ইসলামিক এমিরাটস অফ আফগানিস্তানে ১৬ জিলহজ , বুধবার ১৪৩৬/৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৫ এ সংঘঠিত আক্রমণের তালিকা


১। ফারাহ প্রদেশের খাক-এ-সাফিদ জেলায় সামরিক পুতুলদের জেলা হেডকোয়ার্টার ভবন সহ পার্শ্ববর্তী সকল কেন্দ্রস্থলে মুজাহিদীন ভাইদের দুর্দান্ত সশস্ত্র অভিযান।
সংঘর্ষের মধ্য দিয়ে জেলা প্রশাসন কেন্দ্র, পুলিশ হেডকোয়ার্টার, এএনএ পুতুলদের বিস্তৃত একটি আউটপোস্ট সহ পার্শ্ববর্তী সকল কেন্দ্রস্থল ও চেকপোস্ট সন্ত্রাসমুক্ত ও মুজাহিদীন্দের দখলে। সশস্ত্র সংঘর্ষে সামরিক পুতুল সেনাদের মারাত্মক ক্ষতি সাধন। অবস্থানগুলো থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্রশস্ত্র সহ অন্যান্য সরঞ্জাম উদ্ধার।
পরিস্থিতি ও অপারেশন সম্পর্কিত আরও বিস্তারিত তথ্যের অপেক্ষায়।

২। কুন্দুয বিমানঘাঁটি ও বালা হিসাল পাহাড়াঞ্চল মুজাহিদীন ভাইদের দ্বারা অবরুদ্ধ। পাশাপাশি ২২ টি সামরিক ট্যাংক ও বাহন জব্দ। (আল্লাহু আকবার!)
অপর একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, কুন্দুযের রাজধানী ও আলী আবাদ জেলার মধ্যবর্তী অঞ্চলে সামরিক পুতুলদের আরও ৮ টি ঘাঁটি দখলদারিত্বে নিতে সক্ষম হয়েছেন মুজাহিদগণ। ২১ জন সামরিক পুতুলদের আটক করা হয়েছে। আরও ২ টি রেঞ্জার সহ বিপুল পরিমাণ গোলা উদ্ধার করা হয়েছে। (আল্লাহু আকবার!)
পাশাপাশি মুজাহিদগণ কুন্দুয বিমানঘাঁটির পার্শ্ববর্তী ৪ টি পোস্ট, পিআরটি ভবন এবং পুতুল স্পেশাল ফোরসের নির্মাণাধীন কান্দাক ব্যাটেলিয়ন ঘাঁটি দখল করে নিতে সক্ষম হয়েছেন। এতে সংঘর্ষে ততোধিক ভাড়াটে সেনা নিহত এবং আহত হয়েছে বলে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

৩। কুন্দুয এ মুজাহিদীন্দের অবরুদ্ধ ও আওতায় থাকা বালা হিসার পাহাড়াঞ্চল , প্রশাসক সন্ত্রাসীদের কেন্দ্রস্থল অবশেষে সম্পূর্ণরূপে মুজাহিদীন্দের দখলদারিত্বে। আল-এমারাহ সংবাদ মাধ্যম অনুযায়ী, সকল সশস্ত্র সেনারা ব্যর্থ হয়ে নিজেদেরকে আত্মসমর্পণ করেছে।
অবস্থানগুলো হতে মুজাহিদীন ভাইরা ২৩ টি সামরিক বাহন, ২০ টি কালিশ্নিকভ, ৫ টি ভারী মেশিনগান, ৫ টি গ্রেনেড লঞ্চার, ৩ টি দুশকা সহ বিপুল পরিমাণ গোলা উদ্ধার করেছেন।
কুন্দুযের পার্শ্ববর্তী বাঘলান প্রদেশে সামরিক পুতুলদের কনভয়ের উপরও ভারী আক্রমণ চালানো হয়েছে। এখন পর্যন্ত মুজাহিদীন্দের আক্রমণে সন্ত্রাসীদের ৮ টি সামরিক ট্যাংক সহ ৩ টি বাহন বিধ্বস্তের খবর পাওয়া গেছে। (আল্লাহু আকবার! আল্লাহু আকবার!)

৪। তাকহার প্রদেশের বাঙ্গি জেলা মুজাহিদীন্দের দখল নিয়ন্ত্রণে। এদিকে দিশেহারা ১ আরবাকি কমান্ডার তার ৮ নিরাপত্তারক্ষী ৫ টি কালিশ্নিকভ, ১ টি ভারী মেশিনগান, গ্রেনেড লঞ্চার, কিছু পরিমাণ গোলা সহ ইসলামিক আমিরাতের মুজাহিদীন্দের কাছে আত্মসমর্পণ করেছে।

৫। তাকহার প্রদেশের ইসকামিশ জেলা অঞ্চল ও পুলিশ হেডকোয়ার্টার মুজাহিদীন ভাইদের দ্বারা অবরুদ্ধ। ভারী সশস্ত্র আক্রমণে ২ পুতুল কমান্ডার সহ ৬ ভাড়াটে পুলিশ নিহত ও অপর ৪ আহত।
তথ্য অনুযায়ী, অপারেশনে ১ মুজাহিদ ভাই শাহাদাৎ বরণ করেছেন। (আল্লাহ্* (সুবঃ) তাঁকে উত্তমরূপে কবুল করুন। তাঁকে জান্নাত নসীব করুন, আমীন!)। এবং অপর ৩ মুজাহিদ ভাই আঘাত প্রাপ্ত হয়েছেন। (আল্লাহ্* (সুবঃ) তাঁদেরকে তড়িৎ শেফায়াহ দান করুন, আমীন!)

৬। কুন্দুয প্রদেশের শহরাঞ্চলের দাশ্ত আব্দান এলাকার-স্থানীয় পুতুলদের সামরিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, বাচা কালান্দার নামক একটি ঘাঁটি, যার খারেদ এলাকা সহ পুল আলচীন সড়কের পার্শ্ববর্তী ৫ টি চেকপোস্ট সন্ত্রাসমুক্ত ও মুজাহিদীন্দের দখল নিয়ন্ত্রণে।
সামরিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র হতে ৭০ টি বাহন, এবং বাচ কালান্দারের ঘাঁটি হতে শতাধিক পরিমাণ হালকা ও ভারী অস্ত্রশস্ত্র ও অন্যান্য সরঞ্জাম সজ্জিত ৪ টি বাহন উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছেন মুজাহিদীন ভাইরা,। তথ্যটি আল-এমারাহ সংবাদ মাধ্যম হতে জানানো হয়েছে। (আল্লাহু আকবার!!!)

৭। কুন্দুযএর ইমাম সাহেব জেলা প্রশাসন কেন্দ্র, নিকটস্থ পুলিশ হেডকোয়ার্টার ও পার্শ্ববর্তী তাশগোযার ও দাহকান কুশলাক ঘাঁটি সমূহ অনবরত আক্রমণ পরিশেষে বর্তমানে সম্পূর্ণরূপে মুজাহিদীন্দের দখলদারিত্বে।
অপারেশনে কয়েক ডজন ভাড়াটে সেনা নিহত এবং আহত। অবস্থানগুলো হতে বিপুল পরিমাণ অস্ত্রশস্ত্র, গোলা, সামরিক বাহন সহ অন্যান্য সরঞ্জাম জব্দ। (আল্লাহু আকবার!)
অপারেশন সম্পর্কিত আরও বিস্তারিত তথ্যের অপেক্ষায়।

৮। ফারাহ প্রদেশের খাক-এ-সাফিদ জেলা ভবন ও পার্শ্ববর্তী সামরিক পুতুলদের সকল কেন্দ্রস্থলে মুজাহিদীন্দের সমন্বয় ভারী তীব্র সশস্ত্র আক্রমণ অভিযান পরিচালনা।
জেলা প্রশাসন কেন্দ্র, এএনএ আউটপোস্ট সহ সকল পার্শ্ববর্তী চেকপোস্ট ও কেন্দ্রস্থল মুজাহিদীন ভাইদের অধীনে। আক্রমণ প্রতিহত করতে ব্যর্থ হয়ে অবস্থান ছেড়ে ভীতু সেনাদের পলায়ন।
অফিসিয়ালদের সম্প্রতি এক তথ্য অনুযায়ী- বিগত ২০ দিন ধরে মুজাহিদীন ভাইরা অনবরত আক্রমণ পরিচালনার মধ্য দিয়ে জেলা কেন্দ্রটি অবরুদ্ধ করে রেখেছিলেন। অবস্থানরত পুতুলরা ঘটনাস্থল থেকে বারংবার প্রতিহতের স্বীকার হয় ও পিছু হটতে শুরু করে। আক্রমণে ২০ পুতুল সেনা নিহত সহ ২৫ এরও বেশি পুতুল আহত। ভারী গোলাবর্ষণ ও ল্যান্ড মাইন বিস্ফোরণে সন্ত্রাসীদের ৭ টি বাহন বিধ্বস্ত। পাশাপাশি ২ টি বাহন, ১ টি দুশকা মেশিনগান, কিছু সংখ্যক হালকা ও ভারী অস্ত্রশস্ত্র জব্দ।
পুরো অপারেশনটিতে, কেবল মাত্র ১ মুজাহিদ ভাই শাহাদাৎ বরণ করেছেন। (আল্লাহ্* (সুবঃ) তাঁকে উত্তমরূপে কবুল করুন। তাঁকে জান্নাত নসীব করুন, আমীন!)। অপর ৩ ভাই আঘাত প্রাপ্ত হয়েছেন। (আল্লাহ্* (সুবঃ) তাঁদেরকে তড়িৎ শেফায়াহ দান করুন, আমীন!)
স্থানীয়দের নিরাপত্তা ও তাদেরকে আর্থিক সহায়তা প্রদান নিশ্চিত করার মধ্য দিয়ে মুজাহিদীন ভাইরা জেলা কেন্দ্র, প্রশাসন ভবনসমূহে ও সকল পার্শ্ববর্তী ঘাঁটিতে বিজয়ের প্রতীক ইসলামিক আমিরাতের পতাকা উত্তোলন করেছেন। (আল্লাহু আকবার ওয়া লিল্লাহিল হামদ! আল্লাহু আকবার!)
অবস্থানগুলো হতে পলায়নকালে পুতুল সেনারা কালা নাসরুল্লাহ নামক অঞ্চলে আটকা পরেছে। বর্তমানে পুতুলরা মুজাহিদীন্দের ভারী সশস্ত্র আক্রমণের কবলে। ইনশাআল্লাহ্*! অবিলম্বেই শত্রুপক্ষ আত্মসমর্পণ করবে অথবা ধূলিসাৎ, নিঃশেষ হয়ে যাবে। (আল্লাহু আকবার!)

৯। কান্দাহার প্রদেশের মাইওয়ান্দ জেলায় আইইডি বোমা বিস্ফোরণে টহলরত ৫ এএনএ পুতুল বন্দুকধারী নিহত এবং আহত।

১০। নিমরোজ প্রদেশের দেলারাম জেলায় মুজাহিদ ভাইয়ের স্নাইপিংএ ভাড়াটে ১ পুতুল বন্দুকধারী নিহত।

১১। হেল্মান্দ প্রদেশে টহলরত স্থানীয় পুতুল বন্দুকধারীদের লক্ষ্য করে মুজাহিদীন ভাইদের অতর্কিত এক সশস্ত্র আক্রমণ পরিচালনা। ২ ভাড়াটে পুলিশ নিহত ও অপর ২ আহত।


মুজাহিদীন অভিযানের দৈনন্দিন স্ট্যাটিস্টিক্স রিপোর্টঃ ৩০ সেপ্টেম্বর , ২০১৫


 সর্বমোট অভিযান/সংবাদঃ ১১
 আগ্রাসী সন্ত্রাসী নিহতঃ ০
 আগ্রাসী সন্ত্রাসী আহতঃ ০
 আগ্রাসী সন্ত্রাসী হতাহতঃ ০
 যৌথ সন্ত্রাসী নিহতঃ ০
 যৌথ সন্ত্রাসী আহতঃ ০
 যৌথ সন্ত্রাসী হতাহতঃ ০
 ডাকাত নিহতঃ ০
 ডাকাত আহতঃ ০
 পুতুল সন্ত্রাসী নিহতঃ ২৯
 পুতুল সন্ত্রাসী আহতঃ ৩১+
 পুতুল সন্ত্রাসী হতাহতঃ ৫
 শত্রুপক্ষের ট্যাঙ্ক বিধ্বস্তঃ ৮
 শত্রুপক্ষের বাহন বিধ্বস্তঃ ১০
 শত্রুপক্ষের হেলিকপ্টার/বিমান বিধ্বস্তঃ ০
 মুজাহিদীনদের হাতে বন্দীঃ ২১
 মুজাহিদীন শহীদঃ ২
 মুজাহিদীন আহতঃ ৬
 বেসামরিক নিহতঃ ০
 বেসামরিক আহতঃ ০
 বেসামরিক বন্দীঃ ০
 মুজাহিদীনদের সাথে যোগদানঃ ৯


-------------------------------------------

হে আল্লাহ! যিনি কিতাব নাজিল করেছেন, মেঘ সৃষ্টি করেছেন, পরাভূতকারী যিনি ক্রুসেডার এবং তাদের মুরতাদ সহযোগীদের পরাভূত করেছেন।

হে আল্লাহ! তাদেরকে এবং তাদের যন্ত্রপাতিকে মুসলিমদের জন্য গনিমতের মাল বানিয়ে দাও।

হে আল্লাহ! তাদেরকে অপদস্ত কর এবং তাদের ভীত করে দাও।

হে আল্লাহ! তুমি আমাদের সাহায্যকারী এবং তুমিই আমাদের রক্ষক।

হে আল্লাহ! আমরা তোমার সাহায্যেই আক্রমন পরিচালনা করি এবং আমরা তোমাকে নিয়েই যুদ্ধ করি।

আল্লাহু আকবার

(এবং সম্মান আল্লাহ এবং তাঁর রাসুল (সাঃ) এবং বিশ্বাসী বান্দাদের জন্য কিন্তু মুনাফিকরা তা জানে না)



ইসলামিক এমিরাটস অফ আফগানিস্তান