারবে।
বাংলাদেশেও এটা কেবল শুরু, আরও অনেক পদ্ধতি আসবে নিউজ হেডলাইন পাবার জন্য।
আর, এরা সব দলছুট জেএমবি সদস্য। জেএমবি'র নেতাদের ফাঁসী দেবার পর জেএমবি ৩/৪ টি দলে ভাগ হয়ে যায়। ২ বছর আগেও তারা উদ্দেশ্যহীন ছিল, কিন্তু তারপর দেখল জামাত আল-খারেজিদের সাথে তাদের আকিদা-মানহজ পুরো মিলে যাচ্ছে, তখন আর যায় কই !!! জেএমবি'র কিছু অংশ জামাত আল-খারেজীকে বাইয়াত দিন।
এদের উদ্দেশ্য এখানে ফিতনা সৃষ্টি করা, ইসলামের পবিত্র দায়িত্ব নিয়ে যে রাসুল (সাঃ) এর কটূক্তিকারীদের হত্যা চলছে, সেটাকে মুসলিমদের মধ্যে দ্বিধা সৃষ্টি করা।
এদের বিষয়ে এখন থেকেই ভাবা উচিত, তা না হলে এরা আরও সমস্যা সৃষ্টি করবে।

ibnmasud2016
04-24-2016, 01:08 AM
আমাদের একিউ ভাইয়েরা যখন কোন শাতিমকে হত্যা করে তার আগে তারা ভালোভাবে যাচাই বা্ছাই করে নেয় যাতে কোন হারাম রক্ত না ঝড়ে। আর হত্যার সাথে সাথে তার কারন সমূহ প্রমান সহ বর্ননা করেন। তাই আজ পর্যন্ত কেউ (প্রকৃত মুসলমানেরা) আমাদেরকে শাতিম হত্যার ব্যপারে কোন প্রকার আপত্তি তুলতে পারেনি। যেমন শার্লি হেবদো, বাংলাদেশের বিভিন্ন শাতিমদেরকে। কিন্তু দায়েশের লোকেরা এই পর্যন্ত বাংলাদেশে এবং বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে হাজার হাজার মানুষের হারাম রক্ত ঝড়িয়েছে তার কোন জায়েজ কারন দেখাতে পারবে? কিছুতেই তারা পারবে না। যদি তারা পারে তাহলে প্রমান দেখাক কোন কারনে তারা আবু খালিদ আস-সুুরিকে হত্যা করেছে? কোন কারনে তারা আফগানিস্তানের বৃদ্ব লোকগুলোকে হত্যা করেছে? কোন কারনে তারা বাংলাদেশের জাপানি মুসলিম নাগরিককে হত্যা করেছে? কোন কারনে তারা গতকাল রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষককে হত্যা করেছে? যদি তারা একিউ ভাইদের মত তাদের হত্যাযোগ্য অপরাধের প্রমান আনতে পারেন তাহলে আমি দায়েশকে হক্ব বলে মেনে নিব। আর যদি না পারে তাহলে আমি বলব তারা বাতিল বাতিল বাতিল। এটা তাদের প্রতি আমার ওপেন চ্যলেঞ্জ।

info
04-24-2016, 06:49 AM
#নাস্তিক_নিধন
নাস্তিকরা এমনিতেই হত্যার যোগ্য। তার পরও এদেশের কিছু জনসমর্থন-পিয়াসী লোক নাস্তিককে হত্যার কারণ জিজ্ঞাসা করে। তাই তাদের উদ্দেশ্যে এখানে তার কিছু উক্তি তুলে ধরা হলোঃ

যুগ যুগ ধরে নির্বিঘ্নে নাস্তিকতা প্রচার করতো এই নাস্তিক প্রফেসর রেজাউল করিম সিদ্দিকী। তার অসংখ্য ইসলাম বিরোধী ও রাসূল(সাঃ) কে কটূক্তিমূলক উক্তি থেকে কিছু তুলে ধরা হলো যেগুলো সে তার ছাত্র,ভক্ত, অনুসারী ও শুভানুধ্যায়ীদেরকে প্রায়ই বলতো এবং ইসলামের প্রতি মানুষের সহানুভূতিতে আঘাত হানতো।

আল্লাহ তা'আলা সম্পর্কে এক প্রশ্নের উত্তরে সে বলে, "আমি নিশ্চিত নই সে(আল্লাহ) আছে কিনা"
সে রাসূল (সাঃ) এর চরিত্র নিয়ে বলতো, "সেই মানুষ কি করে জিনার শাস্তি দিতে পারে যে কিনা ১৪ টি মহিলাকে বিয়ে করেছিল?"
হিজাব সম্পর্কে সে বলতো, "মহিলাদের যদি বোরখা পরতে হয় তাহলে পুরুষদেরকেও পরতে হবে কারণ মহিলাদেরও কামনা আছে"
দান করা সম্পর্কে সে বলতো, "আমি এজন্য মানুষকে দান করি না যে আমার নামে জান্নাতে ঘর হবে বরং যাকে দান করলাম সে যেন কিছু খেতে পায়"
মুসলিমদের অধিক সন্তান নেওয়ার ব্যাপারে সে বলতো, "ধর্মীয় গোঁড়ামির কারণে দেশের জনসংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে, এটা মোল্লাদের কারসাজি"।
গান-বাজনা সম্পর্কে সে বলতো, "কে বলেছে গান বাজনা হারাম, এটা কোরআনের কোথাও নেই"

এছাড়াও আরও অসংখ্য উক্তি সে প্রতিনিয়ত প্রচার করতো যেগুলো দুর্বল ঈমানের অধিকারীদের আল্লাহ, আল্লাহর রাসূল(সাঃ) সম্পর্কে ভ্রান্ত ধারণার উদ্রেক করে এবং অনেকে ঈমান হারিয়ে নাস্তিকে পরিণত হয়। উল্লেখ্য যে, সে অনলাইনের ব্যাপারে অজ্ঞ হওয়ায় সেখানে কিছু প্রচার করতো না তবে যারা বিভিন্ন সংস্কৃতিমনা(মুক্তচিন্তা) ব্লগে লেখালেখি করে তাদের উৎসাহ দিত।

আল্লাহর অশেষ অনুগ্রহে বাংলার জমীনের কিছু আই এস মুজাহিদিন তাকে হত্যা করে জাহান্নামে পাঠাতে সক্ষম হন। আল্লাহ তাঁদেরকে কবুল করুন এবং যারা নাস্তিক ও ইসলাম বিদ্বেষী আছে তারা যেন এটা থেকে শিক্ষা গ্রহণ করে। আল্লাহ যেন মুমিনদের অন্তরে প্রশান্তি নাজিল করেন।
আর আল্লাহ তা'আলা তাঁর নিজ কাজে প্রবল ক্ষমতাশীল। যদিও অধিকাংশ লোকই তা জানে না।

আবু মুহাম্মাদ
04-24-2016, 07:12 AM
প্রমান চাই যে সত্যই সে এগুলো বলেছিল নাকি আপনারা তার নামে বানিয়ে বলছেন .........

shameli
04-24-2016, 07:43 AM
প্রমান চাই...............................

Tahmid
04-24-2016, 02:40 PM
ভাইকে বলব আপনি যে কথা বলেছেন তার সঠিক প্রমান দেন। আর আপনার কথা বিশ্বাস করা জাবে না।

আহমাদ মুসা
04-24-2016, 04:25 PM
#নাস্তিক_নিধন
নাস্তিকরা এমনিতেই হত্যার যোগ্য। তার পরও এদেশের কিছু জনসমর্থন-পিয়াসী লোক নাস্তিককে হত্যার কারণ জিজ্ঞাসা করে।

নাস্তিক হত্যার বিধান এক, আর শাতিমে রাসূল হত্যার বিধান আরেক। শাতিম হত্যার জন্য কোন বিচারের দরকার পরে না বা কোন খিলাফাহও শর্ত না কিন্তু একজন ব্যাক্তিগত জীবনে নাস্তিককে হত্যা করতে অবশ্যই শরিয়াহ আইনে বিচার হতে হবে। যদি বিচার ছারাই যে কেউ নাস্তিক হত্যা করতে পারে তবে যে কেউ ব্যক্তিগত আক্রোশে কাউকে হত্যা করে নাস্তিক বলে চালিয়ে দিবে।

আপনি যে প্রমাণ দিয়েছেন সেগুলোর সুত্র কি? আর কথা গুলো কি ক্লাসে বলেছে নাকি অন্য কোন সাংস্কৃতিক সমাবেসে?

দাইশের অতীত ট্র্যাক রেকর্ডের কারনে তাদের কোন কথা সুস্পষ্ট প্রমাণ ছাড়া বিশ্বাস করা যাবে না। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েছেন বা ঐ এলাকাতে যারা থাকেন তাদের প্রতি বিনীত নিবেদন আপনারা ব্যাক্তিগত যোগাযোগের মাধ্যমে খোজ খবর নেওয়ার চেষ্টা করুন আসলে নিহত ব্যাক্তি ক্লাসে নাস্তিকতা প্রচার করত কিনা।

shameli
04-24-2016, 04:35 PM
নাস্তিক হত্যার বিধান এক, আর শাতিমে রাসূল হত্যার বিধান আরেক। শাতিম হত্যার জন্য কোন বিচারের দরকার পরে না বা কোন খিলাফাহও শর্ত না কিন্তু একজন ব্যাক্তিগত জীবনে নাস্তিককে হত্যা করতে অবশ্যই শরিয়াহ আইনে বিচার হতে হবে। যদি বিচার ছারাই যে কেউ নাস্তিক হত্যা করতে পারে তবে যে কেউ ব্যক্তিগত আক্রোশে কাউকে হত্যা করে নাস্তিক বলে চালিয়ে দিবে।

আপনি যে প্রমাণ দিয়েছেন সেগুলোর সুত্র কি? আর কথা গুলো কি ক্লাসে বলেছে নাকি অন্য কোন সাংস্কৃতিক সমাবেসে?

দাইশের অতীত ট্র্যাক রেকর্ডের কারনে তাদের কোন কথা সুস্পষ্ট প্রমাণ ছাড়া বিশ্বাস করা যাবে না। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েছেন বা ঐ এলাকাতে যারা থাকেন তাদের প্রতি বিনীত নিবেদন আপনারা ব্যাক্তিগত যোগাযোগের মাধ্যমে খোজ খবর নেওয়ার চেষ্টা করুন আসলে নিহত ব্যাক্তি ক্লাসে নাস্তিকতা প্রচার করত কিনা।

সহমত.......

tore111
04-24-2016, 10:01 PM
দাওলাতুল যুক্তিবাদীর ফ্যানবয়দের দলিল হচ্ছে যুক্তি। এরা মানুষকে জিহাদ বিমুখ করতে উস্তাদ।

KhawarijNews
04-25-2016, 08:42 AM
যেখানে দাউলাতুল খারেজী শাম ও ইরাকের নিরীহ আলেম-ওলামা, মুজাহিদীনদের বিনা কারণে হত্যা করছে, সেখানে আম-জনতা হত্যা করা তাদের কাছে ডাল-ভাত।
তারা হত্যার আগে নয়, হত্যার পরেও ১০০ টা মিথ্যা কারণ বানাতে পারে। তাদের তাকফিরের আওতায় তারা নিজেরাই চলে আসে।

দাউলাতুল খারেজীরা, রেজাউল করিমকে হত্যার পেছনে ১ টিও সুস্পষ্ট কারণ দেখাতে পারে নি।
অন্যদিকে, রেজাউল করিম সম্পর্কে সাধারণ মানুষ যা বলেছে তা হলঃ-


নিহত শিক্ষকের চাচাতো বোন স্কুলশিক্ষক জাহানারা বেগম বলেন, রেজাউল করিম গ্রামে এসে বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগ দিতেন। মসজিদ-মাদ্রাসায় দানও করতেন। ধর্মের বিরুদ্ধে কোনো বক্তব্যও দেননি।
রেজাউল করিমের গ্রামের বাড়ির প্রতিবেশী কলেজশিক্ষক জহুরুল হক বলেন, ধর্মের প্রতি কখনো বিদ্বেষমূলক কোনো মনোভাব তাঁরা লক্ষ করেননি। তিনি দরগামাড়িয়ার বহু বছরের ইসলামি তাফসির কোরআন মাহফিলের সহসভাপতি ছিলেন, আবার কোনো বছর পৃষ্ঠপোষকের দায়িত্ব পালন করেন। এমনকি দানও করেছেন।
রেজাউল করিমের সঙ্গে দীর্ঘ ৪২ বছরের পরিচয় ইংরেজি বিভাগেরই আরেক অধ্যাপক জহুরুল ইসলামের। কলেজজীবন থেকে তাঁরা একসঙ্গে আছেন। প্রথম আলোকে তিনি বলেন, রেজাউল মূলত কবিতা পড়াতেন। গান করা, সেতার বাজানো, ভিডিওগ্রাফি ও খেলাধুলার প্রতি রেজাউলের খুব আকর্ষণ ছিল। ধর্ম বা ধর্মীয় বিশ্বাস নিয়ে তিনি কখনো কোনো মন্তব্য করেননি।

omair
04-25-2016, 12:33 PM
ভাই প্রমান চাই।
দায়েশের অধিকাংশই মিথ্যাবাদি। তারা যদি নিজেরা নিজেদের ভাইদের কে ইয়া আদুওয়াল্লাহ বলে গুলি করে মিথ্যা ভিডিও ভানিয়ে প্রচার করতে পারে।

salahuddin aiubi
04-25-2016, 09:49 PM
প্রমাণ ছাড়া এক গাঠ্ঠি কথা! লাভ কি? সবাই প্রমাণ চেয়েছে। আপনি প্রমাণ দিন।
আশ্চর্য! কেমন ইসলাম দরদি? নিজেদের সামান্য সুনামের জন্য সমস্ত মুজাহিদদের বদনাম ও ক্ষতি করা হয়। গোটা ইসলামের জনপ্রিয়তা নষ্ট করা হয়।