Page 2 of 2 FirstFirst 12
Results 11 to 16 of 16
  1. #11
    Media Al-Firdaws News's Avatar
    Join Date
    Sep 2018
    Posts
    3,203
    جزاك الله خيرا
    30
    10,406 Times جزاك الله خيرا in 3,189 Posts
    পিএইচডি গবেষণার ৯৮% নকল: শিক্ষা ব্যবস্থার করুণ অবস্থা



    পিএইচডি অভিসন্দর্ভে ৯৮ ভাগ নকল করার অভিযোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওষুধপ্রযুক্তি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আবুল কালাম লুৎফুল কবীরকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ও শিক্ষা কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর ছিলেন।

    গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সভায় এই সিদ্ধান্ত অনুমোদিত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে সভা অনুষ্ঠিত হয়।

    পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তর থেকে সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে সভার সিদ্ধান্ত জানানো হয়। শিক্ষক আবুল কালাম লুৎফুর কবীরকে অব্যাহতির পাশাপাশি অভিযোগটি তদন্তে একটি কমিটিও করা হয়েছে।

    শিক্ষা ব্যবস্থায় এমন উদাহরণ শুধু যে একটাই এমন নয়। হাজার হাজার পিএইচডি হচ্ছে এমনই সব ঠুনকো ব্যবস্থায়। কে কিভাবে ডিগ্রি নিচ্ছে তার যেন কোন ব্যবস্থাপনাই নেই। অসাড় সব বিচ্ছিন্নতায় দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা!

    সূত্রঃ প্রথম আলো


    সূত্র: https://alfirdaws.org/2020/01/30/32239/
    আপনাদের নেক দোয়ায় আমাদের ভুলবেন না। ভিজিট করুন আমাদের ওয়েবসাইট: alfirdaws.org

  2. The Following 2 Users Say جزاك الله خيرا to Al-Firdaws News For This Useful Post:

    abu mosa (2 Weeks Ago),Munshi Abdur Rahman (2 Weeks Ago)

  3. #12
    Media Al-Firdaws News's Avatar
    Join Date
    Sep 2018
    Posts
    3,203
    جزاك الله خيرا
    30
    10,406 Times جزاك الله خيرا in 3,189 Posts
    মা বয়স্ক ভাতার কার্ডটাও দেইখ্যা মরতে পারলো না



    ট্যাহা-পয়সা পাওয়া তো দূরের কথা, মা বয়স্ক ভাতার কার্ডটাও দেইখ্যা মরতে পারলো না। বাবা মইরে যাওয়ার পর কতই না কষ্ট কইরা আমাগোর চার ভাই-বোনরে মানুষ করছে, বিয়ে-শাদিও দিছে। শেষ বয়সে আইসা একটা বয়স্ক ভাতার কার্ডের জন্য চেয়ারম্যান-মেম্বরদের বাড়ি বাড়ি কতই না ঘুরছে। ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের লাশ ঘরের সামনে স্বজনদের জড়িয়ে ধরে এভাবেই আহাজারি করতে করতে কথাগুলো বলছিলেন বয়স্ক ভাতার কার্ড আনতে গিয়ে নিহত সাহারা বানুর ছোট মেয়ে রাজিয়া খাতুন (২০)।

    ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ সড়কের গৌরীপুরের কলাতাপাড়ায় বাস-অটোরিকশা সংঘর্ষে সাহারা বানু নিহত হন। এই দুর্ঘটনায় তিনিসহ ভাংনামারি ইউনিয়নের উজান কাশিয়াচর গ্রামের চার জন মারা যান।

    রাজিয়া আরও জানান, ১৪ বছর আগে অসুস্থ হয়ে বাবা মারা যাওয়ার পর মানুষের বাড়ি বাড়ি কাজ করে এবং পরের সাহায্য সহযোগিতা এনে মা তাদের খাইয়ে বড় করেছে। বড় দুই ভাই বিয়ে করে এখন আলাদা থাকে। তাদের দুই বোনকেও বিয়ে দিয়েছেন পাশের গ্রামে। বোনরা মাঝেমধ্যে এসে মায়ের খোঁজ খবর নিলেও ভাই ও তাদের বউরা কোনও খোঁজ নেয় না। বুড়ো বয়সেও তার মা পরের বাড়ি কাজ করে যা পায় তা দিয়েই চলছিলেন। অবশেষে চেয়ারম্যান একটা বয়স্ক ভাতার কার্ডের ব্যবস্থা করে দিবে বলে উপজেলা সমাজসেবা অফিসে কাগজ জমা দেওয়ার জন্য বলেছিল। বয়স্ক ভাতার কার্ডের কাগজ জমা দিতে গিয়ে এভাবে তার মা মারা যাবে এটা কিছুতেই মানতে পারছেন না তিনি।

    প্রতিবেশী রমজান ফকির বলেন, স্বামী আব্দুল হালিম মারা যাওয়ার পর মানুষের বাড়িঘরে কাজ করে সাহারা বানু ছেলেমেয়েদের বড় করেছেন। বড় হয়ে ছেলেরা মায়ের খোঁজ খবর নিতো না। মাঝেমধ্যে স্বামীর বাড়ি থেকে এসে দুই মেয়ে মাকে দেখতে আসতো। মারা যাওয়ার আগেও সাহারা বানু খুব কষ্ট করে গেছেন।

    গৌরীপুর ভাংনামারি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মফিজুন নূর খোকা বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, গত দুই থেকে তিন বছরের মধ্যে অনেকবার সাহারা বানু একটি বয়স্ক ভাতার কার্ডের জন্য ইউনিয়ন পরিষদে এসেছেন। বেশ কয়েকবার তার সঙ্গেও দেখা করেছেন। তাকে কার্ড দেওয়ার আশ্বাসও দেওয়া হয়েছিল।

    গত বুধবার দুপুরে কাগজপত্র জমা দিয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় সাহারা বানু মারা যাবে এটা খুবই দুঃখজনক।

    উল্লেখ্য, বুধবার দুপুরে গৌরীপুরের কলতাপাড়ায় বাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষে গৌরীপুরের উজান কাশিয়াচরের রাবেয়া খাতুন (৮০), রাবেয়ার পুত্র লাল মিয়া (৫৫), সাহারা বানু(৬৫) ও অটোরিকশা চালক রফিকুল ইসলাম (৫০) মারা যান।


    সূত্র: https://alfirdaws.org/2020/01/30/32233/
    আপনাদের নেক দোয়ায় আমাদের ভুলবেন না। ভিজিট করুন আমাদের ওয়েবসাইট: alfirdaws.org

  4. The Following 2 Users Say جزاك الله خيرا to Al-Firdaws News For This Useful Post:

    abu mosa (2 Weeks Ago),Munshi Abdur Rahman (2 Weeks Ago)

  5. #13
    Media Al-Firdaws News's Avatar
    Join Date
    Sep 2018
    Posts
    3,203
    جزاك الله خيرا
    30
    10,406 Times جزاك الله خيرا in 3,189 Posts
    সীমান্ত হত্যা বন্ধের দাবিতে পঞ্চম দিনেও ঢাবি শিক্ষার্থীর অবস্থান



    ভারতীয় সীমান্তরসন্ত্রাসীদের হাতে বাংলাদেশিদের হত্যার প্রতিবাদে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন এক শিক্ষার্থী। বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের এমবিএর শিক্ষার্থী নাসির আবদুল্লাহ বুধবার (২৯ জানুয়ারি) পঞ্চম দিনের মতো অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন।

    সীমান্তে হত্যা বন্ধে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দৃশ্যমান পদক্ষেপ না দেখা পর্যন্ত এ কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন ওই শিক্ষার্থী। অবস্থান কর্মসূচি থেকেই আগামী রবিবার (২ ফেব্রুয়ারি) এমবিএর পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার কথাও জানিয়েছেন তিনি।

    সীমান্ত হত্যা বন্ধে অবস্থান কর্মসূচির পাশাপাশি গণস্বাক্ষর কর্মসূচি শুরু করেছেন শিক্ষার্থী নাসির আবদুল্লাহ। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ আরও অনেকে ওই শিক্ষার্থীর দাবির সঙ্গে সংহতি জানিয়েছেন।

    গণস্বাক্ষর খাতায় ছাত্র ফেডারেশনের একজন লিখেছেন, মানুষ নিষ্ক্রিয় থাকলেও যে নিরাপদ থাকে না, সীমান্ত হত্যা তারই প্রমাণ।

    তারেক হাসান নির্ঝর নামের অপর এক শিক্ষার্থী লিখেছেন, সীমান্তে হত্যার প্রতিবাদে নাসির আবদুল্লাহ যে অবস্থান কর্মসূচি নিয়েছেন, তার দাবির সঙ্গে আমি একাত্মতা প্রকাশ করছি।

    প্রসঙ্গত, গত শনিবার (২৫ জানুয়ারি) থেকে সীমান্তে মানুষ হত্যার প্রতিবাদে রাজু ভাস্কর্যে লাগাতার অবস্থান কর্মসূচি পালন করে আসছেন ওই শিক্ষার্থী।

    সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন


    সূত্র: https://alfirdaws.org/2020/01/30/32232/
    আপনাদের নেক দোয়ায় আমাদের ভুলবেন না। ভিজিট করুন আমাদের ওয়েবসাইট: alfirdaws.org

  6. The Following 2 Users Say جزاك الله خيرا to Al-Firdaws News For This Useful Post:

    abu mosa (2 Weeks Ago),Munshi Abdur Rahman (2 Weeks Ago)

  7. #14
    Media Al-Firdaws News's Avatar
    Join Date
    Sep 2018
    Posts
    3,203
    جزاك الله خيرا
    30
    10,406 Times جزاك الله خيرا in 3,189 Posts
    মানব রচিত কুফরী গণতন্ত্রের প্রতি মানুষ চরম অসন্তুষ্ট!



    বর্তমান সময়ে গণতন্ত্রের প্রতি মানুষ চরম অসন্তুষ্ট বলে এক জরিপে উঠে এসেছে। আর গণতন্ত্রের প্রতি মানুষের অসন্তুষ্টির এ মাত্রা রেকর্ড উচ্চপর্যায়ে রয়েছে। সম্প্রতি কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের চালানো এক জরিপে এসব তথ্য উঠে এসেছে। জরিপের ফলাফলে সতর্ক করে বলা হয়েছে, বিশ্বের দেশে দেশে গণতন্ত্রের প্রতি আস্থা এখন উদ্বেগের পর্যায়ে রয়েছে।

    বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, উন্নত বিশ্বের দেশগুলোয় গত ২৫ বছরের মধ্যে গণতন্ত্রের প্রতি অসন্তুষ্টি সর্বোচ্চ পর্যায়ে রয়েছে। গবেষকেরা বলছেন, সবচেয়ে বেশি বা উচ্চমাত্রায় অসন্তুষ্টি যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রে।

    কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার অব দ্য ফিউচার অব ডেমোক্রেসি নামের একটি বিভাগ এ জরিপ চালায়। ১৯৯৫ সাল থেকে এটি গণতন্ত্র নিয়ে কাজ করে আসছে। তাদের জরিপে দেখা যাচ্ছে, গণতন্ত্রের প্রতি অসন্তুষ্টির মাত্রা ১০ ধাপ বেড়ে ৪৮ থেকে ৫৮ হয়েছে। এটি এখন পর্যন্ত গণতন্ত্রের প্রতি অসন্তুষ্টির সর্বোচ্চ পর্যায়।

    গবেষকেরা বলছেন, গণতন্ত্রের প্রতি মানুষের মনোভাব জানার ক্ষেত্রে ৪০ লাখ লোকের ওপর সাড়ে তিন হাজার জরিপ চালানো হয়। আর সবচেয়ে বেশি বা উচ্চমাত্রায় অসন্তুষ্টি যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রে। জরিপ পরিচালনকারীদের একজন রবার্তো ফাও বলেন, বিশ্বে গণতন্ত্রের অবস্থা অস্বস্তি বা উদ্বেগের মধ্যে রয়েছে।

    রবার্তো ফাও বলেন, আমরা দেখেছি, বিশ্বে গণতন্ত্রের প্রতি অসন্তুষ্টির মাত্রা বেড়ে চলেছে দিনকে দিন। অসন্তুষ্টি বাড়তে বাড়তে এখন সর্বোচ্চ পর্যায়ে রয়েছে। গণতন্ত্রের প্রতি অসন্তুষ্টির মাত্রা সবচেয়ে বেশি উন্নত বিশ্বে।

    কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার অব দ্য ফিউচার অব ডেমোক্রেসির গবেষকেরা বিশ্বের ১৫৪টি দেশ থেকে তথ্য সংগ্রহ করেছেন। মানুষের কাছে তাঁদের প্রশ্ন ছিল, নিজ দেশের গণতন্ত্রের প্রতি আপনারা সন্তুষ্ট নাকি অসন্তুষ্ট।

    গত এক দশকে গণতন্ত্রের অগ্রহণযোগ্যতা বাড়তে শুরু করেছে। বেশির ভাগ দেশে গণতন্ত্রের প্রতি মানুষের আস্থা চলে যাচ্ছে অনাস্থার দিকে।

    সমীক্ষায় বলা হয়েছে, গণতন্ত্রের প্রতি এই অসন্তুষ্টি ২০০৮ সালের অর্থনৈতিক মন্দা ও ২০১৫ সালের বৈশ্বিক শরণার্থী সংকটের প্রতিধ্বনিও হতে পারে। আবার এ অসন্তুষ্টি রাজনৈতিক ও সামাজিক পুনর্বিবেচনার প্রতিফলনও হতে পারে।

    জরিপে বলা হয়, ২০০৫ সাল থেকে এটি নিম্নমুখী হয়েছে। বলা হচ্ছে, বৈশ্বিক প্রবণতা, আর্থিক সংকট ও দেশটির পার্লামেন্ট সদস্যদের অর্থ ব্যয় নিয়ে বিতর্কিত ঘটনার কারণেই গণতন্ত্র থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে মানুষ।

    গবেষকেরা বলছেন, গণতন্ত্রের প্রতি অসন্তুষ্টি একটি সাম্প্রতিক প্রবণতা। গত বছরের ডিসেম্বরে সাধারণ নির্বাচনের আগে করা এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, গণতন্ত্রের প্রতি অসন্তুষ্টির মাত্রা পৌঁছেছে ৬১ শতাংশে। অথচ ১৯৯৫ সালে যুক্তরাজ্যে গণতন্ত্র নিয়ে অসন্তুষ্টি ছিল ৪৭ শতাংশ। ২০০৫ সালে তা ছিল ৩৩ শতাংশ।

    এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রেও গণতন্ত্রের প্রতি অসন্তুষ্ট মানুষের সংখ্যা বাড়ছে। ১৯৯৫ থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত দেশটিতে গণতন্ত্রের প্রতি মানুষের সন্তুষ্টির মাত্রা ছিল প্রায় ৭৫ শতাংশ। এরপরই তা কমতে শুরু করে। বর্তমানে সেটি ৫০ শতাংশের নিচে নেমে এসেছে। গবেষকেরা বলছেন, অর্থনৈতিক কেলেঙ্কারি, রাজনৈতিক মেরুকরণসহ বিভিন্ন কারণে গণতন্ত্রের প্রতি অসন্তুষ্ট হচ্ছে মার্কিনরা।

    রবার্তো ফাও বলেন, গণতন্ত্রের প্রতি আস্থা কমছে, কারণ গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলো সংকটকালে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারছে না। আর এই প্রবণতা বিশ্বের প্রতি হুমকিও বটে। এর কারণে অর্থনৈতিক ঝক্কি বাড়তে পারে।


    সূত্র: https://alfirdaws.org/2020/01/30/32287/
    আপনাদের নেক দোয়ায় আমাদের ভুলবেন না। ভিজিট করুন আমাদের ওয়েবসাইট: alfirdaws.org

  8. The Following 4 Users Say جزاك الله خيرا to Al-Firdaws News For This Useful Post:

    খুররাম আশিক (2 Weeks Ago),abu mosa (2 Weeks Ago),Munshi Abdur Rahman (2 Weeks Ago),Secret Mujahid (2 Weeks Ago)

  9. #15
    Senior Member
    Join Date
    Aug 2018
    Location
    hindostan
    Posts
    1,367
    جزاك الله خيرا
    6,033
    3,403 Times جزاك الله خيرا in 1,201 Posts
    হিন্দুস্থান অঞ্চলের সাপের মাথা হলো ভারত তথা বর্তমান ইন্ডিয়া। তুলনামূলকভাবে ইন্ডিয়ান মুসলিম অন্যান্য দেশের মুসলিমদের থেকে অনিরাপদ। ইন্ডিয়াতে মুসলিমদেরকে কচুকাটা করার ইতিহাস নতুন নয়। সেই সাদাবল্লুক থেকে আজকের মোদি। মাঝ খানে শুধু রক্ত আর রক্ত। এমেরিকার অভ্যন্তরে মুসলিমরা যারা আছেন তারা ইন্ডিয়ান মুসলিমদের থেকে অনেক অনেক নিরাপিদে আছেন। এমেরিকা নিজের দেশের মুসলিমদের নির্যাতন কম করে। এটি এমেরিকার একটি কৌশল। আমাদের দেশের মধ্যে যতগুলো দল আছে, ইসলাম ও মুসলিমদের সব চেয়ে বেশি নির্যাতন কিরে আওমেলীগ। আমাদের বাংলাদেশে আওয়ামীলীগের দ্বারা মুসলিমরা দেশ ভাগের পর থেকেই নির্যাতিত হয়ে আসছে। বর্তমান আওয়ামী লীগের একটি কৌশল হলো শত্রু কমিয়ে ফেলা। তাদের কৌশল হলো শত্র কমিয়ে ফেলা, নিজেদের আদর্শে পরিবর্তন আনা নয়। তাই তারা কওমির হুজুরদের সাথে সখ্যতা গড়ে তুলেছে। কওমিদের চুপ রাখার জন্য কওমিদের কিছু দাবী দাওয়া মেনে নিয়েছে। আমাদের কওমিরা বিষয়টি ভুলে চলবে না। এদেশে ইসলামের বড় শত্রু হলো এই আওয়ামীলীগ।
    والیتلطف ولا یشعرن بکم احدا٠انهم ان یظهروا علیکم یرجموکم او یعیدو کم فی ملتهم ولن تفلحو اذا ابدا

  10. The Following 2 Users Say جزاك الله خيرا to খুররাম আশিক For This Useful Post:

    abu mosa (2 Weeks Ago),Secret Mujahid (2 Weeks Ago)

  11. #16
    Senior Member abu mosa's Avatar
    Join Date
    May 2018
    Posts
    1,172
    جزاك الله خيرا
    7,184
    1,785 Times جزاك الله خيرا in 858 Posts
    হে আল্লাহ আপনি মুসলমানদেরকে হেফাজত করুন,আমিন।
    হয়তো শরিয়াহ, নয়তো শাহাদাহ,,

Similar Threads

Posting Permissions

  • You may not post new threads
  • You may not post replies
  • You may not post attachments
  • You may not edit your posts
  •