Announcement

Collapse
No announcement yet.

‘নিরাপত্তা ঘাটতি’ দেখিয়ে দিল জঙ্গি ছিনিয়ে নেওয়া’ -প্রথম আলো

Collapse
X
 
  • Filter
  • Time
  • Show
Clear All
new posts

  • ‘নিরাপত্তা ঘাটতি’ দেখিয়ে দিল জঙ্গি ছিনিয়ে নেওয়া’ -প্রথম আলো

    জীবনে এত খুশি কখনো হই নি গতকালের খবরগুলো পড়ে যেভাবে খুশি হয়েছি। কারন , আফগান বা সোমালিয়া যত বিজয়ই হোক নিজেদের ফরজ কাজগুলো আঞ্জাম দিতে না পারলে তেমন খুশি হওয়া যায় না । সবই ঠিক আছে কিন্তু আমার কাজগুলো তো অগুছালো রয়ে গেছে । আফগান বিজয় হলো , আফ্রিকা বিজয় হলো , উম্মাহর এসব বিজয় অবশ্যই একজন মুমিনের জন্য অতি আনন্দের । এমন বিজয়ে খুশি হওয়া ঈমানের দাবি । কিন্তু এই বিজয়গুলো আমাকে আরেকটা বার্তা দেয় যা বেদনাদায়ক । তা হচ্ছে , একই জামানায় একই রক্তে মাংসে গড়া কিছু যুবক বিজয় ছিনিয়ে নিয়ে আসছে আর আমরা আল্লাহর দরবারে দাড়ানোর জন্য কিছুই করতে পারি নি । এই বেদনা আমাকে আফগান বিজয়েও খুব আনন্দিত হতে দেয় নি । ইয়ামানিরা নিজদের ভাইদেরকে কারাগার থেকে ছিনিয়ে নিয়েছে কিন্তু আমি তো বাংলার প্রানের ভাইদের জন্য কিছুই করতে পারি নি । আফগান বিজয় হয়েছে কিন্তু হিন্দুস্তানে তো এখনো 'জয় শ্রী রাম' বলতে বাধ্য করা হচ্ছে ! কবে বাংলার আকাশে কালেমার পতাকা উড়বে এই আশায় মনের ভিতর কষ্টের ক্ষত এত গভির হয়েছিল যে দিন রাত ব্যথায় কাতরাতাম। সবশেষ উম্মাহ স্টুডিও-র 'ওগো প্রিয় ভাই' নাশিদটি বেদনা আরো বাড়িয়ে দিয়েছিল । কবে আমি ফরজিয়্যাতের এই চাপ থেকে মুক্তি পাব ।
    গতকালের মহান এক অপারেশন ঘুমন্ত হৃদয়ে আবারো আনন্দের জোয়ার বইয়ে দিয়েছে । হারানো উদ্যমতা ফিরে পেয়েছি । একটু আনন্দ করতে মন চাচ্ছে । এ যেন আফগান বিজয়ের চেয়েও বেশি আনন্দের ! নাশিদের কারনে যতটুকু ক্ষত অন্তরে সৃষ্টি হয়েছিল তা উপশম হতে খুব দেরি হবে না ভাবতেও পারি নি । আমার তো আর কিছু করার ক্ষমতা ছিল না । শুক্রিয়াতান একটা রোজা রাখতে পেরেছি মাত্র । তাহাজ্জুদের সময় দুআ করার জন্য তাড়াতাড়ি (রাত ২ টায় , আনন্দে ঘুম আসছিল না ) ঘুমিয়েছিলাম , কিন্ত শয়তান দিল না ! দুআ করি যেন আমাদের প্রতিটি ভাইকে এভাবে মুক্ত করতে পারি । আর মুক্তির এই কাফেলায় অবদান রাখার তাউফিক আমিও যেন পাই ।
    ইস ! সিসিটিভিতে দেখা বাইকওয়ালা যদি আমি হতাম ! অথবা এই বাইকওয়ালা ভাইয়ের জুতোটা একদিন এগিয়ে দিতে পারতাম ! তিনি যখন বাইক চালিয়ে যাচ্ছিলেন , আর পিছনে ২ ভাইকে রেখেছিলেন তখন কেমন লেগেছিল ? যদি জিজ্ঞেস করতে পারতাম ! ইস ! আমি যদি ঐ পুলিশের গায়ে তাপ্পর দেয়ার মাঝে শরিক থাকতে পারতাম ! পিছনে দাওয়া করা পুলিশের গায়ে একটা পাথর ছুড়ে মারার সুযোগ পেতাম । ইস ! অপারেশনের সময় যদি আমি সেখানে থাকতাম আর নিজ চোখে তা দেখতে পারতাম !
    তারা কত মহান ! তাদের ঈমানে কত উত্তাপ ! সারাটি দিন তাদের বডির দিকে তাকিয়ে থাকি । এক মুহূর্তের জন্যও চোখ সরাতে মন চায় না । আহ ! আমি যদি তাদের কাফেলার একজন হতাম !
    যতগুলো পত্রিকা নিউজ করেছে , যতগুলো টিভি নিউজ করেছে একটাও বাদ রাখি নি । সব দেখেছি । অনলাইনে হন্য হয়ে খুজেছি আরো কোন নিউজ আছে কি না ! একই খবর কতবার যে পড়েছি ! যতবার পড়ি ততবার আনন্দ পাই । আরো পড়তে মন চায় !
    মুহতারাম আমির শাইখ খালেদ আল-বাতরাফিকে কারাগার থেকে মুক্ত করার ভিডিও-টা দেখেছিলাম আর আফসোস করেছিলাম যদি আমিও এমন কাজে অবদান রাখতে পারতাম । অথবা আমার ভাইদেরকেও যদি এভাবে মুক্ত করে আনতে পারতাম ! গতকালের নিউজ আমাকে সেই আফসোস কিছুটা কমিয়ে দিয়েছে । সারাদিন শুধু কল্পনা করেছি , আরো কী কী কৌশলে ভাইদেরকে মুক্ত করা যায় । আমি যদি পারতাম !
    আল্লাহ তা'আলা আমার হিম্মত বাড়িয়ে দাও যেন ভিতরে থাকা প্রত্যকে ভাইকেই মুক্ত করে নিয়ে আসতে পারি !
    আল্লাহ তা'আলা প্রিয় ভাইদেরকে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দিন । আমীন ।

  • #2
    জাযাকাল্লাহমুহতারাম, মনের কথাগুলো বলার জন্য। 🥰 🥰
    “রক্তের বদলে রক্ত, ধ্বংসের বদলে ধ্বংস”
    আমরা মহান আল্লাহকে সাক্ষী রেখে বলছি–
    আমরা তোমাদের ছেড়ে দিবো না, যতক্ষণ না আমাদের বিজয় আসে, কিংবা আমরা সেই স্বাদ আস্বাদন করি যে স্বাদ আস্বাদন করেছিলেন;
    হামযা ইবনু আব্দিল মুত্তালিব রদিয়াল্লাহু আনহু।

    Comment


    • #3
      আসসালামু আলাইকুম। ভাই আ‌মিও ভি‌ডিও দেখ‌তে‌ছিলাম, আর ম‌নে হই‌তে‌ছিল আ‌মিও কোন এক‌দিন এভা‌বে ব‌ন্দি ভাই‌দের ছি‌নি‌য়ে আনবো। ইনশাআল্লাহ। মা‌ঝে মা‌ঝে মন চায় ভাই‌দের স‌ঙ্গে কারাগা‌রে গি‌য়ে দেখা ক‌রি।

      Comment


      • #4
        তাগুতের মসনদে কম্পন; তৎপরতা ও ফাকা বুলি

        এ ঘটনার পর সারা দেশে রেড অ্যালার্ট’ (সর্বোচ্চ সতর্কতা) জারি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মো. আসাদুজ্জামান খান।
        এদিকে জঙ্গি ছিনতাইয়ের ঘটনা তদন্তে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)কমিটিকে তিন দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দিয়েছেন ডিএমপি কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুক।
        আপিল বিভাগের রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ সাইফুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, সারা দেশের আদালত ও আদালত প্রাঙ্গণের নিরাপত্তাব্যবস্থা জোরদার করতে যথাযথ কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।
        নিজদের মধ্যে সন্দেহ সৃষ্টি

        আদালত প্রাঙ্গণ থেকে দুই জঙ্গিকে ছিনিয়ে নেওয়ার বিষয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমি ও আইনমন্ত্রী একসঙ্গে বসে বলে দিয়েছিলাম, মৃত্যুদণ্ড পাওয়া আসামিদের আদালতে আনতে হবে না; যেহেতু তাদের ফাঁসির আদেশ হয়েই গেছে। এই আদেশ কেন মানা হলো না, তা খতিয়ে দেখা হবে।
        এ ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে আদালতের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশের একজন পরিদর্শকসহ পাঁচজনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে ।
        আজ সোমবার রাজধানীর ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) প্রধান মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ।
        ডান্ডাবেড়ি আর রিমান্ডেই যা পার ! হাতকড়া খুললে কিল ঘুষিও নিতে পার না ।

        ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (সিজেএম) আদালতের ফটকের সামনে থেকে রোববার দুপুরে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই জঙ্গিকে ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ১০ জনের ১০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালত এই আদেশ দেন। প্রথম আলোকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের অপরাধ ও তথ্য বিভাগের উপপরিদর্শক (এসআই) আশরাফ উদ্দিন।
        ব্যর্থতা ঢাকতে অর্থলোভের আশ্রয়

        জঙ্গিদের ধরতে পারলে ১০ লাখ টাকা করে পুরস্কার, দেশজুড়ে রেড অ্যালার্ট: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
        আগেও (শাতিমে রাসুল ) অভিজিৎ রায়ের হত্যাকারিদেরকে ধরতে পারলে আমেরিকা নিজেই মিলিয়ন ডলার দিবে বলে পুরষ্কার ঘোষনা দিয়েছি
        কাউকে গ্রেপ্তারের পূর্বেই মাষ্টারমাইন্ড চিহ্নিত !
        ভাগ নাই মুরগীর হাত পাতিল বইদা !

        ঢাকার আদালতপাড়া থেকে জঙ্গি ছিনিয়ে নেওয়ার নেতৃত্ব দেওয়া ব্যক্তিকে চিহ্নিত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান মো. আসাদুজ্জামান।
        সোমবার (২১ নভেম্বর) সন্ধ্যায় ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে সাংবাদিকদের এ তথ্য দেন তিনি।
        আসাদুজ্জামান বলেন, জঙ্গি ছিনিয়ে নেওয়ার নেতৃত্বদানকারী ব্যক্তি ছাড়াও তার আরও কয়েকজন সহযোগীর নাম পাওয়া গেছে। তবে অপারেশন ও তদন্তের স্বার্থে তাদের নাম এ মুহূর্তে আপনাদের সামনে প্রকাশ করতে চাচ্ছি না। এ পরিকল্পনা কীভাবে হয়েছে সেটাও আমরা আমাদের গোয়েন্দা তথ্যের মাধ্যমে অবহিত হয়েছি। এ মুহূর্তে তাদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় নিয়ে আসাই হচ্ছে প্রধান কাজ। সেজন্য তিনি সাংবাদিক ও দেশবাসীর সহযোগিতা কামনা করেন।
        নাকের ডগায় মাছি দেখে না , সীমান্তে নিরাপত্তা !

        দুই জঙ্গি ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনার পর বেনাপোল স্থলবন্দরসহ দেশজুড়ে রেড অ্যালার্টজারি করা হয়েছে।
        চুর গেলে বুদ্ধি বাড়ে

        ঢাকার আদালতে নিরাপত্তা বেড়েছে, ফটকে পুলিশ । একটা আদালতেই ৩ প্লাটুন পুলিশ মোতায়ন।

        Comment


        • #5
          সুবহানাল্লাহ, মনের কিছু জমানো কথা, সময় সুযোগে কলমের খোঁচায় তুলে ধরার সুযোগ পাচ্ছিলাম না! কিন্তু সব কথাই যেন, এখানে চলে আসল। বেশিই পেলাম।

          Comment


          • #6
            খুব দুর্দান্ত একটি অপারেশন। যারা কাজটি করেছে তাদের প্রতি শুভকামনা রইল।
            পৃথিবীর রঙ্গে রঙ্গিন না হয়ে পৃথিবীকে আখেরাতের রঙ্গে রাঙ্গাই।

            Comment


            • #7
              আল্লাহ আমাদের এই ঘটনা থেকে শিক্ষা গ্রহণ করার তোফিক দান করেন, সকল আলেম কে তাগুত থেকে ছিনিয়ে আনার তফিক দিন

              Comment

              Working...
              X