PDA

View Full Version : টাঙ্গাইলে একটি উইকেট পড়ার ঘ্রাণ পাচ্ছি!



Egol
04-30-2016, 03:21 PM
গোপালপুরে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা
টাঙ্গাইল: টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলায় নিখিল জোয়াদ্দার (৫০) নামে এক ব্যবসায়ীকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

শনিবার (৩০ এপ্রিল) দুপুর সাড়ে ১২টায় উপজেলার ডুবাইল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত নিখিল ওই গ্রামের নলিন জোয়াদ্দারের ছেলে।

টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গোপালপুর সার্কেল) আসলাম খান বাংলানিউজকে জানান, দুপুরে নিখিল তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান টেইলার্সে বসেছিলেন। এ সময় মোটরসাইকেলে করে দুইজন লোক এসে অতর্কিতে তাকে চাপাতি দিয়ে কোপাতে শুরু করেন। এতে ঘটনাস্থলেই নিখিলের মৃত্যু হয়।

পরে ঘটনাস্থলে পড়ে থাকা একটি ব্যাগ থেকে ৩/৪টি বোমা সদৃশ বস্তু উদ্ধার করা হয়।

গোপালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আ. জলিল বাংলানিউজকে জানান, সম্প্রতি নবীকে নিয়ে কটূক্তি করায় নিখিলের বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়েছিল। এ কারণেও এ হত্যাকাণ্ড ঘটতে পারে।

নিউজ লিংকঃ http://www.banglanews24.com/national/news/485406/%E0%A6%97%E0%A7%8B%E0%A6%AA%E0%A6%BE%E0%A6%B2%E0%A 6%AA%E0%A7%81%E0%A6%B0%E0%A7%87-%E0%A6%AC%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%AC%E0%A6%B8%E0%A 6%BE%E0%A7%9F%E0%A7%80%E0%A6%95%E0%A7%87-%E0%A6%95%E0%A7%81%E0%A6%AA%E0%A6%BF%E0%A7%9F%E0%A 7%87-%E0%A6%B9%E0%A6%A4%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE

shameli
04-30-2016, 03:31 PM
ভাই ভালভাবে যাচাই করুন এটা কে করেছে।

Jihadi
04-30-2016, 09:33 PM
যদি আসলেই এই লোক শাতিমে রাসুল হয়ে থাকে, তাহলে যেই কাজটা করুক, ভাল করেছেন।

এমনকি দায়েশ করলেও, এই ক্ষেত্রে আমরা তাদেরকে সাপোর্ট করবো। (যদি আসলেই শাতিমে রাসুল হয়ে থাকে) শাইখ জাওয়াহিরি (হাফিজাহুল্লাহ)ও এমনটাই বলেছেন। (ইসলামিক বসন্ত ১ম পর্বে)

আবুল ফিদা
04-30-2016, 09:45 PM
যদি আসলেই এই লোক শাতিমে রাসুল হয়ে থাকে, তাহলে যেই কাজটা করুক, ভাল করেছেন।

এমনকি দায়েশ করলেও, এই ক্ষেত্রে আমরা তাদেরকে সাপোর্ট করবো। (যদি আসলেই শাতিমে রাসুল হয়ে থাকে) শাইখ জাওয়াহিরি (হাফিজাহুল্লাহ)ও এমনটাই বলেছেন। (ইসলামিক বসন্ত ১ম পর্বে)

ঠিক!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!

Al-Fares
05-01-2016, 12:29 AM
জাযাকাল্লাহ, আবুল ফিদা### আপনি ঠিক বলেছেন, আমরা আই, এর বিরোধিতা্ এজন্য করি যে, তারা মুজাহিদদের তাকফির করে ও মুজাহিদদের বিরুদ্বে যুদ্বে লিপ্ত হয়।
কিন্তু আমরা আই এস এর বিরোধিতা এজন্য করি না যে, তারা কুফফারদের বিরুদ্বে যুদ্ব করে।

tariq
05-01-2016, 12:33 AM
টাঙ্গাইলে ‘ইসলাম নিয়ে কটূক্তিকারী’ হিন্দু ব্যবসায়ীকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা

টাঙ্গাইলের গোপালপুরে নিখিল চন্দ্র জোয়ারদার (৫০) নামের এক দরজিকে দোকান থেকে টেনে বের করে কুপিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। আজ শনিবার দুপুরে গোপালপুর পৌর এলাকার ডুবাইল বাজারে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, নিজের দোকানে কাজ করছিলেন দরজি নিখিল চন্দ্র। দুপুর ১২টার দিকে আচমকা মোটরসাইকেলে করে তিন যুবক এসে হাজির। নিখিলকে তারা দোকান থেকে টেনে বের করে চাপাতি দিয়ে কোপাতে শুরু করে এবং তাঁর মৃত্যু নিশ্চিত করে পালিয়ে যায় তারা।

এলাকাবাসীর ধারণা, এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জঙ্গিগোষ্ঠী জড়িত থাকতে পারে।

গোপালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল জলিল ও এলাকাবাসী জানান, দুপুর ১২টার দিকে নিখিল চন্দ্র ডুবাইল বাজারে নিজ বাড়ির সামনে তার দোকানে কাজ করছিলেন। এ সময় একটি মোটরসাইকেলে করে তিনজন যুবক এসে তাকে দোকান থেকে টেনে বের করে এলোপাতাড়ি কোপাতে শুরু করে। মাথা ও গলায় কুপিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে হামলাকারীরা সুতী কালিবাড়ী সড়ক দিয়ে মোটরসাইকেল নিয়ে পালিয়ে যায়। এ সময় তারা ঘটনাস্থলে একটি ব্যাগ ফেলে যায়। ব্যাগের ভেতর কয়েকটি ককটেলসদৃশ বস্তু রয়েছে।

খবর পেয়ে গোপালপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। ঘটনাস্থলে একটি কালো রঙের একটি ব্যাগ পড়ে থাকতে দেখা যায়। তাতে ৩-৪টি বোমার সাদৃশ্য বস্তু রয়েছে। বোমা বিশেষজ্ঞদের খবর দেয়া হয়েছে। তারা আসলেই সেগুলো নিষ্ক্রিয় করা হবে।

নিহত নিখিল সম্প্রতি হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর বিরুদ্ধে কটূক্তি করায় তার বিরুদ্ধে গোপালপুর থানায় একটি মামলাও হয়েছিল। এ কারণেই হয়ত এই হত্যাকাণ্ড হতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে বলে জানান ওসি আ. জলিল।

টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর জানান, কারা, কী উদ্দেশে এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে, পুলিশ তা খতিয়ে দেখছে।

উৎসঃ শীর্ষ নিউজ
-------------------------------------------------------------------
ঢাকার কলাবাগানে জুলহাজ-তনয় খুনের ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই শনিবার আবারও একই কায়দায় টাঙ্গাইলের গোপালপুর পৌরসভার পাকুটিয়া-সূতিকালিবাড়ি সড়কের ডুবাইল মাদ্রাসার পাশেই নিজ দোকানের সামনে নির্মম ভাবে খুন হন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের দর্জি নিখিল জোয়ারদার।

নিখিল জোয়ারদারের হত্যার ধরন ও হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত দেশীয় অস্ত্রের সাথে ঢাকার কলাবাগানের জোড়া খুনসহ ব্লগার হত্যাকাণ্ডের সাথে মিল রয়েছে বলে দাবি করেছে স্থানীয়রা।

এ ঘটনার পরপরই স্থানীয়দের মাঝে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে, প্রকাশ্য দিবালোকের এ খুনিরা কি উগ্রপন্থি? তবে এ বিষয়ে এখনি কিছু জানাননি পুলিশ। তারা বলছেন দুটি বিষয়কে সামনে রেখে তদন্ত কাজ চলছে। তদন্ত করেই বিস্তারিত জানানো যাবে।

তবে এ ঘটনায় জেলার পুলিশ প্রশাসন নড়েচড়ে বসেছে। সেই সাথে ঘটনার সাথে জঙ্গিসম্পৃক্ততা আছে কিনা বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন পুলিশ সুপার সালেহ মোহাম্মদ তানভির।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঘটনার সময় নিখিল দর্জি বাড়ির নিকটস্থ তিথি তীর্থ বস্ত্রালয় এন্ড টেইলার্স দোকানে বসে পোশাক নির্মাণের কাজ করছিলেন। এ সময়ে পূর্বদিক থেকে মোটর সাইকেল নিয়ে আনুমানিক ২০/২২ বছর বয়সের তিন যুবক দোকানের সামনে থামে। এর মধ্যে চালকের মাথায় ছিল হেলমেট পড়া। যুবকদের একজন মোটর সাইকেল থেকে নেমে নিখিলকে দোকান থেকে ডেকে বের করে। কাছাকাছি আসা মাত্র মোটরসাইকেল আরোহী অপর দুই যুবক ব্যাগ থেকে ছুরিচাকু বের করে তাকে নির্বিচারে কোপাতে থাকে। যুবকরা তার বুকে, ঘাড়ে ও মাথায় ৭/৮টি কোপ দেয়। মৃত্যু নিশ্চিত করে মোটরসাইকেলে করে উপজেলার সূতিকালিবাড়ির দিকে চলে যায়।

এসময় ঘাতকরা একটি ব্যাগে ৪/৫টি ককটেল রেখে যায়।

স্থানীয়রা দাবি করেন, ঢাকার কলাবাগানে জোড়া খুন ও ব্লগার হত্যাকান্ডের সাথে এই খুনের মিল রয়েছে। কারণ হিসেবে তারা প্রতিটি হত্যাকান্ডেই একই ধরনের অস্ত্র ব্যবহার করা হয়েছে বলে দাবি করেন। এছাড়া অন্যান্য কিলিং মিশনের মত এ খুনের ঘাতকরা চোখের পলকে এ হত্যাকান্ড ঘটিয়ে পালিয়ে যায় বলেও তারা জানান।

নিহত নিখিল জোয়ার্দারের বিরুদ্ধে মহানবী (সাঃ) কে নিয়ে কটুক্তি করার অভিযোগ ছিল।

ধর্ম অবমাননার দায়ে করা ওই মামলার বাদি দৈনিক ইনকিলাবের গোপালপুর সংবাদদাতা এবং আলমনগর মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা ্আমিনুল ইসলাম জানান, নিখিল অনুতাপ প্রকাশ করায় এবং ডুবাইল গ্রামের কয়েকজন মুরুব্বীর অনুরোধে তিনি ছয় মাস আগে আদালত থেকে মামলা তুলে নেন।

গোপালপুর থানার ওসি জানান, উগ্রপন্থিদের দ্বারাই নিখিল খুন হয়েছে তা নিশ্চিত করে এখনি বলা সম্ভব নয়। তবে তার ভাতিজি স্বর্ণাকে দুই বছর আগে ঢাকা থেকে ডিভোর্স করে আনার পর স্বর্ণার স্বামী রুদ্র নিখিলের পরিবারের সকলকেই প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছিল। তদন্তে উগ্রপন্থি ছাড়াও এ বিষয়টিকেও মাথায় রাখা হয়েছে।

গোপালপুর সার্কেলের এএসপি জমিরউদ্দীন জানান, জঙ্গী হামলা কিনা এখনই নিশ্চিত বলা যাচ্ছেনা। আরো পরে বলা যাবে। ঘটনাস্থলে কয়েকটি ককটেল পাওয়া গেছে বলে জানান তিনি।

উৎসঃ পূর্বপশ্চিমবিডি

akash2016
05-01-2016, 08:46 PM
vai amar mone hocche ei kajta ansar al islamer vaiera koreche aponara ki bolen?

আবুল ফিদা
05-01-2016, 09:03 PM
vai amar mone hocche ei kajta ansar al islamer vaiera koreche aponara ki bolen?
ভাই আমাদের আনসার এর ভাইরা এর দায় স্বিকার করেনি বরং দাইশ করেছে,