Announcement

Collapse
No announcement yet.

ফিলিস্তিনের জিহাদ || আপডেট – ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

Collapse
This is a sticky topic.
X
X
 
  • Filter
  • Time
  • Show
Clear All
new posts

  • ফিলিস্তিনের জিহাদ || আপডেট – ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪




    খান ইউনিসের নাসের হাসপাতালে অপারেটিং রুমে কাজ করার সময় একজন ফিলিস্তিনি ডাক্তারকে গুলি করেছে এক দখলদার ইসরায়েলি স্নাইপার।

    ২১ বছর বয়সী এক ফিলিস্তিনি তরুণ ইসরায়েলি কারাগারে মারা গেছেন। ২০২২ সালের মে থেকে ইসরায়েলি কারাগারে বন্দী ছিলেন তিনি।

    দখলদার ইসরায়েলি বাহিনী অধিকাংশ ফিলিস্তিনির সর্বশেষ আশ্রয়স্থল রাফাহতেও স্থল অভিযান চালানোর চিন্তা করছে। যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, তারা রাফাহতে স্থল অভিযান চালানোকে সমর্থন করবে না।

    গাজায় ইসরায়েলি হামলায় এখন পর্যন্ত নিহত হয়েছেন ২৭৮৪০ জন ফিলিস্তিনি।

    ৮ই ফেব্রুয়ারিতে জায়োনিস্ট বাহিনীর উপর প্রতিরোধ যোদ্ধাদের চালানো হামলার বিবরণ:

    আল-কাসসাম ব্রিগেড:

    গাজা শহরে জায়োনিস্ট বাহিনীর মারকাভা-৪ ট্যাংকে ইয়াসিন ১০৫ দিয়ে হামলা করেছেন। এতে শত্রুসেনারা হতাহত হয়েছে।
    গাজা শহরের কাছে এক জায়োনিস্ট স্নাইপারকে নিহত করেছেন।

    আল-কুদস ব্রিগেড:

    পূর্বাঞ্চলীয় কেন্দ্রীয় গভর্নরেটে একটি জায়োনিস্ট কোয়াকপ্টার ড্রোন ভূপাতিত করেছেন।
    পূর্বাঞ্চলীয় কেন্দ্রীয় গভর্নরেটে জায়োনিস্ট বাহিনীর তাবুতে ১০৭মিমি গাইডেড মিসাইল দিয়ে হামলা করেছেন।
    খান ইউনিসে জায়োনিস্ট বাহিনীর সাথে মেশিনগান ও ট্যাংক-বিধ্বংসী শেল দিয়ে তীব্র লড়াই করেছেন।
    খান ইউনিসের পশ্চিমে হাউজ এলাকার কাছে একটি আবাসিক ভবনে লুকিয়েছিল জায়োনিস্ট বাহিনী। সেই ভবনে গাইডেড মিসাইল হামলা চালানো হয়েছে।
    জায়োনিস্ট সামরিক যানে তানডেম শেল দিয়ে হামলা চালিয়েছেন। এতে সামরিক যানে আগুন ধরে যায়।

    মুজাহিদিন ব্রিগেড:

    গাজা শহরের পশ্চিমাঞ্চলে জায়োনিস্ট বাহিনীর সাথে বিভিন্ন যুদ্ধাস্ত্র নিয়ে তীব্র লড়াই করেছেন।
    ৯টি বিভিন্ন সামরিক কমান্ড সাইটে রকেট হামলা চালিয়েছেন।

    উমার আল-কাসিম বাহিনী:

    জায়োনিস্ট বাহিনীর একটি সামরিক যানে আরপিজি দিয়ে হামলা করেছেন। বাতন আল-সামিন এবং আল-আমাল এলাকায় জায়োনিস্ট বাহিনীর সাথে সশস্ত্র লড়াই করেছেন।

    আবু আলী মুস্তফা বিগ্রেড:

    জাবালিয়া এবং গাজার পূর্বে জায়োনিস্ট অবস্থানে রকেট এবং ভারী মর্টার হামলা চালিয়েছেন।

    আল-আসিফা বাহিনী:

    গাজার পশ্চিমাঞ্চলে জায়োনিস্ট বাহিনীর সাথে তীব্র সংঘর্ষে লিপ্ত হয়েছেন।

    আল-আকসা শহীদি ব্রিগেড:

    খান ইউনিসের দক্ষিণে এবং কেন্দ্রীয় এলাকায় এবং গাজা শহরের পশ্চিমাঞ্চলে জায়োন্সিট বাহিনীর সাথে মেশিনগান, আরপিজি এবং অন্য যুদ্ধাস্ত্র নিয়ে তীব্র লড়াই করেছেন।

    Last edited by Munshi Abdur Rahman; 2 weeks ago.

  • #2
    গাজায় ইসরায়েলি হামলায় এখন পর্যন্ত নিহত হয়েছেন ২৭৮৪০ জন ফিলিস্তিনি।
    আহ আফসোস
    আল্লাহ্‌ তাআলা আমাদের ক্ষমা করুন
    আমরা নির্লিপ্ত বসে শুধু সংখ্যা গুনে যাচ্ছি
    দুনিয়াতেই না জানি আমাদের জন্য দৃষ্টান্তমূলক কি পরিণাম অপেক্ষায় আছে? আল্লাহ্‌ ক্ষমা করুন

    Comment


    • #3
      Originally posted by Sabbir Ahmed View Post
      আহ আফসোস
      আল্লাহ্‌ তাআলা আমাদের ক্ষমা করুন
      আমরা নির্লিপ্ত বসে শুধু সংখ্যা গুনে যাচ্ছি
      দুনিয়াতেই না জানি আমাদের জন্য দৃষ্টান্তমূলক কি পরিণাম অপেক্ষায় আছে? আল্লাহ্‌ ক্ষমা করুন
      যথাসাধ্য দোয়া করে যান এবং চেষ্টা করে যান। মুমিনদের সবচেয়ে বড় অস্ত্র হল দোয়া।
      পৃথিবীর রঙ্গে রঙ্গিন না হয়ে পৃথিবীকে আখেরাতের রঙ্গে রাঙ্গাই।

      Comment

      Working...
      X