PDA

View Full Version : উম্মাহ ও মুজাহিদীন নিউজ- শনিবার ২৪/১১/২০১৭ ইংরেজি



HIND_AQSA
11-25-2017, 12:24 PM
আফগানিস্তানে শত্রুদের জাহান্নাম যাত্রা অব্যাহত, জনতার সেবায় মুজাহিদগণের পানি সরবরাহের ব্যবস্থা।।

http://gazwah.net/wp-content/uploads/2017/11/photo_2017-11-24_10-08-59-581x330.jpg

আফগানিস্তানের ফারাহ প্রদেশের শ্যামলগাহ এলাকায় একটি চেকপোস্ট থেকে শত্রুরা গত পরশু রাতে পালিয়েছে। ঐরাতেই দাইকোন্দি প্রদেশের গিজাব জেলার স্যাংগ শায়েখ এলাকায় একটি শত্রু চেকপোস্টে মুজাহিদগণ হামলা করলে, শত্রুদের কুখ্যাত কমান্ডার বুসতান ঘুরজাঙ্গসহ কমপক্ষে তিন পুতুলসেনা মারাত্মকভাবে আহত হয়েছে। এদিকে দক্ষিণ গজনী প্রদেশের কারাবাঘ জেলায় বৃহস্পতিবার সকালে একটি বোমা হামলায় দুই পুতুলসেনা নিহত এবং আরো দুইসেনা আহত হয়েছে। ঐ সময়েই একই প্রদেশের গিলান জেলায় মুজাহিদগণের সাথে গুলিবিনিময়ের এক পর্যায়ে আরো দুই পুতুলসেনা নিহত হয়েছে। উল্লেখিত প্রদেশের শালগার জেলায় গতকাল দুটি পৃথক হামলায় ৪ পুতুলসেনা নিহত এবং আরো কয়েকজন আহত হয়েছে।
কুনার প্রদেশের যালরিজ জেলায় মুজাহিদগণের একটি সিরিজ বোমা হামলায় বুধাবারে শত্রুদের একটি উল্লেখযোগ্য সংখ্যক সেনা নিহত এবং আহত হয়েছে। কাবুল প্রদেশের কারাবাঘ জেলায় বুধবারে একটি শহীদী হামলায় কমপক্ষে ৬ আগ্রাসী আমেরিকান সেনা জাহান্নামের পথ ধরেছে। সংবাদটি আল-ইমারাত নিউজ বৃহস্পতিবারে প্রকাশ করে। ইসলামী ইমারতের শহীদী স্কোয়াডের একজন নির্ভীক মুজাহিদ হাফেজ মুহাম্মদ ইলিয়াস গত বুধবারে আমেরিকান সামরিক বাহিনীর একদল সেনার নিকটে তাঁর বিস্ফোরকগুলো বিস্ফোরিত করেন যার ফলে ঐ আমেরিকান সন্ত্রাসী বাহিনীর কমপক্ষে ৬ সদস্য জাহান্নামে ।
.আফগানিস্তানের নানগারহার প্রদেশ দিয়ে উড়ে যাওয়ার সময় ইসলামী ইমারতের মুজাহিদগণ আমেরিকান আগ্রাসীদের একটি ড্রোন বা গোয়েন্দা বিমান তীব্র বন্দুকযুদ্ধে ভূপাতিত করেন।একটি মারাত্মক যুদ্ধের সূচনা হয় যখন বুধবারে নানগারহার প্রদেশের ঘানি খেল জেলায় মুজাহিদগণ প্রবলভাবে চাচ্ছিলেন শত্রুদেরকে তাড়িয়ে দিতে এবং তাদের অগ্রগতিকে থামিয়ে দিতে। এতে, কমপক্ষে ৩পুতুলসেনা- যাদেরকে শত্রুরা স্পেশিয়াল ফোর্স বলে ডাকে- নিহত হয়েছে এবং আহত হয়েছে আরো কতিপয় স্পেশিয়াল শত্রু।যুদ্ধটির পরিসমাপ্তি ঘটে শত্রুরা একটি লজ্জাজনক পরাজয়ের সমাপ্তি ঘটানোর জন্য মরিয়া হয়ে চেষ্টা করতে থাকার পর, ইতিমধ্যে গোয়েন্দা বিমানটির ছিন্ন ভিন্ন অংশ মুজাহিদগণের হাতে এসেছে। কাপিসা প্রদেশের তাগাব জেলায় গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়েছে দুই পুতুলসেনা । একই দিনে প্রদেশটির নিযরাব জেলায় শত্রুদলকে মুজাহিদগণ হামলা করার পর তাদের তিন পুতুলসেনা নিহত হয়েছে। এদিকে বলখের প্রাদেশিক রাজধানীতে বুধবারে মুজাহিদগণের হামলায় এক কুখ্যাত আরবাকি কমান্ডার যে কিনা তার নৃশংশতার জন্য খ্যাতি অর্জন করেছে, একজন দুর্নীতিবাজ শয়তান আহমদ জান নিহত হয়েছে এবং তার দুই বন্দুকধারী আহত হয়েছে।
বুধবারে নুরিস্তান প্রদেশের নরগাম জেলায় একটি চেকপোস্টে মুজাহিদগণ হামলা করার পর এক শত্রু সেনা নিহত হওয়ার পাশাপাশি আরেকজন আহত হয়েছে। ঐদিন প্রতিবেশী কুনার প্রদেশ থেকে আসা একটি রিপোর্ট অনুযায়ী প্রদেশটির সুরকানী জেলায় মুজাহিদগণ হাতবোমা দিয়ে শত্রুদের একটি চেকপোস্টে হামলা করেছেন। এতে একটি উল্লেখযোগ্য সংখ্যক শত্রুসেনা নিহত এবং আহত হয়। একই দিনের সন্ধ্যাবেলায় পাকতিয়া প্রদেশের আহমদ খেল জেলায় স্থানীয়ভাবে আরবাকি নামে পরিচিত মিলিশিয়ারা একজন বিখ্যাত ইসলামী আলেম মাওলানা হামদুল্লাহকে নৃশংসভাবে শহীদ করেছে।
ঐদিন পাকতিয়া প্রদেশের বারমাল জেলায় মুজাহিদগণ একটি সামরিক শত্রু নিরাপত্তা বাহিনীর সাথে যুদ্ধ শুরু করেন । এই হামলার বিবরণ এখনো পাওয়া যায়নি। প্রতিবেশী খোশত প্রদেশের প্রাদেশিক রাজধানীতে রোডসাইড বোমা বিস্ফোরণে এক শত্রু সেনা নিহত হয়েছে।
এদিকে জাবুলের মিজানা জেলার তাকির এলাকায় একটি রোডসাইড বোমা বিস্ফোরিত হয়ে একটি শত্রু এপিসিকে চূর্ণবিচূর্ণ করে ফেলেছে। এতে, ঘটনাস্থলে ৬পুতুলসেনা নিহত হয়েছে ।ঘটনাটি ঘটে গত পরশু সকালে। এর পরদিন অর্থাৎ গতকাল একই জেলার আলম গুল এলাকায় স্নাইপারের আঘাতে ২ পুতুলসেনা গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়েছে। গতকাল মধ্যাহ্নে শেজয় জেলার বাজার এলাকায় গেরিলা হামলায় ২ পুতুলসেনা নিহত হয়েছে এবং তাদের রাইফেলগুলো জব্দ করা হয়েছে।
ফারিয়াবের রাজধানী মায়মানার সাবাজ এলাকায় শত্রুদের দুটি দলের মাঝে যুদ্ধের ফলে ৪ পুতুলসেনা নিহত এবং ৩ সেনা আহত হয়েছে। যুদ্ধের কারণ এখনো স্পষ্ট হয়নি। যাইহোক, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মাদকাসক্ত এবং এমন ধরণের খারাপ অভ্যাসের কারণেই শত্রুদের একে অপরের সাথে যুদ্ধ করে থাকে।অন্যদিকে, গতকাল স্থানীয় সময় বিকাল ৫টায় জুমা বাজার জেলায় মুজাহিদগণের িএকটি গেরিলা হামলায় এক ভাড়াটে কমান্ডার কামরুদ্দিন নিহত হয়েছে।একই দিনে স্থানীয় সময় সকাল নয়টার দিকে কাযারান জেলার তারনিনজি এলাকায় আইইডি হামলায় একটি ভাড়াটে রেঞ্জার পিকআপ ধ্বংস হয়ে ভেতরে থাকা সকল বন্দুকধারী নিহত বা আহত হয়েছে।
ফারিয়াব প্রদেশের সেইদাবাদ জেলায় স্থানীয় বাসিন্দাদের সহায়তায় ইসলামী ইমারতের মুজাহিদগণ একটি পানি সরবরাহ প্রজেক্ট শুরু করেছেন।জানা যায়, ঐ জেলার কারকামান, কাবচাক, মাঘুলা, বাজার শাখ, সেইদাবাদ, খাইর আবাদ, তাইমুরয়া, শারাবাক, নাওয়াবাদ, যাকা বাঘ এবং উজাবাকি এলাকার ১৫০০০ পরিবারের কাছে পানি সরবরাহ করতে সর্বমোট ৬০ লাখ মূল্যের প্রজেক্ট এটি। প্রজেক্টটি পরিপূর্ণ দ্রুততার সাথে উন্নত হতে থাকবে এবং শীঘ্রই কার্যকর হবে ইনশাআল্লাহ।
হেলমান্দের নাদ আলী জেলার কারী চেক পোস্ট এলাকার নিকটে একজন স্নাইপারের গুলির আঘাতে এক ভাড়াটে কমান্ডার গুলিবিদ্ধ হয়ে তাৎক্ষনিক নিহত হয়েছে। ঘটনাটি গতকাল স্থানীয় সময় বিকাল তিনটার দিকে ঘটে। সানজিন জেলার পানকেলি এলাকায় শত্রুরা একটি কৌশলগত মাইন বিস্ফোরণের কবলে পড়ে সম্ভাব্য ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির শিকার হয়। গেরিশক জেলার ডক্টর পাম্প এলাকায় গত পরশু রাতে গুলিবিদ্ধ হয়ে এক ভাড়াটে পুলিশ নিহত এবং আরেকজন আহত হয়েছে। আরেকটি রিপোর্ট জানিয়েছে, গত পরশু মধ্যাহ্নে ঐ জেলার শিনদাক মান্দা এলাকায় হেলমান্দের রাজধানী লশকরগাহতে যাওয়ার রাস্তার পাশে একটি আইইডি হামলায় একটি পুলিশ রেঞ্জার পিকআপ ছিন্নভিন্ন হয়ে ভেতরে থাকা সকল বন্দুকধারী নিহত বা আহত হয়েছে।
কান্দাহারের খাকরেজ জেলার কেন্দ্রের নিকটে গত পরশু রাতে ২টি নিরাপত্তা চেকপোস্টে মুজাহিদগণ স্নাইপার বন্দুকের মাধ্যমে হামলা করেন। এতে ঐ ভাড়াটে চেকপোস্টটি পদদলিত হয় এবং শত্রুরা তাদের তিন সাথীর লাশকে ফেলে রেখে পলায়ন করতে বাধ্য হয়।পালিয়ে যাওয়ার সময় গুলিবিদ্ধ হয়ে আরো দুই পুতুলসেনা নিহত হয়েছে। ১টি আরপিজি লাঞ্চার , ২টি রাইফেল, এবং আরো অন্যান্য সামগ্রী এই অপারেশনে মুজাহিদগণের হস্তগত হয়। একই জেলার সেয়াহ সেং দারা এলাকায় মুজাহিদগণের বোমা হামলায় বুধবার স্থানীয় সময় বিকাল তিনটা পনের মিনিটের দিকে ২পুতুলসেনা নিহত হয়েছে। প্রদেশটির মায়ান ই শিন জেলার উর্দু বালাগ এলাকায় গত পরশু সকালে একটি রোডসাইড বোমা বিস্ফোরণে এক ভাড়াটে রেঞ্জার পিকআপ ছিন্নভিন্ন হয়ে ঘটনাস্থলে ভেতরে থাকা সকল বন্দুকধারী নিহত বা আহত হয়েছে। বুলদাক জেলার তুরু এলাকায় মঙ্গলবার রাতে একটি শত্রু প্রহরীদল মুজাহিদগণের বোমা হামলা এবং বন্দুক হামলার কবলে পড়ে তাদের এক সঙ্গীকে হারায় এবং আরেক শত্রু আহত হয়েছে। গতকাল মধ্যাহ্নে শুরাবাক জেলার স্রো চাহানু এলাকায় একটি আইইডি হামলায় একটি ভাড়াটে এপিসি চূর্ণ বিচূর্ণ হয়ে ভেতরে থাকা সকল শত্রু আহত বা নিহত হয়েছে।

HIND_AQSA
11-25-2017, 12:46 PM
১৪ নভেম্বর ২০১৭ থেকে ২১ নভেম্বর ২০১৭ পর্যন্তের, কয়েকটি হামলার দায় স্বীকার করেছেন মালীর মুজাহিদগণ।

http://i.cubeupload.com/0DKyrh.jpg

গত ১৪ নভেম্বর তাবানকোর্ট এবং আনফিফ এর সীমান্ত পথে মিনিসমা তাগুত বাহিনীর উপর মাইন বিষ্ফোরণ ঘটিয়েছে মালীর মুজাহিদগণ, এছাড়াও ১৭ নভেম্বর মালীর তাওরুমবা নামক একটি গ্রামে তাগুতবাহিনীর একটি গ্রুপের উপর এবং ১৮ নভেম্বর দেওয়ানগানী এলাকায় ও ২১ নভেম্বর নোঙ্গোদোম এলাকায় মালীর পুলিশবাহিনীর উপর হামলার দায় স্বীকার করেন মালীর মুজাহিদগণ, উক্ত হামলায় কাফেরদের বেশ কিছু তাগুত নিহত হয় এবং মুজাহিদগণ গনিমত লাভ করেন।

Musafir
11-25-2017, 03:32 PM
আল্লাহ আকবার ।

কালো পতাকা
11-25-2017, 09:08 PM
ভাই কেমন আছেন ? ভাই আপনাকে অনেক দিন থেকে নেটে পাইনি তাই আমি খবর পরিবেশন করতাম যা মূলত সুন্দর করে গুছিয়ে পরিবেশন হয় নি ভাই আসলে আমি খবর গুলো গুগল থেকে ট্রান্সলেশন করতাম ভাই আপনাকে পেয়ে ভীষণ ভাল লাগছে আল হামদুলিল্রাহ ভাই এখন থেকে আমি কোনো খবর পরিবেশন করব না কারন এটা আমার কাজ না তাই আপনাকে ফোরামে নিয়মিত চাচ্ছি ভাই আমি আপনার জন্য দোয়া করি জান্নাতে আপনার সাথে দেখা হবে ইনশাআল্লাহ আমার জন্য দোয়া করবেন আর দোয়া করবেন আল্লাহ যেন গুনাহগার এই বান্দাকে শহীদ হিসেবে কবুল করেন আমিন

কালো পতাকা
11-25-2017, 09:15 PM
জাযাকাল্লাহু খাইরান
মহান আল্লাহ তায়ালা আপনার মেহনত কবুল করুন
আমিন
"কেউ হেদায়েতের দিকে আহ্বান করলে যতজন তার অনুসরণ করবে প্রত্যেকের সমান সওয়াবের অধিকারী সে হবে, তবে যারা অনুসরন করেছে তাদের সওয়াবের কোন কমতি হবে না।" [সহিহ মুসলিমঃ ২৬৭৮]

কবি আবু উসাইমিন
11-25-2017, 09:34 PM
জাযাকুমুল্লাহ..............