Announcement

Collapse
No announcement yet.

প্রশ্নঃ ঃ "টাকাই সব "একথা বলা কি ঠিক?

Collapse
X
 
  • Filter
  • Time
  • Show
Clear All
new posts

  • প্রশ্নঃ ঃ "টাকাই সব "একথা বলা কি ঠিক?

    মুসাফির ১ ((২))

    প্রশ্ন ঃ "টাকাই সব "একথা বলা কি ঠিক?
    যারা বলে টাকাই সব তাদের নিকট প্রশ্ন
    আল্লাহ তাআলার বাণী
    [15] إِنَّما أَموٰلُكُم وَأَولٰدُكُم فِتنَةٌ ۚ وَاللَّهُ عِندَهُ أَجرٌ عَظيمٌ [15] তোমাদের ধন-সম্পদ ও সন্তান-সন্ততি তো কেবল পরীক্ষাস্বরূপ। আর আল্লাহর কাছে রয়েছে মহাপুরস্কার।
    التغابن/١٥ 63:9
    یٰۤاَیُّہَا الَّذِیۡنَ اٰمَنُوۡا لَا تُلۡہِکُمۡ اَمۡوَالُکُمۡ وَ لَاۤ اَوۡلَادُکُمۡ عَنۡ ذِکۡرِ اللّٰہِ ۚ وَ مَنۡ یَّفۡعَلۡ ذٰلِکَ فَاُولٰٓئِکَ ہُمُ الۡخٰسِرُوۡنَ ﴿المنافقون/9﴾ হে মুমিনগণ, তোমাদের ধন-সম্পদ ও সন্তান- সন্ততি যেন তোমাদেরকে আল্লাহর স্মরণ থেকে উদাসীন না করে। আর যারা এরূপ করে তারাই তো ক্ষতিগ্রস্ত।
    [১] এখানে আল্লাহ্ তা'আলা খাঁটি মুমিনদেরকে সম্বোধন করে সতর্ক করছেন যে, তোমরা মুনাফিকদের ন্যায় দুনিয়ার মহব্বতে মগ্ন হয়ে যেয়ো না।
    যেসব বিষয় মানুষকে দুনিয়াতে আল্লাহ থেকে গাফেল করে, তন্মধ্যে দুটি সর্ববৃহৎ বিষয়
    ১) ধন-সম্পদ । ২) সন্তান-সন্ততি।
    তাই এই দুটির নাম উল্লেখ করা হয়েছে। নতুবা দুনিয়ার যাবতীয় ভোগ-সম্ভারই উদ্দেশ্য। আয়াতের সারমর্ম এই যে, ধনসম্পদ ও সন্তানসন্ততির মহব্বত সর্বাবস্থায় নিন্দনীয় নয়। কিন্তু সর্বদা এই সীমানার প্রতি লক্ষ্য রাখতে হবে যে, এসব বস্তু যেন মানুষকে আল্লাহর স্মরণ থেকে গাফেল না করে দেয়।
    আল্লাহর স্মরণ এর অর্থ কি?
    এখানে "আল্লাহর স্মরণের অর্থ কোন কোন তফসীরবিদের মতে পাঁচ ওয়াক্ত সালাত, কারও মতে হজ ও যাকাত এবং কারও মতে কুরআন।
    * হাসান বসরী রাহিমাহুল্লাহ বলেনঃ আল্লাহকে স্মরণের অর্থ এখানে যাবতীয় আনুগত্য ও ইবাদত। [কুরতুবী,ফাতহুল কাদীর] 8:28

    وَ اعۡلَمُوۡۤا اَنَّمَاۤ اَمۡوَالُکُمۡ وَ اَوۡلَادُکُمۡ فِتۡنَۃٌ ۙ وَّ اَنَّ اللّٰہَ عِنۡدَہٗۤ اَجۡرٌ عَظِیۡمٌ ﴿الانفال/٪۲۸﴾ আর জেনে রাখ, তোমাদের ধন-সম্পদ ও সন্তান-সন্ততি তো ফিতনা। আর নিশ্চয় আল্লাহ, তাঁর নিকট আছে মহা পুরস্কার।
    [১] যেহেতু আল্লাহ ও বান্দার হকসমূহ আদায় করার ক্ষেত্রে গাফেলতী ও শৈথিল্যের কারণ সাধারণতঃ মানুষের ধন-দৌলত ও সন্তান-সন্ততিই হয়ে থাকে, কাজেই সে সম্পর্কে সতর্ক করার উদ্দেশ্যে বলা হয়েছে, “আর জেনে রেখো যে, তোমাদের ধন-সম্পদ ও সন্তান-সন্ততি তোমাদের জন্য ফেৎনা।" [সা’দী]
    'ফেৎনা’ শব্দের অর্থ পরীক্ষাও হয়; আবার আযাবও হয়। তাছাড়া এমনসব বিষয়কেও ফেৎনা বলা হয় যা আযাবের কারণ হয়ে থাকে। কুরআনুল কারীমের বিভিন্ন আয়াতে এই তিনটি অর্থেই ফেৎনা শব্দের ব্যবহার হয়েছে। বস্তুতঃ এখানে তিনটি অর্থেরই সুযোগ রয়েছে।

    হাদিস
    ٧٠- فتنةُ أمَّتي المالُ الذهبي (ت ٧٤٨)، تلخيص العلل المتناهية ٢٨٧ • فيه علي بن قتيبة كذاب
    আমার উম্মতের ফিৎনা হল মাল।
    ***
    আবু জেহেল , উতবা, শায়বাগণ তারা দিশেহারা হওয়ার পর তাদের পক্ষ হতে প্রস্তাব অর্থাৎ রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর নিকট মক্কার কাফেররা তিনটি প্রস্তাব পেশ করেছিল
    ১. যদি আপনার নেতৃত্ব উদ্দেশ্য হয় আপনাকে আমরা সবচেয়ে বড় নেতা বানিয়ে দিব।
    ২. যদি আপনার সুন্দরী নারী উদ্দেশ্য হয় সবচেয়ে বেশি সুন্দরী নারী আপনাকে বিবাহ করিয়ে দিব।
    ৩. যদি আপনার ধন -সম্পদ উদ্দেশ্য হয় তাহলে আমরা আপনাকে সবচেয়ে বড় ধনী বানিয়ে দিব।
    প্রশ্নঃ- যারা বলে " টাকাই সব " তাদের নিকট প্রশ্ন এব্যপারে আপনাদের মন্তব্য জানাবেন কি?
    ★ আসহাবে সুফফার সংখ্যা ৭০/৮০ মত অনাহারে অর্ধাহারে অথবা কয়েকদিন না খেয়ে ও তাদের দিন যেত অথচ তারা আসহাবে রাসূল, তাদের চিন্তা ধারা, বা এ ভাবে থাকাটা কি ভুল ছিল?
    স্বয়ং রাসূল উপস্থিত। তিনিও তো তাদেরকে কিছু বলেননি বা কাজের জন্য কিংবা অর্থ উপার্জনের জন্য বাধ্য করেননি। অথবা পরামর্শ ও দেননি।
    * এব্যপারে আপনাদের মন্তব্য জানাবেন কি?

    হাদীস শরীফে বর্ণিত আছে
    العلماء ورثة الانبياء والانبياء لم يورثوا دينارا ولا درهماوانما ورثوا العلم
    উক্ত হাদীস দ্বারা একথা স্পষ্ট যে, উলামায়ে কেরাম নবিগণের ইলমের উত্তরাধিকার, দিনার ও দিরহামের উত্তরাধিকার নয়। অবশ্যই তারা শুধু ইলমের উত্তরাধিকার।
    ★★★*★★*
    হযরত!(টাকাই সব) এ ব্যপারে কিছু আলোচনা পর্যালোচনা এসেছে এর সমাধান কি হতে পারে?

    حسبنا الله (হাসবুনাল্লাহ,)
    আল্লাহ তায়ালা আমাদের জন্য যতেষ্ঠ
    حسبي الله (হাসবিয়াল্লাহ,)
    আল্লাহই আমাদের জন্য যতেষ্ঠ
    كفي بالله (কাফাবিল্লাহ,)
    আল্লাহ তায়ালা যতেষ্ঠ
    ا ليس الله بكاف عبده (আ লাইসাল্লাহু বিকাফিন আব্দাহ,)
    আল্লাহ তায়ালা কি তার বান্দার জন্য যতেষ্ঠ নহেন?
    الله ربنا (আল্লাহু রাব্বুনা,)
    আল্লাহ আমাদের প্রতিপালক, যার লালন পালনের দায়িত্ব আল্লাহর তার জন্য আর কিছুর প্রয়োজন আছে কি?

    و هو يتولي الصالحين (ওয়া হুয়া ইয়াতাওয়াল্লাচ্ছালিহীন,)
    তিনি সৎ কর্মশ্লিদের অভিভাবক।
    نعم الوكيل (নি'মাল ওয়াকীল,)
    উতকৃষ্ট কর্ম বিধায়ক,
    و من يتوكل علي الله فهو حسبه (ওয়া মায়য়াতাওয়াক্কাল আলাল্লাহি ফাহুয়া হাসবুহ,)
    যে আল্লাহর উপর ভরসা করে তিনি তার জন্য যতেষ্ঠ।
    اسلمت وجهي لله (আসলামতু ওয়াজহিয়া লিল্লাহ)
    আল্লাহর জন্য আমার সত্বাকে সমর্পন করে দিলাম,
    و افوض امري الي الله (ওয়া উফাভভিদ্ব্যু আমরি ইলাল্লাহ ,)
    আল্লাহর নিকট আমার সব কিছু সমর্পন করছি, আল্লাহ আমাদের রব তিনি আমাদের সব।
    তাক্বওয়া হলো সব সফলতার চাবি কাঠি , মুত্তাকিরাই হলো আল্লাহর ওয়ালি , যাদের কোন ফরজ ছুটে না কোন হারামে জড়িত নেই।
    نعم المال الصالح للرجل الصالح (নিয়মাল মালুচ্ছালিহু লিররাজুলিচ্ছালিহি ,)
    নেক কার দের জন্য সম্পদ যা হালাল্ভাবে উপার্জনের পর আল্লহর পথে ব্যয় হয় তাদের চমৎকার সহায়ক, স্বাভাবিক লোকদের জন্য সম্পদ নিয়ামত যার সম্পর্কে জিজ্ঞাসিতি হবে,এর হিসেব দিয়ে জান্নাতে যেতে তার দেরি হবে। আর বদকারের জন্য আযাব।
    এই কারনে সে দুনিয়ায় আরো অবাধ্যতায় লিপ্ত হয় পরকালে শাস্তি পেতে হবে। হালাল রিজিক তালাশ করা অর্থাৎ হারাম সন্দেহ থেকে বেচে থাকা অন্যান্য ফরজের পর ফরজ, বেশী সম্পদ উপার্জন ফরজ নয়, ওয়াজিব ও নয় , মুস্তাহাব ও নয়, বরং এর প্রতি অনুৎসাহিত করা হয়েছে । আল্লাহ তায়ালা দুনিয়ার বিভিন্ন সম্পদশিলদের কাছে থাকা এই চাকচিক্যময় উপভোগ্য সম্পদের দিকে চোখ তুলে তাকিয়ে থাকতে নিষেধ করেছেন।

  • #2
    হ্যাঁ আমি সত্যায়ন করছি যে, "টাকাই সব" বা "টাকা ছাড়া আজ-কাল কি হয়?" এমন ধরণের কথা বলা কি ঠিক নয়। জোরের সাথে এমন কথা বলা যথেষ্ট দৃষ্টিকটু।

    আবার কোনো একটি বিষয় নিয়ে এক পাক্ষিক আলোচনা করাও আমি ব্যক্তিগতভাবে পছন্দ করি না। ছাড়াছাড়ি না করা আবার বাড়াবাড়িও না করা; এমনটাই উত্তম।
    অসৎ আনন্দের চেয়ে পবিত্র বেদনা অনেক মধুর।

    Comment

    Working...
    X