PDA

View Full Version : মুজাহিদীন নিউজ।। ২৪ও২৫ ই রজব,১৪৩৯ হিজরী।। ১১ও১২ই এপ্রিল, ২০১৮ ইংরেজি।।



HIND_AQSA
04-12-2018, 04:18 PM
মুজাহিদীন নিউজ।। ২৪ও২৫ ই রজব,১৪৩৯ হিজরী।। ১১ও১২ই এপ্রিল, ২০১৮ ইংরেজি।।

বাস্তুচ্যুত কাচিন অঞ্চলের ৫ হাজার মানুষ

http://i.cubeupload.com/lOI9m0.jpg

প্রবল শীত ও দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় মিয়ানমারের শা ইত ইয়াং পাহাড়ী শিবিরে দুরবস্থায় দিন কাটাচ্ছেন ৫ হাজারেরও বেশি বাস্তুচ্যুত কাচিন অঞ্চলের মানুষ। মিয়ানমার সেনাবাহিনীর হামলার শিকার হয়ে বাস্তচ্যুত ওই কাচিন সমপ্রদায় শা ইত ইয়াং পাহাড়ী শিবিরের ভাঙ্গা কুড়েতে মানবেতর অবস্থায় পার করছেন। এদের অনেকেই প্রথমবার বাস্তুচ্যুত হয়ে ভিটেয় ফিরে গিয়ে আবারো হামলার শিকার হয়েছেন। নয় সদস্যের পরিবারের একজন ১৩ বছর বয়সী হাপরে জা নুপানস ভয়েস অব আমেরিকাকে জানান, তাদেরকে চারবার হামলা করা হয়েছে। কাচিন স্বাধীনতা আন্দোলনের জন্য গঠিত লড়াকু বাহিনীর সঙ্গে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ১৭ বছরের অস্ত্র বিরতি ভেঙ্গে ২০১১ সালে আবার শুরু হয় দুই পক্ষের যুদ্ধ। সেই থেকে মাঝে মধ্যেই কাচিনের সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠির ওপর হামলা করে মিয়ানমার বাহিনী। কাচিন এবং উত্তর শান রাজ্যে ১৬৫ টি শিবিরে প্রায় ১ লক্ষ বাস্তুচ্যুত সংখ্যালঘু মানুষ মানবেতর অবস্থায় বসবাস করছেন। ভিওএ।

HIND_AQSA
04-12-2018, 04:20 PM
বেলজিয়ামে একজন মুসলিমাকে হামলা করেছে এক খুনী

http://i.cubeupload.com/6L1hNX.jpg


দুই সপ্তাহ আগে বেলজিয়ামের অসট্যান্ডে একটি স্কুল সফরের সময় ১৬ বছর বয়সী একজন মুসলিম বালিকাকে এক খুনি নিষ্ঠুরভাবে আক্রমণ করেছে। ঐ খুনি মেয়েটির হিজাব খুলে ফেলেছে, তার মুখে ঘুষি মেরেছে এবং তার গলা টিপে ধরেছে। মেয়েটির বান্ধবীরা ঘটনার মাঝে এসে ঐ লোকটিকে দূর করে এবং লোকটির নাক ভেঙ্গে দেয়।

HIND_AQSA
04-12-2018, 04:22 PM
কাশ্মীরে ভারতীয় দখলদার বাহিনী বাচ্চাদেরকে মানবঢাল হিসেবে ব্যবহার করছে ।

http://i.cubeupload.com/7hwPmQ.jpg

কাশ্মীরের পাশে দাড়াও!

HIND_AQSA
04-12-2018, 04:23 PM
http://i.cubeupload.com/1GWalA.jpg

দখলীকৃত কাশ্মীরে বালকটি একজন মানবঢাল হিসেবে কাজ করছে।
# কাশ্মীরের পাশে দাড়াও!!

HIND_AQSA
04-12-2018, 04:24 PM
ন্যাটোভুক্ত ফ্রান্সের সাথে চুক্তি সৌদিআরবের

http://i.cubeupload.com/EmBrhC.jpg

সৌদি যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমান ফ্রান্স সফরে গিয়ে ১৮বিলিয়ন ডলারের অধিক মূল্যের ২০টি অর্থনৈতিক চুক্তি করেছেন অন্যতম ন্যাটো সদস্য ফ্রান্সের সাথে। বিশ্বজুড়ে মুসলিমদেরকে হত্যাকারী অন্যতম সামরিক সংগঠন ন্যাটো। আর সৌদির যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমান এবারে ফ্রান্সের সাথে এমন চুক্তি করেন। ভাবা হচ্ছে, চুক্তিগুলোর মধ্যে থাকতে পারে অস্ত্রচুক্তি। দীর্ঘদিন যাবৎ ফ্রান্স ইয়েমেনে সাধারণ মুসলিমদেরকে হত্যা করার জন্য সৌদিকে অস্ত্র সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে। তো, তারই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি করা চুক্তিতে অস্ত্রচুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর কথা বলা হয়েছে। উল্লেখ্য, ইয়েমেনে হুতিদের বিরুদ্ধে যুদ্ধের নামে সৌদি আরবের সংঘাতে এ পর্যন্ত অন্তত দশহাজার সাধারণ মুসলমান নিহত হয়েছেন এবং ৩০ লাখেরও অধিক মুসলমান নিজেদের ভিটেমাটি ছেড়ে অজানা উদ্দেশ্য পাড়ি জমিয়েছেন।

HIND_AQSA
04-12-2018, 04:25 PM
তারিনকুটে প্রধান লেফট্যানেন্টসহ নিহত ১১, আহত ১৩

http://i.cubeupload.com/uYXbxQ.jpg

আফগানিস্তানের উরুজগান প্রদেশের রাজধানী তারিনকুটের তলানি এলাকায় গত পরশু শত্রুদের যৌথ আক্রমণাত্মক হামলার বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিরোধ গড়ে তুলেছেন ইসলামী ইমারতের যোদ্ধারা। বিস্তারিত জানা যায়, প্রধান লেফটেন্যান্ট মুহাম্মদ ওয়ালি আহমাদীসহ ১১ পুতুলসেনা নিহত হয়েছে এবং আরো ১৩ সেনা আহত হয়েছে। পাশাপাশি ৩টি ট্যাংক ধ্বংস হয়েছে।
জানা যায়, ঐ অপারেশনে ১জন মুজাহিদ শাহাদাতবরণ করেছেন এবং আরো ৩জন আহত হয়েছে।

HIND_AQSA
04-12-2018, 04:26 PM
আফগানিস্তানের মাইওয়ান্দে স্নাইপারের হামলায় নিহত ৯ পুতুলসেনা

আফগানিস্তানের কান্দাহার প্রদেশের মাইওয়ান্দ জেলার জুগরাম এলাকায় গত পরশুরাতে মুজাহিদীনের হামলায় ৩টি শত্রু চেকপোস্টের অন্তত ৯ পুতুলসেনা হতাহত হয়েছে। অনুরূপভাবে, এলাকাটিতে রবিবার রাতে স্নাইপার গুলিবর্ষণে আরো ৬ পুতুলসেনা হতাহত হয়েছে।

HIND_AQSA
04-12-2018, 04:27 PM
http://i.cubeupload.com/jllcPK.jpg

আফগানিস্তানের গজনীতে ৩ পোস্ট পদদলিত হয়ে নিহত ৯ পুলিশ

HIND_AQSA
04-12-2018, 04:27 PM
আফগানিস্তানের গজনী প্রদেশের রাজধানীতে গত পরশুরাতে ২টি শত্রু চেকপোস্ট মুজাহিদগণের হাতে এসেছে। এর আগে, শত্রুদের সাথে গোলাগুলিতে ৬ পুলিশসদস্য নিহত হয়েছে। মুজাহিদগণ ৩টি ক্লাশিনকোভ রাইফেল, ২টি ভারী মেশিনগান এবং অন্যান্য গোলাবারুদ শত্রুদের থেকে গণিমত লাভ করেছেন।
একই স্থান থেকে গত তিনদিন আগে মুজাহিদগণ একটি শত্রুচেকপোস্ট জব্দ করেছিলেন, ৩ পুলিশকে নিহত করেছিলেন এবং ১টি ট্যাংক , ৩টি ক্লাশিনকোভ মেশিনগান গণিমত হিসেবে লাভ করেছিলেন।

HIND_AQSA
04-12-2018, 04:28 PM
পশ্চিম তীরের প্রধান রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে দখলদার ইহুদীরা!!

http://i.cubeupload.com/sf0u1z.jpg

ফিলিস্তিনের দখলীকৃত পশ্চিম তীরের প্রধান রাস্তাটি ফিলিস্তিনীদের জন্য বন্ধ করে দিয়েছে ইসরাঈলী দখলদাররা এবং তাদের বাহিনী। দখলদাররা আরবিতে একটি লেখা স্থাপন করেছে, যেটাতে লিখেছে,“তোমরা এখন যে এলাকায় আছ তা ইহুদীদের নিয়ন্ত্রণে। এই এলাকায় আরবদের প্রবেশ সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ, মৃত্যুবিপদ!”
দখলদার সেনারা ফিলিস্তিনীদের উপর অমানবিক নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে দীর্ঘদিন ধরে। নিজ দেশে লাঞ্চিত হচ্ছে ফিলিস্তিনী মুসলিমগণ। আর এখন, পশ্চিম তীরের প্রধান রাস্তাটি বন্ধ করে দিয়ে মুসলিমদের চলাচলকে বন্ধ করে দিয়েছে ঐ দখলদার ইহুদীরা।

HIND_AQSA
04-12-2018, 04:32 PM
ব্রেকিং নিউজ:
সৌদি জোট ইয়েমেনের রাজধানী সানায় আন্তর্জাতিক এয়ারপোর্টে বোমা হামলা করেছে।

HIND_AQSA
04-12-2018, 09:17 PM
চাইনিজ কর্মকর্তার সাথে ঘুমাতে বাধ্য করা হয়েছে উইঘুর মুসলিম পরিবারকে

http://i.cubeupload.com/wthUjn.jpg

উইঘুর মুসলিম পরিবারকে পূর্ব তুর্কিস্তানে চাইনিজ কর্মকর্তার সাথে ঘুমাতে বাধ্য করা হয়েছে। তারা উইঘুর মুসলিমদেরকে ইসলাম থেকে বের করতে যে কার্যক্রম চালাচ্ছে এটা তারই অংশ। আর তারা এটাও নিশ্চিত করতে চায় যে উইঘুর মুসলিমরা চাইনিজ কমিউনিস্ট দলের প্রতি অনুগত।

HIND_AQSA
04-12-2018, 10:19 PM
মুসলিমদের ঘরবাড়ি ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগ

http://i.cubeupload.com/Q0Rbej.jpg

HIND_AQSA
04-12-2018, 10:20 PM
ভারতে মুসলিম-বিরোধী দাঙ্গা 'পরিকল্পিত' মনে করার ৯টি কারণ

রামনবমী পালনকে কেন্দ্র করে ভারতে গত মাসে যে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা ছড়িয়েছিল, সেগুলো পরিকল্পনার ভিত্তিতেই হয়েছিল।
মার্চের শেষ সপ্তাহে পশ্চিমবঙ্গ আর বিহার রাজ্যে মোট দশটি জায়গায় উগ্র হিন্দুরা হামলা করেছিল।
ঘটনাগুলির তথ্যগুলো বিশ্লেষণ করে দেখা যাচ্ছে, একই ভাবে ওইসব অশান্তি শুরু হয়েছিল, হাজির ছিলেন একই ধরণের যুবকরা, তাদের গলায় ছিল একই ধরণের স্লোগান।
হামলার শিকারও হয়েছিলেন অনেক মুসলমান।
তাই এ অশান্তি, হিংসা বা অগ্নিসংযোগ কোনও সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা ছাড়াই, অনিয়ন্ত্রিতভাবে, হঠাৎ ঘটে গেছে - ঘটনাক্রম বিশ্লেষণ করে এরকমটা মনে করা কঠিন।
বিহার আর পশ্চিমবঙ্গের দাঙ্গা বা হিংসা কবলিত এলাকাগুলি থেকে যেসব প্রতিবেদন পাঠিয়েছিলেন, তার মধ্যে ৯টি বিষয় রয়েছে, যা প্রতিটি ঘটনার ক্ষেত্রেই মোটামুটিভাবে এক । কোথাও তা দাঙ্গার রূপ নিয়েছিল, কোথাও ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগের মধ্যেই শেষ হয়েছে।
এই ৯টি বিষয় থেকেই পরিষ্কার হয়ে যায় যে, দশটি আলাদা শহরে বিচ্ছিন্নভাবে, কোনও পরিকল্পনা ছাড়াই ওই হিংসাত্মক ঘটনাগুলি ঘটে নি।
*একই ধরণের নানা নামের সংগঠন উগ্র মিছিল বের করেছিল
১. উগ্র মিছিল, যুববাহিনী, গেরুয়া পতাকা, বাইক...
বিহারের ভাগলপুরে ১৭ই মার্চ সাম্প্রদায়িক অশান্তির শুরু। সেদিন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অশ্বিনী চৌবের পুত্র অর্জিত চৌবে 'হিন্দু নববর্ষে'র দিন এক শোভাযাত্রা বের করেছিল।
সেখান থেকে মুসলমানদের ওপরে একের পর এক হামলার ঘটনা ঘটে ওই রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায়।
প্রতিটা জায়গাতেই রামনবমীর দিন উগ্র মিছিল বার করা হয়েছিল। বাইকে চেপে যুবকরা ওইসব মিছিলে সামিল হয়েছিল। তাদের মাথায় গেরুয়া ফেট্টি ছিল। সঙ্গে ছিল গেরুয়া ঝান্ডা।
হিন্দু নববর্ষ দিনটিও নতুন আবিষ্কার হয়েছে। রামনবমীর শোভাযাত্রাও বেশীরভাগ শহরেই আগে বড় করে হতে দেখে নি কেউ।
২. শোভাযাত্রাগুলির আয়োজন করেছিল একই ধরণের নানা নামের সংগঠন
যে সব এলাকায় রামনবমীর শোভাযাত্রা থেকে অশান্তি ছড়িয়েছে, সেগুলির প্রত্যেকটিরই আয়োজন করেছিল একই ভাবধারার সংগঠন, যদিও একেক জায়গায় তাদের নাম ছিল একেক রকম।
সংগঠনগুলি প্রতিটি ক্ষেত্রেই ভারতীয় জনতা পার্টি, রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ আর বজরং দলের সঙ্গে কোনও না কোনওভাবে যুক্ত।
ঔরঙ্গাবাদ আর রোসড়ায় তো বিজেপি এবং বজরং দলের নেতারা সরাসরিই মিছিলে যোগ দিয়েছিলেন।
বেশ কয়েকটি জায়গায় দেখা গেছে অপরিচিত কিছু হিন্দুত্ববাদী সংগঠনও জমকালো শোভাযাত্রা বার করেছে।
পশ্চিমবঙ্গের আসানসোল-রাণীগঞ্জ বা পুরুলিয়া অথবা উত্তর ২৪ পরগণা জেলাগুলির যেসব অঞ্চলে সাম্প্রদায়িক অশান্তি ছড়িয়েছিল, সেখানেও বিজেপি নেতাদের সমর্থন ছিল রামনবমীর শোভাযাত্রাগুলিতে। তারা বিভিন্ন জায়গায় মুসলমানদের ঘরবাড়িতে আগুন দিয়েছিল।
৩. বিশেষ একটি রাস্তা ধরেই মিছিল নিয়ে যাওয়ার জেদ
অশান্তি ছড়িয়েছিল যেসব শহরে, তার প্রত্যেকটির ক্ষেত্রেই মুসলমান প্রধান এলাকা দিয়ে রামনবমীর শোভাযাত্রা নিয়ে যাওয়ার জন্য জিদ ধরা হয়েছিল। মিছিলের রুট পরিকল্পিতভাবেই মুসলমান প্রধান এলাকাগুলো দিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।
৪. উস্কানিমূলক স্লোগান আর ডিস্ক জকি
যেসব জায়গায় শোভাযাত্রা বের করা হয়েছিল, তার প্রতিটি জায়গাতেই মুসলমানদের 'পাকিস্তানী' বলা হয়েছে। বাজানো হয়েছে ডি জে-ও।
'যখনই হিন্দুরা জেগে উঠেছে, তখনই মুসলমানরা ভেগেছে' - এরকম স্লোগানও উঠেছে মিছিল থেকে।
ঔরঙ্গাবাদে কবরস্থানে গেরুয়া ঝান্ডা লাগিয়ে দেওয়ার ছবি এসেছে বিবিসি-র কাছে।
রোসড়ার 'তিন মসজিদ'-এ ভাঙ্গচুড় করে গেরুয়া ঝান্ডা লাগিয়ে দেওয়া হয়েছিল।
প্রত্যেকটা মিছিলেই একই ধরণের রেকর্ড করা গান বাজানো হয়েছিল।
৫. মাপা হিংসা, বাছাই করে অগ্নিসংযোগ
মানুষের জীবন-জীবিকার ক্ষতি যাতে হয়, সেরকমভাবেই হামলা হয়েছিল।
ঔরঙ্গাবাদে ৩০টি দোকান জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছিল - যার মধ্যে ২৯টি-ই মুসলমানদের দোকান। হিন্দুদের দোকানে নয়।
জেনে বুঝেই যে ঠিক মুসলমানদের দোকানেই আগুন দেওয়া হয়েছিল, সেটা বোঝাই যায়।
৬. প্রশাসনের ভূমিকা
বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা গেছে প্রশাসন একরকম নির্বাক দর্শকের ভূমিকায় থেকেছে।
ঔরঙ্গাবাদে ২৬ মার্চ যে মিছিল হয়েছিল, সেখান থেকে মসজিদের দিকে চপ্পল ছোঁড়া, কবরস্থানে গেরুয়া ঝান্ডা পুঁতে দেওয়া বা মুসলমানদের বিরুদ্ধে অপমানজনক স্লোগান দেওয়া হয়েছিল।
তবুও পরের দিন প্রশাসনিক কর্মকর্তারা মুসলমান-প্রধান এলাকা দিয়েই মিছিল করার অনুমতি দিয়েছিল।
ঔরঙ্গাবাদে দাঙ্গা কবলিত এলাকার মানুষ বলেছেন যে প্রশাসনের চোখের সামনেই শহর জ্বলছিল।
৭. মুসলমানদের মধ্যে আতঙ্ক, অন্যদিকে বিজয়ের আনন্দোল্লাস
ঔরঙ্গাবাদের এক বাসিন্দা ইমরোজ মধ্য প্রাচ্যে রোজগারের অর্থ জমিয়ে দেশে ফিরে এসে জুতোর ব্যবসা শুরু করেছিলেন।
তার দোকানও জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে।
এখন ইমরোজ ঠিক করেছেন এই দেশে আর ব্যবসা করবেন না। পরিবার নিয়ে তিনি হংকং চলে যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন।
অন্যান্য এলাকার মুসলমানরাও ভাবতে শুরু করেছেন যে ব্যবসা বোধহয় তুলেই দিতে হবে।
উল্টোদিকে ওই সব এলাকায় বসবাসকারী হিন্দু যুবকদের মধ্যে একটা জয়ের আনন্দ দেখতে পাওয়া গেছে।
ভাগলপুরের এক যুবক শেখর যাদব বুক চিতিয়ে বলছিলেন, “এইভাবেই জবাব দেওয়া হবে।"
*সমগ্র ভারত জুড়েই উগ্রবাদী হিন্দুদের আগ্রাসন বাংলাদেশেও যার প্রভাব পড়ছে।
*ভারতকে মুসলিম মুক্ত করার ঘৃণ্য চক্রান্তে মেতে উঠেছে। আসাম থেকে লক্ষ লক্ষ মুসলিমদের ভিটা বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করতে যাচ্ছে। এমনিভাবে আসানসোলে ইমাম সাহেবের যুবক ছেলেকে ভর দুপুরে হত্যা করেছে। মোট কথা মুসলমানদের রক্তের হোলিখেলায় মেতে উঠেছে সন্ত্রাসী মালাউনরা। তবুও কি তাদের বিরুদ্ধে জাগার সময় হয়নি? এখনো কি মনে করবেন গাযওয়াতুল হিন্দ অনেক দূরে? সর্বত্র হিন্দু গো রক্ষকরা মুসলমানদের মারছে, বাড়ি ঘর ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগ করছে! আর মুসলমানদের ভাবখানা যেন এমন হিন্দু মুসলিম ভাই ভাই জিহাদের কোন প্রয়োজন নাই!!!
তবে জেন রেখ! যতই ভাই ভাই বল তারা মুসলমানদের চির শত্রু। কখনো বন্ধু হবে না!!

কালো পতাকা
04-13-2018, 12:50 PM
ভাই মহান আল্লাহ হিন্দ আকসা ভাইয়ের মেহনত কবুল করুন করুন আমিন