PDA

View Full Version : সমকামীদের সাময়িকী রূপবানের সম্পাদক 'আউট'



আহমাদ মুসা
04-25-2016, 09:11 PM
ঢাকার কলাবাগানে দুজনকে কুপিয়ে হত্যা।

রাজধানীর কলাবাগানের লেক সার্কাসের ওই বাড়িতে সোমবার বিকালে হানা দিয়েছিল ওই যুবকরা, যারা খুন করে আল্লাহু আকবার বলতে বলতে চলে যায় বলে প্রত্যক্ষদর্শী একজনের বর্ণনায় উঠে এসেছে।

ঘরে ঢুকে জুলহাজ ও তার এক বন্ধুকে কুপিয়ে হত্যা করা হলেও হামলাকারীদের হাতে আগ্নেয়াস্ত্রও ছিল বলে ওই বাড়ির দারোয়ান জানিয়েছেন।

রাজশাহীতে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক খুনের দুদিনের মধ্যে ঢাকায় ঘরের মধ্যে হত্যাকাণ্ডের শিকার ইউএসএআইডির কর্মকর্তা জুলহাজ সমকামীদের অধিকার আদায়ে সোচ্চার ছিলেন।

লেক সার্কাসের ছয়তলা ওই ভবনের দোতলার ফ্ল্যাটে জুলহাজ তার মা ও এক গৃহকর্মীকে নিয়ে থাকতেন বলে ভবনের বাসিন্দারা জানিয়েছেন।

দুর্বৃত্তদের হামলায় আহত হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি দারোয়ান পারভেজ মোল্লা সাংবাদিকদের বলেন, বিকাল ৫টার দিকে তিন যুবক পার্সেল দেওয়ার কথা বলে জুলহাজ মান্নানের ফ্ল্যাটে যেতে চান।

তাদের ঢুকতে দিলেও পেছন পেছন দোতলায় ওঠেন পারভেজও।

দরজা নক করলে জুলহাজ স্যার দরজা খোলেন। তাদের দেখে আবারও দরজা বন্ধ করে দেওয়ার চেষ্টা করেন। তখন তারা বাসায় জোর করে ঢুকতে চায়।

আমি তাদের বলি, স্যার যেহেতু ঢুকতে দিতে চান না, আপনারা চলে যান। এ কথা বলার পরই আমাকে আঘাত করে।

পারভেজ লুটিয়ে পড়লে ওই যুবকরা জোর করে ঘরে ঢুকে জুলহাজ ও তার সঙ্গে থাকা অন্যজনকে (তনয়) কোপাতে থাকে বলে জানান দারোয়ান পারভেজ।

ওই সময়ে আমি চিৎকার করি, স্যারও চিৎকার করতে থাকেন। ওই সময় বাসার নিচে কয়েক রাউন্ড গুলির আওয়াজও পাই। হুলুস্থুল পরিস্থিতিতে কখন তিনজন বাসা থেকে বের হয়ে যায়, বুঝতে পারিনি।

কপালের বাম পাশে জখম হওয়া পারভেজকে আরেক দারোয়ান সুমন ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে যান।

ঘটনার পরপরই জুলহাজের ঘরে ঢুকে দেখে আসা ওই ভবনের এক বাসিন্দা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, বাসায় ঢুকে দেখি বেডরুমে একজন ও দরজার কোনায় একজন মাটিতে পড়ে আছে।

খুনিদের পালিয়ে যেতে দেখেছেন, এমন এক নারী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ৫/৭ জন যুবক ওই বাসা থেকে বের হয়েছিল। তাদেরকে কয়েকজন ধাওয়াও করেছিল।

তারা আল্লাহু আকবর বলতে বলতে তেতুলতলা মাঠ দিয়ে দৌড়ে পালিয়ে যায়।

ওই যুবকদের অন্তত চারজনের হাতে আগ্নেয়াস্ত্র দেখেছেন জানিয়ে এই নারী বলেন, তারা ওই বাসা থেকে বের হওয়ার পর কয়েক বার গুলির ছুড়েছিল।

হামলাকারী যুবকরা টি শার্ট ও জিন্সের প্যান্ট পরিহিত ছিল বলে জানান এই প্রত্যক্ষদর্শী। তাদের কাঁধে ল্যাপটপের ব্যাগ দেখেছেন বলেও জানান তিনি।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বর্ণনায় অস্ত্র হাতে দেখার কথা উঠে এলেও চাপাতি দেখার কথা আসেনি। এর আগে এই ধরনের কয়েকটি হত্যাকাণ্ডের ক্ষেত্রে হামলাকারীদের ব্যাগে অস্ত্র বহনের কথা জানিয়েছিল পুলিশ।

ঘটনাস্থলে থাকা পিবিআইয়ের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, পাঁচজনের একটি দল ওই বাসায় ঢুকেছিল। তারা দুজনকে কুপিয়ে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

পালানোর সময় দুর্বৃত্তদের বাধা দিতে গিয়ে মমতাজ নামে এক এএসআই আহত হন বলে ডিএমপির জ্যেষ্ঠ সহকারী কমিশনার শিবলী নোমান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানিয়েছেন।

এএসআই মমতাজ হামলাকারীদের একজনের কাছ থেকে একটি ব্যাগ ছিনিয়ে রাখেন বলে শিবলী নোমান জানিয়েছেন। ব্যাগে কী পাওয়া গেছে, সে বিষয়ে কিছু বলেননি তিনি।

সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনির খালাত ভাই জুলহাজ লিঙ্গ সমতা প্রতিষ্ঠার পক্ষে রূপবান নামে একটি সাময়িকী সম্পাদনায় যুক্ত ছিলেন।

তার সঙ্গে নিহত ব্যক্তির নাম তনয় বলে জানিয়েছেন ডিএমপির সহকারী কমিশনার রুহুল আমিন সাগর।তিনি জুলহাজের বন্ধু বলে ধারণা করা হচ্ছে।


সুত্রঃ http://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1142178.bdnews

আবু মুহাম্মাদ
04-25-2016, 09:34 PM
আল্লাহু আকবর, না জেনেও বলে দেয়া যায় যে এটা আনসারুল ইসলামেরই মুবারক হামলা হবে।

umar mukhtar
04-25-2016, 09:38 PM
আল্লাহু আকবর, না জেনেও বলে দেয়া যায় যে এটা আনসারুল ইসলামেরই মুবারক হামলা হবে।

তবে আমি বেশি আনন্দিত হব, যদি উম্মাহর জাগ্রত সাধারন কোন যুবক দল হয়ে থাকে। এতেই বুঝা যাবে "ইজা আরাদাল্লাহু শাইয়ান হায়্যায়া লাহু আসবাবাহু" মূলনীতি হিসেবে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি।

umar mukhtar
04-25-2016, 10:15 PM
আছাদুজ্জামান মিয়া আরও বলেন, এ সময় এএসআই মুমতাজ তাদের ঝাপটে ধরলে তারা তাকে কোপায়। এ সময় তিনি সন্ত্রাসীদের মধ্যে একজনের ব্যাগ ও মোবাইল রেখে দেন।
ডিএমপি কমিশনার বলেন, পুলিশ তদন্ত করছে। আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে।

এটা তো পেরেশানি সৃষ্টিকারী একটি বিষয়। আল্লাহ হেফাজত করুন।আমিন।