PDA

View Full Version : চট্টগ্রামে হালিশহরে গরু জবাইয়ে হিন্দুরা বাধা দিচ্ছে।



Mohammad al bengali
09-17-2016, 10:28 AM
এই মাত্র একজন ইনবক্সে জানালো-
চট্টগ্রামে হালিশহরে গরু জবাইয়ে হিন্দুরা বাধা দিচ্ছে; এই খবর অনলাইনে ছড়িয়ে পড়ায় ভূক্তভোগী বৃদ্ধ মোজাম্মেল হাওলাদারকে বাসায় গিয়ে হুমকি দিয়েছে পুলিশের এসআই মিজান। একই সাথে আগামীকাল শনিবার সন্ধায় (বাদ মাগরীব) হিন্দু ও মুসলিম পরিবার উভয়কেই ডাক দিয়েছে বিষয়টিকে সালিশী বৈঠকের মাধ্যমে মিমাংশা করার জন্য। জানা গেছে- হালিশহরের আচার্য পাড়ার উক্ত গলিতে ১০-১২ ঘরের বসবাস, যার মধ্যে ১১টির মত হিন্দুর ঘর, বাকি একটি মাত্র মুসলিম ঘর। এ কারণ সব হিন্দু মিলে ঐ এক মুসলিম পরিবারের উপর দীর্ঘদিন ধরে নির্যাতন করে যাচ্ছে।
আগামীকাল যদি হিন্দু ও মুসলিম পরিবারকে ডাকা হয় তবে মোজাম্মেল হাওলাদারকে একাই যেতে হবে। তাই আমার মনে হয়, চট্টগ্রামের মুসলমানদের উচিত হবে ঐ সময় সবাই একযোগে থানার ঐ শালিসে উপস্থিত থাকা, অথবা শান্তিপূর্ণভাবে থানার চারপাশে অবস্থান করা। সবার উচিত নিপীড়িত মুসলিম পরিবারটির পাশে দাড়ানো। পাশাপশি চট্টগ্রামের সাংবাদিক ভাইদের অনুরোধ করবো হালিশহরের ঘটনাটি নিয়ে যেনো নিউজ করেন এবং আগামীকালকের শালিসের ঘটনাটি যেন মিডিয়ায় প্রকাশ করেন।
যেহেতু থানার ওসি হিন্দু এবং হিন্দুদের সংখ্যা বেশি, তাই শালিশের মাধ্যমে মুসলিম পরিবারটিকেই স্বাভাবিকভাবেই কোনঠাসা করার চেষ্টা করা হবে। তাই চট্টগ্রামের মুসলিমরা যদি একযোগে এগিয়ে আসেন, তবে আশা করা যায় হিন্দুরা মুসলমানদের আর নিপীড়ন করতে পারবে না।
মনে রাখবেন, বাংলাদেশের হিন্দু কর্তৃক মুসলিম নির্যাতন সবে শুরু হয়েছে। এখনই যদি আপনারা সচেতন না হউন এবং আইনী উপায়ে তার প্রতিবাদ না করেন, তবে হিন্দুরা দ্রুত ঘাড়ে চেপে বসবে এবং বাংলাদেশে ভারতের মত হনুমানের রাজত্ব প্রতিষ্ঠার চেষ্টা চালাবে।
আপনাদেরকে চট্টগ্রামের পুলিশের দায়িত্বশীল কয়েকজনের নম্বর দিলাম, আপনারা নিজ দায়িত্বে তাদের ফোন করে বলেন- যেন বিষয়টি গুরু বাংলা ইসলামিক রিমাইন্ডারত্বসহকারে দেখা হয় এবং যে বা যারা মুসলমানদের গরু জবাইয়ে বাধা এবং গর্দান কাটার হুমকি দিয়েছে তাদের যেন গ্রেফতার করে বিচার করা হয়।

ABU SALAMAH
09-17-2016, 10:06 PM
আজিজুল হক ইসলামাবাদীবন্দর নগরী চট্টগ্রামের হালিশহর থানার আচার্য্য পাড়ায় ঈদুল আজহার দিন মুসলমানদের গরু কোরবানি করতে স্থানীয় হিন্দু সন্ত্রাসী কর্তৃক বাধা দেয়ার ঘটনায় তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী।


আজ এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, উল্লিখিত এলাকায় ঈদের দিন গরু কোরবানি করতে গেলে স্থানীয় হিন্দু সন্ত্রাসী আশীষ কুমার নাথ, শান্তুনু কুমার, বেনু কুমার, কানু আচার্যরা মুসলমানদের বাধা দিয়ে বলে, এ এলাকা আমাদের বাপ দাদার, এ এলাকায় গরু জবাই হলে গর্দান ফেলে দেয়া হবে। হিন্দু সম্প্রদায়ের এ হুমকির পর আচার্য পাড়ার মুসলিম পরিবারসমূহ আতঙ্কের মধ্যে রয়েছে। এ ব্যাপারে গতকাল (১৫/০৯/২০১৬) বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ভুক্তভোগী মুসলিম পরিবারের পক্ষ হতে মোহাম্মদ মোজাম্মেল হাওলাদার (৬৫) এ বিষয়ে হালিশহর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ (অভিযোগ নম্বর-১৫৯৯/১৬) দায়ের করেন।


অভিযোগকারী মোহাম্মদ মোজাম্মেল হাওলাদার বলেন, ঈদের দিন সকাল ১০টায় আশীষ কুমার নাথ, শান্তুনু কুমার, বেনু কুমার, কানু আচার্য তাদের সরকারি রাস্তায় গরু জবাই করতে বাধা দেন এবং অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে এবং গরু জবাই করলে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে বলে রাস্তা তাদের, সেখানে গরু জবাই করা যাবে না। এলাকাবাসী জানান, প্রকাশ্যে হত্যার হুমকি দেয়া সত্ত্বেও তাৎক্ষণিক এর বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেননি হালিশহর থানার ওসি প্রণব চৌধুরী, এমনকি জিডি নিতেও রাজী হয়নি থানা পুলিশ।


আজিজুল হক ইসলামাবাদী বলেন, হিন্দু সন্ত্রাসীরা কুরবানীর গরু জবাইয়ে বাধা দিয়ে মুসলমানদের অন্তরে চরমভাবে আঘাত করেছে। এরা সাম্প্রদায়িক উস্কানি দিয়ে দেশে দাঙ্গা সৃষ্টি করে সরকারকে বেকায়দায় ফেলার ষড়যন্ত্র করছে। এদের ছেড়ে দেয়া হবেনা। হিন্দুদের মনে রাখতে হবে বাংলাদেশ মুসলমানদের মাতৃভূমি। এটা ভারতের অঙ্গরাজ্য নয়।


সংখ্যাগরিস্ট মুসলিম দেশে ধর্মীয় কাজে বাধা দানকারী হিন্দু সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়ার জন্য তিনি প্রশাসনের নিকট জোর দাবী জানিয়ে বলেন, অন্যথায় যে কোন কঠিন পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে তার জন্য সরকারকেই দায়ী থাকতে হবে।

insaf24

alif laam meem
09-17-2016, 11:22 PM
কাশ্মির, আরাকানের সাথে সাথে আমরা কেন আমাদের দেশের এই সিচুয়েশন গুলি সিরিয়াসলি নিচ্ছিনা!!!!

dirar
09-17-2016, 11:39 PM
আসুন আমরা গরু বাদ দিয়া হিন্দু জবাই করি।

ibn jiad
09-22-2016, 09:55 PM
আসুন আমরা গরু বাদ দিয়া হিন্দু জবাই করি।
হ্যাঁ, এটাই তাদের জন্য উপযুক্ত ।