Results 1 to 7 of 7
  1. #1
    Senior Member
    Join Date
    Jan 2016
    Posts
    394
    جزاك الله خيرا
    124
    634 Times جزاك الله خيرا in 233 Posts

    ভারত-পাকিস্তান উত্তেজনা মুসলিমদের সাথে নতুন চক্রান্ত!

    পাকিস্তান-ভারতের উত্তেজনা নিয়ে মুসলিমদের মাঝে আগ্রহের শেষ নেই।
    অনেকেই গাদ্দার পাকিস্তানের জন্য দোয়া করতেছে।পাকিস্তানের সেনাবাহিনীকে মুজাহিদ বলে সম্বধন করছে আরো কত কি...
    কিন্তু আসল খবর কয়জনে রাখে!
    প্রিয় মুজাহিদ ভাইয়েরা আমাদের ভুুলে গেলে চলবেনা যে, চতুর্থ প্রন্মের যুদ্ধ হবে মনস্তাত্বিক যুদ্ধ।এই যুদ্ধ শুধু অস্ত্রের মাঝেই সীমাদ্ধ থাকবেনা বরং যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়বে মানুষের চিন্তা ধারায়।
    ভারত পাকিস্তানের বর্তমান উত্তেজনা নাটক ছাড়া আর কিছুই নয়।
    আমার দৃস্টি ভারত পাকিস্তানের এই উত্তেজনা নাটক ছাড়া আর কিছু নয়।কুফরি শক্তির পরিচালনায় হিন্দুস্থানে এই নাটক মঞ্চস্থ হচ্ছে।
    যার পিছনে রয়েছে বড় এক উদ্দেশ্য।কি সেই উদ্দেশ্য আপনাদের সামনে তা তুলে ধরার প্রয়াস চালাব ইনশাআল্লাহ।
    উদ্দেশ্যঃ গাজওয়ায়ে হিন্দকে রোখা
    ভারত পাকিস্তান উত্তেজনার পর রাশিয়া এবং চীন যখন পাকিস্তানকে সাপোর্ট দিল তখনই আমার মনে এই উত্তেজনার প্রতি ঘোর সন্দেহ সৃষ্টি হল।তখনই আমি ভাবতে শুরু করলাম অবশ্যই এর পিছে কোন চক্রান্ত রয়েছে।
    রোযার ঈদের পর থেকে ভারতের হিন্দুরা কাশ্মিরী মুসলিমদের উপর ভয়াবহ নির্যাতন চালানো শুরু করে এর কারণে ফুসে উঠে কাশ্মীরের মুসলিমরা।নতুন করে শুরু হয় আযাদী আন্দোলন।প্রায় ৭০ বছর যাবত কাশ্মীরিরা আন্দোলন করে আসছে কিন্তু এবারের আন্দোলন ছিল সম্পূর্ণ ব্যতিক্রমি এক আন্দোলন।এবারের আন্দোলন থেকে জিহাদের ঘ্রাণ পাওয়া যাচ্ছিল ।পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছিল যে কোন মুহুর্তে আযাদী আন্দোলন জিহাদে মোড় নিবে। ঠিক তখনই ভারতের উরিতে মালউনদের সেনা ঘাটিতে আক্রমন পরিচালনা করে মুজাহিদরা।১৮ সৈন্য নিহত হয়।এর দ্বারাই মনে হচ্ছিল গাজওয়ায়ে হিন্দের সূচনা বুঝি হল।সবার দৃষ্টি তখন কাশ্মীরে।
    তখনই কাশ্মীর থেকে বিশ্ববাসীর দৃষ্টি সরানোর জন্য নতুন নাটক শুরু হল।
    ভারত পাকিস্তানকে দোষ দিল, পাকিস্তান অস্বিকার করল।ভারত বলল প্রতিশোধ নিব, পাকিস্তান বলল আমরা প্রস্তুত।
    এবার শুরু হল মানুষের মাজে নতুন এক উন্মাদনা।সবাই এবার শুরু করল কার কাছে কি আছে।পাকিস্তানের আছে কয়টা বিমান, ভারতের আছে কয়টা যুদ্ধজাহাজ।ভারতের সৈন্য সংখ্যা কত।পাকিস্তানের পারমাণবিক বোম আছে কয়টা।আরো কত কি...আলোচনা!
    রাশিয়ার সৈন্যরা পাকিস্তানে এসে এক বিরাট মহড়া দিয়ে গেল।পাকিস্তানের পাশে আছে চীন আরো আছে সৌদি আরব।পাকিস্তানের কোন ভয় নেই তাদের পাশে রাশিয়াও আছে।এগুলো হল একেকটি নাটকের দৃশ্য।
    আর তাতেই মুসলিমরা খুশিতেবাগবাগ!এবার বুঝবে ভারত!
    কিন্তু এদিকে মানুষ ভুলে গেল কাশ্মীর ইস্যু।যে ইস্যু আস্তে আস্তে মোড় নিচ্ছিল গাজওয়ায়ে হিন্দের দিকে,সে দিকে থেকে মানুষের দৃষ্টি সরাতে ওরা খুব ভালোভাবেই সক্ষম হল।
    কাশ্মীরের কথা ভুলে ভারত-পাকিস্তানের উত্তেজনায় মানুষ মত্ত হয়ে রইল।
    এরই নাম মনস্তাত্বিক যুদ্ধ।
    ভারত যদি সত্যি পাকিস্তানে আক্রমনও করে তাহলে সেটাও হবে নাটকের দৃশ্য।
    ওদের নাটকের মূল উদ্দেশ্য হল গাজওয়ায়ে হিন্দকে রোখা।
    আমরা যতটুকু গাজওয়ায়ে হিন্দ নিয়ে ভাবি তারচেয়ে হাজারগুন বেশী ভাবে কাফেররা।
    তবে আল্লাহ্ বলেনঃকাফেরদের চক্রান্ত নিতান্তই দুর্বল।
    Last edited by banglar omor; 09-26-2016 at 02:51 PM.
    শামের জন্য কাঁদো.....

  2. The Following 2 Users Say جزاك الله خيرا to banglar omor For This Useful Post:

    শুদ্ধ বানান (09-26-2016),Anower AL Hind (10-01-2016)

  3. #2
    Junior Member
    Join Date
    Sep 2016
    Posts
    10
    جزاك الله خيرا
    11
    10 Times جزاك الله خيرا in 5 Posts
    Quote Originally Posted by banglar omor View Post
    া।
    আমরা যতটুকু গাজওয়ায়ে হিন্দ নিয়ে ভাবি তারচেয়ে হাজারগুন বেশী ভাবে কাফেররা।
    তবে আল্লাহ্ বলেনঃকাফেরদের চক্রান্ত নিতান্তই দুর্বল।
    বারাকাল্লাহু ফীক ।

  4. The Following 2 Users Say جزاك الله خيرا to Abu khubaib 132016 For This Useful Post:

    Anower AL Hind (10-01-2016),Mullah Murhib (09-28-2016)

  5. #3
    Senior Member polashi's Avatar
    Join Date
    Apr 2016
    Posts
    318
    جزاك الله خيرا
    83
    267 Times جزاك الله خيرا in 137 Posts
    যারা ভারত পাকিস্তানের এই ইস্যুতে কিছু একটা হবে মনে করেছিল আমি তাদের জ্ঞানের সল্পতা এবং বাস্তবতা সম্পর্কে অজ্ঞতা দেখে আশ্চর্য় হচ্ছিলাম। আরো আশ্চর্য় হচ্ছিলাম আমাদের অনেক ভাইদের অবস্থা দেখে যারা অতি আশাবাদী হয়ে উঠেছিল যে পাকিস্তানের মুর্তাদ সেনা বাহিনী ভারতের উপর সত্যি আক্রমণ করবে । পাকিস্তানের মুর্তাদ সেনা বাহিনীকে আমি প্রচন্ড ঘৃণা করি।
    এরা গাদ্দার , প্রতারক, মুনাফিক, ধোঁকাবাজ। এদের দ্বারা কখনো উম্মাহর কোন কল্যাণ সাধিত হবে না।
    কাঁদো কাশ্মিরের জন্য !..................

  6. The Following 3 Users Say جزاك الله خيرا to polashi For This Useful Post:

    শুদ্ধ বানান (09-26-2016),Anower AL Hind (10-01-2016),Mullah Murhib (09-28-2016)

  7. #4
    Member ABU Ubayda's Avatar
    Join Date
    Jan 2016
    Posts
    58
    جزاك الله خيرا
    6
    52 Times جزاك الله خيرا in 25 Posts
    ভাই জাযাকাল্লাহ

    থলের বিড়াল উন্মোচিত

  8. The Following 3 Users Say جزاك الله خيرا to ABU Ubayda For This Useful Post:

    শুদ্ধ বানান (09-26-2016),Anower AL Hind (10-01-2016),Mullah Murhib (09-28-2016)

  9. #5
    Member
    Join Date
    Sep 2016
    Posts
    57
    جزاك الله خيرا
    82
    95 Times جزاك الله خيرا in 37 Posts
    আল্লাহ্ আমাদেরকে সকল চক্রান্ত থেকে হেফাজত করুন।

  10. The Following 2 Users Say جزاك الله خيرا to শুদ্ধ বানান For This Useful Post:

    Anower AL Hind (10-01-2016),Mullah Murhib (09-28-2016)

  11. #6
    Member
    Join Date
    Jun 2016
    Location
    Hindustan
    Posts
    55
    جزاك الله خيرا
    34
    49 Times جزاك الله خيرا in 23 Posts
    যাজাকাল্লাহ ভাই । অসাধারণ লিখেছেন । নিরাপত্তার ঝুকি না থাকলে অন্যান্য সাইটে লেখাটা পেস্ট করতাম ।

  12. The Following User Says جزاك الله خيرا to Usama Mahmud Hindustani For This Useful Post:

    Anower AL Hind (10-01-2016)

  13. #7
    Member
    Join Date
    Sep 2016
    Location
    its not important
    Posts
    94
    جزاك الله خيرا
    189
    184 Times جزاك الله خيرا in 63 Posts
    আমীন।
    আল্লাহ্* যা নির্ধারণ করে রেখেছেন এবং যা চান তাই হবে।আল্লাহ্* তো হচ্ছেন আল-হাকিম,আল-আলীম।
    সিরিয়ার ময়দান,সোমালিয়ার ময়দান,খোরাসানের ময়দান ইত্যাদি ময়দান গুলো প্রথম থেকেই যে খালেছ জিহাদি মানহাজে সৃষ্টি হয়েছে... ব্যাপার কিন্তু এরকম না। বিভিন্ন ইস্যুতে ময়দান কায়েম হয়েছে।
    তাই আমরা দুয়া জারি রাখি।
    আমাদের কথা গুলো মৃত যদি আমরা তাতে রক্ত না ঢালি।
    এই দ্বীন হচ্ছে তাওহিদ আল-আমালির।
    "মদীনাবাসী ও পাশ্ববর্তী পল্লীবাসীদের উচিত নয় রসূলুল্লাহর সঙ্গ ত্যাগ করে পেছনে থেকে যাওয়া এবং রসূলুল্লাহর প্রাণ থেকে নিজেদের প্রাণকে অধিক প্রিয় মনে করা। এটি এজন্য যে, আল্লাহর পথে যে তৃষ্ণা, ক্লান্তি ও ক্ষুধা তাদের স্পর্শ করে এবং তাদের এমন পদক্ষেপ যা কাফেরদের মনে ক্রোধের কারণ হয় আর শত্রুদের পক্ষ থেকে তারা যা কিছু প্রাপ্ত হয়-তার প্রত্যেকটির পরিবর্তে তাদের জন্য লিখিত হয়ে নেক আমল। নিঃসন্দেহে আল্লাহ সৎকর্মশীল লোকদের হক নষ্ট করেন না।"(সূরাঃতাওবা,আয়াতঃ১২০)

  14. The Following User Says جزاك الله خيرا to Amer ibn Abdullah For This Useful Post:

    Anower AL Hind (10-01-2016)

Posting Permissions

  • You may not post new threads
  • You may not post replies
  • You may not post attachments
  • You may not edit your posts
  •