PDA

View Full Version : জিহাদ বিকৃতির স্বরুপ... আশা করি জিহাদকে কীভাবে বিকৃত করা হচ্ছে তা বুঝার জন্য লেখাটি সহায়ক হবে ইনশাআল্লাহ্*



umar mukhtar
10-22-2016, 11:26 PM
জিহাদ বিকৃতির স্বরুপ........... আশা করি জিহাদকে কীভাবে বিকৃত করা হচ্ছে তা বুঝার জন্য লেখাটি সহায়ক হবে ইনশাআল্লাহ্*।

খুব সহজে বুঝার সুবিধার্থে একটি উদাহরণের মাধ্যমে শুরু করছি।
ধরুন,কোনো একজন ব্যক্তি কিংবা একটি দল বলছে যে, বলছে সলাত আদায় ফরয এবং আমরা যেভাবে সলাত আদায় করি,তার থেকে ভিন্ন একটি পদ্ধতিতে তারা সলাত আদায় করছে। যেমনঃ দুই রুকু ও এক সিজদাহর মাধ্যমে সলাত আদায় করছে কিংবা সলাতের পরিবর্তে যিকির করছে এবং এটিকেই সলাত বলছে। পাশাপাশি এটিও বলছে যে, বর্তমানে মানুষ যেভাবে সলাত আদায় করছে এগুলো সলাত নয়।

এখন এই ব্যক্তি কিংবা দলটির সলাত ফরয এই দাবী গ্রহণযোগ্য কি না ????
তারা কী পুরো সলাতের বিধানকেই পরিবর্তন ও বিকৃত করে দিচ্ছে না ???
উপরের উদাহরণটি কোনো কাল্পনিক বিষয় নয় বরং পাকিস্তানে যিকরী নামে একটি দলই রয়েছে,যারা আমাদের সলাতের পরিবর্তে শুধু যিকির করে এবং যিকরকেই সলাত বলছে। কিন্তু তারা কখনোই সলাতকে অস্বীকার করছে না। তাদের এই দাবী যে সম্পূর্ণ বাতিল এবং সলাতের বিকৃতি এটা বুঝার জন্য মনে হয় মুফতী কিংবা মুহাদ্দিস হওয়ার দরকার পড়ে না ।

এবার আসুন, আল্লাহ তাআলা জিহাদ ফরয করেছেন। এই জিহাদ কীভাবে করতে হবে তার পদ্ধতি রাসূল সাঃ ১০ বছরব্যাপী দেখিয়ে গেছেন। লক্ষ লক্ষ সাহাবায়ে কিরাম পুরো জীবনব্যাপী এই জিহাদের আমল করে গেছেন। রাসূল সাঃ এর সুস্পষ্ট বক্তব্য অনুসারে বিগত ১৪শ বছর ধরেই মুসলিম উম্মাহর আত-ত্বয়িফাতুল মানসূরাহ বা আল্লাহর সাহায্যপ্রাপ্ত দলটি আল্লাহর পথে জিহাদ করে যাচ্ছেন,আলহামদুলিল্লাহ।

এখন যদি কেউ বলে বর্তমানে যা চলছে,তা জিহাদ নয় বরং সন্ত্রাস। আর উক্ত ব্যক্তি জিহাদ করছে না বরং নিজেদের মনগড়া কাজকে জিহাদ নাম দিয়েছে। উক্ত বাতিল কাজকে জিহাদ নাম দেয়া এবং আমভাবে বর্তমানে জিহাদ চলছে না এই কথার মাধ্যমে পূর্বে বর্ণিত সলাতের উদাহরণের ন্যায় জিহাদকে বিকৃত ও পরিবর্তন করা হচ্ছে। আশা করি এটি বুঝার জন্য বেগ পাওয়ার কথা না ইনশাআল্লাহ্*।

চরমোনাইয়ের সমর্থক কেউ হয়তো বলবে,তারাতো জিহাদকে অস্বীকার করেনি !!!
আমি বলবো, ভাই, জামায়াতে ইসলাম কী কখনো জিহাদকে অস্বীকার করেছে ??? কখনো কী জীবনে তাদের কোনো নেতা বলেছে তারা জিহাদে বিশ্বাস করে না ??? কখনোই না।
কিন্তু তারা কী সেই জিহাদে বিশ্বাস করে,যা তালিবান ও আল-কায়েদা করছে ???? অবশ্যই না।

আরেকটু সামনে অগ্রসর হোন ! ধর্মনিরপেক্ষতাবাদী আওয়ামীলীগ কিংবা বিএনপি কিংবা এধরণের কোনো কী কখনো বলেছে, আমরা ইসলামের জিহাদ নামক বিধানের বিরোধীতা করি ????
কারো কাছে এধরণের প্রমাণ থাকলে আমাকে প্রদান করার জন্য বিনীতভাবে অনুরোধ করছি।

আরো সামনে অগ্রসর হোন ! আফগানিস্তানে আমেরিকার পক্ষে তালিবানদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করা ইসলামের নাম ব্যবহারকারী কিংবা সেক্যুলার মুরতাদ দলগুলো কী কখনো বলেছে,তারা জিহাদের বিরোধীতা করে !!!!!

অথবা সোমালিয়ায় আল-কায়েদার সবচেয়ে শক্তিশালী শাখা আল-শাবাব মুজাহিদদের বিরুদ্ধে ক্রুসেডার কুফফারদের ভাড়াটে বাহিনী হিসেবে যুদ্ধ করা আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআত নামধারী সুফীবাদী মুরতাদ দলটি কী কখনো বলেছে যে, তারা জিহাদকে অস্বীকার করে !!!!
বরং আফগানিস্তানে এবং সোমালিয়ায় ইসলামের দুশমনদের গ্রাউন্ড ফোর্স হিসেবে মুজাহিদদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করাকে জিহাদ নাম দিয়েছে !! তারা নাকি সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে জিহাদ করছে !!!

তাদের কেউ মারা গেলে তাকে তারা শহীদ বলে আখ্যা দেয়। আপনি জানেন, আর না জানেন মুরতাদ আহমদ শাহ মাসুদকে আফগানিস্তানে তার কথিত ইসলামী দল সুস্পষ্টভাবে শহীদ আখ্যা দিয়ে তার শাহাদাৎ বার্ষিকী পালন করছে !!!
তারা কী কখনো একথা বলএছে যে, তারা ইসলামের জিহাদকে অস্বীকার করে !!! বরং তারা জিহাদ করছে এই দাবীই করছে।

আপনি যদি আরো অগ্রসর হোন, তাহলে দেখতে পাবেন, সিরিয়ায় ইসলাম ও মুসলিমদের বিরুদ্ধে যুদ্ধরত শিয়া নুসাইরী(যাদেরকে অন্য শিয়ারাও কাফির বলে) আসাদ এবং তার সহচর হিযবুল লাত তাদের ইসলামের বিরুদ্ধে যুদ্ধকেও তারা জিহাদ বলছে !!! তারা কখনো বলেনি যে,তারা জিহাদের বিরোধী।
এছাড়া দুনিয়াজুড়ে মুজাহিদদের বিরুদ্ধে যুদ্ধরত কোনো রাষ্ট্র কী কখনো বলেছে যে, তারা জিহাদকে অস্বীকার করে ???? কিংবা যারা কুরআনে বর্ণিত জিহাদ করে তাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে ???? কখনোই না।

আপনাকে যদি আমি আরো সামনে নিয়ে যাই, তাহলে বলবো, গোটা দুনিয়ায় ইসলামের বিরুদ্ধে যুদ্ধরত আমেরিকা কী কখনো বলেছে যে, তারা ইসলামের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে ??? কিংবা তারা কী কখনো এই কথা বলছে যে, তারা ইসলামের জিহাদ বিধানকে খারাপ মনে করে ???? বরং তারা বলছে, আমেরিকা ইসলামের পক্ষে কিন্তু সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে। আমেরিকা(বুশ-ওবামা)র এই দাবী কী গ্রহণযোগ্য ???
উপরে যেসব দল এবং রাষ্ট্রের কথা উল্লেখ করেছি,তাদের অবস্থান এবং হুকুম ভিন্ন হতে পারে এবং ভিন্নই। কিন্তু জিহাদের বিকৃতির বিষয়টি বুঝার জন্য বিভিন্ন বৈশিষ্ট্যের বিভিন্ন অবস্থা উপস্থাপন করলাম।

তাহলে কেনো এসব দল সরাসরি জিহাদের বিরোধিতা না করে যারা জিহাদ করে তাদের বিরোধিতা করে ???

কারণটা একেবারে সহজ ! কারণ,জিহাদ ইসলামের একটি অকাট্য বিধান। কুরআনে একক বিষয় হিসেবে জিহাদের বিষয়ে সর্বাধিক আয়াত নাযিল হয়েছে। এটিকে অস্বীকার করলে ফোরকানিয়ার না-বালেগ শিশু ছাত্রটিও বুঝবে যে এটি একটি ভ্রান্ত দল বা মতবাদ,যারা জিহাদের বিরোধিতা করে কিংবা জিহাদকে অস্বীকার করে। আর তাই যখনই জিহাদের বিরোধিতা করা হয়েছে,তা সরাসরি জিহাদের বিরোধিতা করা হয়নি বরং মুজাহিদদের কাজকে সন্ত্রাস নাম দিয়ে কৌশলে জিহাদের বিরোধিতা করা হয়েছে।

.............................আরেকটি বিষয়,যা উপরের বিষয়টি থেকেও খতরনাক বা মারাত্মক। সেটি হচ্ছে, গণতন্ত্র এবং গণতন্ত্রের সাথে যুক্ত কাজকে জিহাদ আখ্যা দেওয়া। এটি কতটা ভয়াবহ তা আমি ভাষায় বুঝাতে অপারগ,মাআযাল্লাহ।

আমরা যখন আগে জামায়াতে ইসলামের নেতাদেরকে অতঃপর চরমোনাইয়ের (সাবেক নাম) ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের নেতাদের জিজ্ঞেস করতাম, জিহাদ করাতো ফরয ! আপনারা কেনো জিহাদ করছেন না ?? গণতন্ত্রতো কুফুরী এবং হারাম,তাহলে ইসলাম কায়েমের জন্য আপনারা কেনো এই কুফুরী পন্থা অবলম্বন করছেন ???

তাদের অসংখ্য নেতাদের কাছ থেকে উত্তর পেয়েছি, গণতন্ত্র যদিও কুফুরী তথাপিও আমরা বাধ্য হয়ে তা গ্রহণ করেছি। যেমনটা বাধ্য হলে শুকরের গোশত খাওয়াও জায়েয হয় !!!
এখন কিন্তু তারা এই উদাহরণ দেয় না। কারণ এখন তারা গণতন্ত্রকে হালাল এমনকি ইসলামী আন্দোলন/জিহাদ বানিয়ে ফেলেছে !!! লা হাওলা ওয়ালা ক্বুওয়াতা ইল্লা বিল্লাহ।

আচ্ছা একটা প্রশ্ন করি, জীবন রক্ষার জন্য নিরুপায় হয়ে শুকরের গোশত ভক্ষণের মাধ্যমে কী সেই শুকরের গোশত গরুর গোশত হয়ে গেছে ??? নাকি তা শুকরের গোশতই রয়ে গেছে ??? শুধুমাত্র জীবন বাঁচানোর তাগিদে ঐ সময়টুকুর জন্য তা জায়েয কিছুতেই তা গরুর গোশত হয়ে যায়নি।

পক্ষান্তরে আজ আমরা কী দেখছি !! (তাদের দাবী অনুযায়ী) নিরুপায় হয়ে হিকমত হিসেবে শুকরের গোশত ভক্ষণ করার ন্যায় গ্রহণ করা গণতন্ত্রকে তারা আজ শুধু গরুর গোশতের মতো বৈধই বলছে না বরং ইসলামের সর্বোচ্চ চূড়া ও ফরয ইবাদত জিহাদ নাম দিয়েছে !!! ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

আর কতো বিকৃতির পর আমরা অনুধাবন করতে পারবো !!!!
যদিও গণতন্ত্রকে বুঝানোর জন্য শুকরের গোশত দিয়ে উদাহরণ দিয়েছি। কিন্তু বাস্তবে শুকরের গোশতের চেয়ে গণতন্ত্র বহুগুণে মারাত্মক। কেননা শুকরের গোশত হচ্ছে হারাম, আর গণতন্ত্র হচ্ছে কুফুরী মতবাদ।

বিষয়টির ভয়াবহতা চিন্তা করলে আমি বিমূঢ় হয়ে যাই !!!

তাই সকলের উদ্দেশ্যে অনুরোধ করবো,দ্বীনের সবধরণের বিকৃতি ও বিভ্রান্তি থেকে মুক্ত থাকতে উম্মাহর হক্ব জামাআত আত-ত্বয়িফাতুল মানসূরাহ তথা সর্বদা জিহাদ করা দলটির সাথে আমরা যুক্ত থাকি । উম্মাহর এই হক্ব জামাআতের বিশুদ্ধ আকীদা ও মানহাজের আলোকে আল_ওয়ালা ওয়াল বারা নির্ভর জীবন গড়ে তুলি,তাহলে জিহাদসহ দ্বীনের অন্য যেকোনো বিকৃতি থেকে রক্ষা পাবো। উম্মাহর এই হক্ব জামাআতের সাথে যুক্ত থাকলেই পরিশেষে ঈসা আঃ এর সঙ্গী হয়ে দাজ্জাল ও দাজ্জালের বাহিনীর ঈমান বিনষ্ট হওয়া থেকে বেঁচে যাবো ইনশাআল্লাহ্*। কারণ হাদীসে সুস্পষ্ট ভাষায় বলা হয়েছে সর্বদা জিহাদ করা সেই জামাআতটিই দাজ্জালের বিরুদ্ধে ক্বিতাল করবে।

হযরত ইমরান বিন হুসাঈন রাদ্বিঃ থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন রাসূল সাঃ ইরশাদ ফরমান, আমার উম্মতের একটি দল সর্বদা হক্বের উপর প্রতিষ্ঠিত থেকে ক্বিতাল করতে থাকবে এবং তাদের বিরোধীদের উপর জয়ী/প্রভাব বিস্তারকারী থাকবে। এমনকি তাদেরই সর্বশেষ দল মাসীহে দাজ্জালের বিরুদ্ধে ক্বিতাল করবে। (আবু দাউদ, হাদীস নং-২৪৭৬, এছাড়াও হাদীসটি মিশকাত শরীফ,কিতাবুল জিহাদের ২য় পরিচ্ছেদের ১ম হাদীস।)

আল্লাহ আমাদেরকে সকল দল,মত এবং বিকৃতি পরিহার করে আত-ত্বয়িফাতুল মানসূরার অন্তর্ভুক্ত হওয়ার তাউফীক্ব দান করুন।

বিঃদ্রঃ এই লেখার ভিত্তিতে গণতন্ত্রের মাধ্যমে ইসলাম কায়েমের দাবীদার দলগুলোকে তাকফীর করা বুঝলে তার জন্য অগ্রীম করুণা রইলো।

https://www.facebook.com/permalink.php?story_fbid=314453875604772&id=100011204868334

shamer pothik
10-22-2016, 11:42 PM
جزاك الله خيرا في الدارين
মুমিনদেরকে সঠিক বুঝে আমল করার তাওফিক দান করুণ। আমিন!

আবু মুহাম্মাদ
10-23-2016, 02:24 AM
আল্লাহ আমাদেরকে সকল দল,মত এবং বিকৃতি পরিহার করে আত-ত্বয়িফাতুল মানসূরার অন্তর্ভুক্ত হওয়ার তাউফীক্ব দান করুন।


আমীন সুম্মা আমীন।

saif
10-23-2016, 10:50 AM
আমীন সুম্মা আমীন!!

Abdullah Ibnu Usamah
10-23-2016, 06:23 PM
আল্লাহ আমাদেরকে সকল দল,মত এবং বিকৃতি পরিহার করে আত-ত্বয়িফাতুল মানসূরার অন্তর্ভুক্ত হওয়ার তাউফীক্ব দান করুন।


.........আমীন, ইয়া রব্বাল মুজাহিদীন।