PDA

View Full Version : জঙ্গিদের আবার কিসের মানবাধিকার: আইজিপি শহীদুল হক



ABU SALAMAH
09-04-2016, 10:04 PM
পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহীদুল হক বলেছেন, অনেকে জঙ্গিদের মানবাধিকারের কথা বলেন; জঙ্গিদের আবার কীসের মানবাধিকার? আগে দেশকে বাঁচাতে হবে, জনগণকে বাঁচাতে হবে। সব বিষয়ে বিরোধিতা করলে হবে না।

আজ শনিবার সকালে রাজশাহী মহানগর পুলিশের ২৪ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত জঙ্গিবাদবিরোধী মহাসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইজিপি এ কথা বলেন। রাজশাহী পুলিশ লাইনস মাঠে এ মহাসমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

আইজিপি শহীদুল হক বলেন, যারা পুলিশের সাফল্য সম্পর্কে বিতর্কিত মন্তব্য করছেন, তাদের সুবুদ্ধির উদয় হোক। আমাদের পুলিশের সাফল্য পৃথিবীতে রোল মডেল হিসেবে নেওয়া যেতে পারে বলে আমি মনে করি।

জঙ্গিরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে ধরা দিতে চায় না উল্লেখ করে পুলিশ মহাপরিদর্শক বলেন, জঙ্গিদের গ্রেপ্তার করা সহজ বিষয় না। তারা আত্মঘাতী, তারা মেন্টালি মৃত্যুর জন্য প্রস্তুত থাকে। তারা নিজেরা বলে, আমরা মরব, জান্নাতে যাব। যাদের মারব, তারা জাহান্নামে যাবে। ওর (জঙ্গি) কাছে বোমা আছে, ওর আগ্নেয়াস্ত্র আছে, ধারালো অস্ত্র আছে, তাকে আদর দিয়ে তো গ্রেপ্তার করা যায় না। কল্যাণপুর ও নারায়ণগঞ্জে আমরা জঙ্গিদের অনেক সময় দিয়েছি। কিন্তু তারা আত্মসমর্পণ করেনি। উল্টো পুলিশকে বোমা মেরেছে, গুলি করেছে।

সমাবেশে বিপথগামী তরুণদের জঙ্গিবাদের পথ থেকে ফিরে আসার আহ্বান জানান পুলিশের মহাপরিদর্শক। তিনি বলেন, পাড়ায়-মহল্লায় জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়তে হবে। প্রত্যেকটা এলাকায়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আপনারা চোখ কান খোলা রাখবেন, কার কথায়, কার চলাফেলায় জঙ্গিবাদী আচরণ লক্ষ্য করা যায়, যদি পারেন আপনারা তাদের সঠিক পথে আনবেন, না হয় আইনশৃঙ্খলাবাহিনীকে জানাবেন।

রাজশাহী মহানগর পুলিশ কমিশনার মো. শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার আবদুল হান্নান, পুলিশের রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি খোরশেদ হোসেন, রাজশাহী জেলা প্রশাসক কাজী আশরাফ উদ্দিন, র*্যাব-৫ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল মাহবুব আলম, রাজশাহীর বিজিবি ব্যাটালিয়ন-১ এর পরিচালক লে. কর্নেল শাহাজাহান সিরাজ, রাজশাহী মহানগর কমিউনিটি পুলিশিংয়ের আহ্বায়ক অধ্যাপক আব্দুল খালেক, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন প্রমুখ।

http://www.news-bd.net/newsdetail/detail/31/240586

ABU SALAMAH
09-04-2016, 10:06 PM
জঙ্গিদের মরদেহ পরিবারও নিচ্ছে না উল্লেখ করে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন বলেছেন, তাদের মরদেহ মর্গে পড়ে আছে। মানুষ তাদের জানাজায়ও অংশ নেয় না। এমনকি তাদের মরদেহ কুকুরও খাবে না। কুকুর খেতে গিয়ে বলবে, জঙ্গি গন্ধ আছে।

শনিবার সকালে চট্টগ্রাম নগরীর ইঞ্জিনিয়ার ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে জঙ্গিবাদ রুখবেই তারুণ্য শীর্ষক অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে ডিসি এসব কথা বলেন।

জেলা প্রশাসক অনুষ্ঠানে উপস্থিত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, কাউকে সন্দেহজনক মনে হলে, হঠাৎ কারও মধ্যে পরিবর্তন দেখলে আমাদের খবর দেবেন, আমরা তাকে সাইজ করে দেব।

তিনি সবাইকে জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে এগিয়ে আসার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, জঙ্গিবাদ দূর না হলে আমরা একসঙ্গে ঈদের নামাজ পড়তে পারবো না, কোথাও যেতে পারবো না।

জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে সহযোগিতা করেছে সিটি করপোরেশন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। এছাড়া বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন মিডিয়া ব্যক্তিত্ব ডা. আবদুন নুর তুষার ও শহীদ জায়া বেগম মুশতারি শফি। বক্তব্য দেন জঙ্গিবাদ রুখবেই তারুণ্যর সদস্যসচিব ও সাবেক জেলা পিপি অ্যাডভোকেট আবুল হাশেম, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা হোসনে আরা প্রমুখ।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে শহীদ জায়া বেগম মুশতারি শফি বলেন, যারা কখনও চায়নি দেশটা স্বাধীন হোক, তারা আবারও মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে। তারা মানুষ না, মানুষের নামে এসব কুকর্ম করে যাচ্ছে।

জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা হোসনে আরা বলেন, বর্তমানে শিক্ষার্থীদের জিপিএ-৫ এর চাপে ক্লান্ত করে ফেলা হচ্ছে। তাই ক্লান্ত শিক্ষার্থীরা ভেতরে ভেতরে বিদ্রোহী হয়ে উঠছে। এরপর মেধাবী শিক্ষার্থীরা জঙ্গিবাদে জড়িয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, অভিভাবকরা সবাই এ প্লাসর ফেরিওয়ালা হয়ে গেছে। দয়া করে সন্তানকে টাকা বানানোর মেশিন বানাবেন না।

অনুষ্ঠান শেষের দিকে জঙ্গিবাদ দমন করতে উপস্থিত সবাইকে শপথ বাক্য পাঠ করান জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন।


http://www.news-bd.net/newsdetail/detail/31/240581

Umar Abdur Rahman
09-04-2016, 10:19 PM
এরা আক্রোশ আর ক্রোধে প্রজ্বলিত হচ্ছে আমরা অগ্রসর হওয়ার আগেই! ভয় ও আতঙ্কে এদের হৃৎপিণ্ড হয়েছে সংকীর্ণ। পরাজিতরাই প্রলাপ বকে থাকে...

সেদিন আর বেশি দূরে নয়! বি'ইজনিল্লাহ যেদিন আমরা তাদের মগজগুলো শিকার করে তাদের স্ত্রীদের স্বামীহারা এবং সন্তানদের এতিম করে এত বেশী যন্ত্রণা দিবো যে, প্রশাসনের কারো কাছে কেউ কোনোদিন বিয়েই দিতে চাইবে না!!

ইয়া আল্লাহ!! আপনি তাওফিক দিন... তাদের গলায় ছুরি ধরার। আল্লাহুম্মা আমিন।

mohammod bin maslama
09-05-2016, 04:49 AM
আল্লাহ, আলাদের রক্ষক।

shameli
09-05-2016, 05:50 AM
কুকুর শুকররা তো চাইবেই যে মানুষেরাও তাদের মতো হয়ে যাক । যারা আল্লাহর দ্বীনের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে মুজাহিদদেরকে হত্যা করছে এবং শরিয়াহ প্রতিষ্ঠার যে কোন উপায়কে বানচাল করে দিতে তৎপর, আল্লাহ তাআলার ভাষায় এরা চতুষ্পদ জানোয়ারের চেয়ে নিকৃষ্ট ।
এরা চতুষ্পদ জানোয়ারের চেয়ে নিকৃষ্ট ।
এরা চতুষ্পদ জানোয়ারের চেয়ে নিকৃষ্ট ।
এরা চতুষ্পদ জানোয়ারের চেয়ে নিকৃষ্ট ।
এরা চতুষ্পদ জানোয়ারের চেয়ে নিকৃষ্ট ।
এরা চতুষ্পদ জানোয়ারের চেয়ে নিকৃষ্ট ।

সারা পৃথিবীতে সত্যিকার মানুষ এবং শ্রেষ্ঠ মুমিন এই মুজাহিদরাই । ইনশাআল্লাহ যতদিন জীবিত আছি ততদিন এই মুজাহিদদের সাথেই থাকবো এ আশায় যেনো ইন্তেকালের পরেও তাদের সাথে থাকতে পারি ।

সম্মান তো শুধু আল্লাহ, তাঁর রাসূল এবং মুমিনদেরই প্রাপ্য ।

Mullah Murhib
09-05-2016, 09:15 AM
[quote=abu salamah;18188][b]পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহীদুল হক বলেছেন, অনেকে জঙ্গিদের মানবাধিকারের কথা বলেন; জঙ্গিদের আবার কীসের মানবাধিকার? আগে দেশকে বাঁচাতে হবে, জনগণকে বাঁচাতে হবে। সব বিষয়ে বিরোধিতা করলে হবে না।



যখন আসল জঙ্গিদের চাপাতির ঘ্রান পাবে; তখন মানবাধিকার বুঝে আসবে।