PDA

View Full Version : আমির/খলিফা অপাসারণ সংক্রান্ত ফতোয়া ??????



ইসহাক সাহা
01-01-2018, 09:51 AM
প্রশ্নঃ যদি কোন এলাকার আমির বা খলিফার এমন কোন সিদ্ধান্ত বা কাজকর্ম, যা উম্মাহর জন্য ক্ষতি বয়ে আনে/ফিতনা সৃষ্টির রাস্তা খুলে যায়/উম্মাহর বিজয়ের পথে বাধা হয়ে দাঁড়ায়, তাহলে কি তাকে তার পদ থেকে অপাসারন করা যাবে {যার সেই পরিমান ক্ষমতা আছে তাকে সরানোর}??? যদিও সেই আমির বা খলিফার সেই কাজটি অজ্ঞতাপ্রসূত/ না-বুঝের কারণের হোক বা কুফফারদের এজেন্ডার জন্যেই হোক, তার অন্তরের খবরতো আল্লাহু 'আলাম

{যার সেই পরিমান ক্ষমতা আছে তাকে সরানোর}==আহলে হল্ ওয়াল আকদ/সৈন্যপ্রধান/উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা ইত্যাদি

আশাকরি কোন ভাই, আল্লাহর ইচ্ছায় দলিল সহকারে এই বিষয়টি খোলাসা করবেন। জাযাকাল্লাহু খায়ের।

"তোমরা নিরাশ হইও না ও দুঃখিতও হইও না তোমরাই বিজয়ী হবে যদি তোমরা মুমিন হও" (সূরা আলে-ইমরানঃ ১৩৯)

স্নাইপার
01-01-2018, 07:37 PM
আল্লাহ ধৈর্যশালীদের সাথে আছেন।

salahuddin aiubi
01-02-2018, 07:21 AM
প্রশ্নঃ যদি কোন এলাকার আমির বা খলিফার এমন কোন সিদ্ধান্ত বা কাজকর্ম, যা উম্মাহর জন্য ক্ষতি বয়ে আনে/ফিতনা সৃষ্টির রাস্তা খুলে যায়/উম্মাহর বিজয়ের পথে বাধা হয়ে দাঁড়ায়, তাহলে কি তাকে তার পদ থেকে অপাসারন করা যাবে {যার সেই পরিমান ক্ষমতা আছে তাকে সরানোর}??? যদিও সেই আমির বা খলিফার সেই কাজটি অজ্ঞতাপ্রসূত/ না-বুঝের কারণের হোক বা কুফফারদের এজেন্ডার জন্যেই হোক, তার অন্তরের খবরতো আল্লাহু 'আলাম

{যার সেই পরিমান ক্ষমতা আছে তাকে সরানোর}==আহলে হল্ ওয়াল আকদ/সৈন্যপ্রধান/উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা ইত্যাদি

আশাকরি কোন ভাই, আল্লাহর ইচ্ছায় দলিল সহকারে এই বিষয়টি খোলাসা করবেন। জাযাকাল্লাহু খায়ের।

"তোমরা নিরাশ হইও না ও দুঃখিতও হইও না তোমরাই বিজয়ী হবে যদি তোমরা মুমিন হও" (সূরা আলে-ইমরানঃ ১৩৯)

ভাই! আমি উত্তর দিচ্ছি না, তবে উপরুক্ত বিষয়ের প্রাসঙ্গিক কিছু কথা বলবো:
তা হল, যেমনিভাবে শাসক কর্তৃক নিয়োগকৃত কোন গভর্ণর কোন কারণে অযোগ্য বিবেচিত হলে শাসক তাকে অপাসরণ করতে পারে, -যার নজীর খেলাফতে রাশেদার আমলেও একাধিক আছে- তেমনিভাবে সর্বোচ্চ শাসকও কোন কারণে সর্বসম্মতভাবে (ব্যাপক সংখ্যকের মতে) অযোগ্য বিবেচিত হলে আহলুল হল্ল ওয়াল আকদ কর্তৃক তাকে অপাসারণ করতে পারার কখা।

এছাড়া যদি শাসককে ইসলাম ও মুসলিমদের ক্ষতির বিষয়টি বুঝানো হয়, স্পষ্ট করা হয়, তথাপি সে তার কোন সদুত্তর দিতে না পেরেই নিজ পদক্ষেপের উপর চলতে থাকে, তাহলে তো তার বিশ্বাসঘাতকতার ব্যাপারে জাতির সন্দেহ হবে। এমনকি বাহ্যিকভাবে বিশ্বাসঘাতকই সাব্যস্ত হবে। তখন তো এটা সাধারণ ফিসকির চেয়ে বড় বিষয়! বরং কখনো কুফরীর পর্যায়ে পড়বে.. তখন তার ক্ষেত্রে ফাসিক বা কখনো মুরতাদ শাসকের বিধান প্রযোজ্য হওয়ার কথা।

কারণ রাসূলুল্লাহ সা: একাধিক হাদিসে মুসলিমদের আমির নিযুক্ত করার অধিকার ও দায়িত্ব দিয়েছেন মুসলিমদেরকেই। সে হিসাবে ব্যাপক সংখ্যক আহলুল হাল্লি ওয়াল আকদ এর মতে শাসক অযোগ্য বিবেচিত হলে তাকে অপসারণ করার অধিকারও উক্ত হাদিসগুলোর মাধ্যমেই মুসলিমদের থাকার কথা।
ওয়াল্লাহু আ’লাম।

Diner pothe
01-02-2018, 03:12 PM
জাযাকাল্লাহ।